শিল্পী চৌধুরী-এর একগুচ্ছ কবিতা

বৃষ্টি ও আকাশ

দিন -ভিখারি
ভালোবাসা কি রোজ রোজ পেতে হয়
ও তো ক্ষণিকের ছিঁটে ফোঁটায় মন ভেজানো ।

অমন করে বলো না বৃষ্টি ।

আকাশ
রাত গভীরে নাকি তোমার বুকে যন্ত্রনা হয়
সেই যন্ত্রনাদের ভোলাতে তুমি প্রতিশোধ নাও —

প্রতিশোধ — কিসের ? কিসের প্রতিশোধ বৃষ্টি ?

বোঝো না আকাশ , নাকি বুঝেও এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা —
কত বুকেই তো কত তৃষ্ণা ,
অথচ তুমি চাতকের মত চেয়ে থাকো —

আমি চেয়ে থাকি , কার দিকে ? কার দিকে চেয়ে থাকি বৃষ্টি ?
আমার বুকে তৃষ্ণা নেই বৃষ্টি ।

উফ্‌ সেই আবার মিথ্যে , কি পাও এত মিথ্যে বলে ,
তোমার এই ভাঙ্গা-গড়া খেলায় ঈশান কোনে
দেখো এক অভিমানী বসে আছে —

ওর অভিমান যে অকারন বৃষ্টি ।

কেন ? অকারন কেন ?

বৃষ্টি , ভালোবাসি তোমাকে ,
আমার স্বপ্ন তুমি ,
আমার এই বিষাদময় রাতের কারন তুমি ,
আমি পুরুষ হয়েও আমার অক্ষমতা তোমাকে ধরে রাখতে না পারার ।
হ্যা বৃষ্টি –তুমি ঠিক বলেছ , আমি প্রতিশোধ নিই প্রতি রাতে
আমার হিংসে হয় যখন তুমি দূরে যাও
তুমি আমাকে ছেড়ে অরণ্যের কাছে যাও ,
পথের কাছে যাও , যাও পৃথিবীর বুকে ,
আমি যে তোমাকে শুধু আমার করে পেতে চাই বৃষ্টি , শুধু আমার করে ।
যেও না বৃষ্টি অমন করে আমায় ছেড়ে –প্লিজ যেও না ।

আকাশ , তুমি যে দিন-ভিখারি , তাই তো আমায় বাঁধতে চাও
সহস্র প্রানের বিনিময়ে বন্ধন গড়তে চাও ,
তুমি স্থির হও আকাশ ,
জেনো , সবার প্রয়োজনে বৃষ্টি তাদের কাছে যায়
অথচ বেলাশেষে বৃষ্টি ফিরে আসে আকাশের কাছে
তার নিজস্ব আকাশে ।।

‘ তুমি আছো ‘

তোমার কথা ভেবে যখন ঠোঁট কেঁপে ওঠে
তোমার কথা ভেবে যখন হৃদয়ে ঝড় ওঠে ,
বুঝি প্রেম জীবিত আছে ।
প্রেম দুরন্ত হয় সিদ্ধান্ত দৃঢ় হয়
সাথে ভাবনাগুলো হয় স্থির ,
প্রেম যে এমনই হয় ।
লোকে বলে তুমি নেই কিন্তু কি করে বোঝাই তাদের
তুমি আছো , তুমি আছো আমার অস্তিত্ব জুড়ে ,
আমার চারপাশে আমাকে ঘিরে ।
ওরা বোঝে না , তুমি যদি নাই থাকতে
তবে হৃদয়ে ঝড় উঠত না ,
হৃদয় অশান্ত হয়ে যেত,
দিক ভুলে লক্ষ্য ভুলে হয়তো বা অন্য কাউকে ভালবাসতে পারতো ।
কিন্তু মন যে তোমাকে ছাড়া কাউকে ভালোবাসতে পারে না ।
আমি যে জীবনে হিসেব করতে শিখিনি
শুধু কিছু মুহূর্তকে আপন ভেবে আপন করে রেখেছি ।
ওরা বলে তুমি নেই কিন্তু আমি জানি তুমি আছো ,
এখানে সেখানে যেখানেই যাই না কেন পাশে আছো , সাথে আছো ।
আমার আমিতে মিশে আছো তবে কি করে ওদের কথা মানি যে তুমি নেই ।

সিদ্ধান্ত

ফিরে আর যাব না ———
জানবো না , কেমন আছো
সাগরের ঢেউয়ের সাথে এখনো কি ভেসে চলো ,
বিষে বিষ মিশিয়ে বুকে কতটা ছড়াতে পারো ,
কিচ্ছু জানবো না —-
অধিকারের কবরে একটি ফুল
সন্ধ্যার রঙে রাঙানো
সেই কবর আমার বুকের ভিতর
আমি নীরব
নিশ্চুপ ।

শূন্যতা

বুকের ভিতর আজকাল অজস্র জায়গা
ভয় নেই হারাবার , ভয় নেই বিশ্বাসঘাতকতার
ভয় নেই বুক চিরে বাজ পড়ার ।
বিবর্ণ স্মৃতিদের বলেছি ,
যা উড়ে যা , আমার আকাশেই কেন তোরা ;
আকাশ কি আমার একার ,
দিগন্ত ছোঁয়ার আশা নিয়ে যা উড়ে যা ,
ভুলে যা আমাকে , ভুলে যা দহন জ্বালাকে ।
বিচ্ছেদের গন্ধ বাতাসে —
অথচ আমার বুকে অজস্র শান্তি ,
সমুদ্রের কান্না নেই
নদীর নেই বয়ে যাওয়া
রাতআঁধারে জোনাকীরা এলে নেই তাদের দেখে আগামীর পথ চাওয়া
তবুও আজকাল আগামীরা আসে , নির্লজ্জের মত আসে
মধ্যরাতে বুকের মাঝে আশ্রয় খোঁজে —
আমি ঘুমের জন্য বুকের মাঝে শূন্যতা রাখি
অজস্র শূন্যতা ।

বিষ

যদি কখনো খুঁজে পাও ফাগুন
বলো তাকে ,
এই তুমিই ফাগুন কেড়ে আগুন জ্বালিয়েছিলে কারো হৃদয়ে ।
যদি কোনো রাতে কোনো পথে একা হেঁটে যাও অন্ধকারে
বলো তাকে ,
এই অন্ধকারকেই মাখিয়েছিলে কারো গায়ে ।
প্রেম জানে , কতটা বিষ তুমি দিতে পারো অনুভূতিতে…

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
৪২ বার পঠিত
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com