সাকিব আল হাসানের অনন্য রেকর্ড-এর দিনে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ৩ উইকেট হারিয়ে ২৮

২১ বার পঠিত

চট্টগ্রাম টেস্টে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করছে ইংল্যান্ড। এ ম্যাচে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে টেস্টে ১৫০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন সাকিব আল হাসান। ইংলিশ ব্যাটসম্যান জো রুটকে ফিরিয়ে এ মাইলফলক স্পর্শ করেন তিনি। এর পর বেন ডাকেটকেও (১৫) ফিরিয়েছেন সাকিব। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত লাঞ্চ বিরতির আগ পর্যন্ত ১১.২ ওভার শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে ২৮ রান করেছে ইংল্যান্ড। গ্যারি ব্যাল্যান্স ০ রানে ব্যাট করছেন।

প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও ইংলিশ শিবিরে প্রথম আঘাত হানেন মেহেদি হাসান মিরাজ। নিজের পঞ্চম ও ইনিংসের নবম ওভারের প্রথম বলে অ্যালিস্টার কুককে ফিরিয়েছেন এ অফস্পিনার। তার পরের ওভারে জো রুট এলবিডব্লিউ করে ফিরিয়ছেন সাকিব। স্লিপে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ১২ রান করেছেন ইংলিশ অধিনায়ক। আর রুট করেছেন ১ রান।

পাঁচ উইকেট হাতে নিয়ে ও ৭২ রানে পিছিয়ে থেকে তৃতীয় দিনের খেলা ‍শুরু করেছিল বাংলাদেশ। কিন্ত আগের দিনের ৫ উইকেটে ২২১ রানের সঙ্গে তৃতীয় দিনে শেষ পাঁচ উইকেটে ২৭ রান যোগ করে ২৪৮ রানে অলআউট হয়েছে মুশফিক বাহিনী। ইংল্যান্ড তাদের প্রথম ইনিংসে অলআউট হয়েছিল ২৯৩ রানে। ফলে বাংলাদেশের পরিবর্তে  উল্টো ৪৫ রানের লিড পেয়েছে সফরকারীরা।

তৃতীয় দিনে কোনো রান যোগ না করেই ফিরে যান আগের দিন ৩১ রানে অপরাজিত থাকা ব্যাটসম্যান সাকিব আল হাসান। এরপর ব্যক্তিগত ২ রান করে শফিউল ও ১ রান করে মেহেদি হাসান মিরাজও ফিরে গেছেন। মঈন আলির করা তৃতীয় দিনের প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলে স্টাম্পিং হয়ে ফেরেন সাকিব। ইনিংসের ৮১তম ওভারের দ্বিতীয় বলে শফিউলকে স্টুয়ার্ড ব্রডের ক্যাচ বানিয়ে ফেরান  আদিল রশিদ। বেন স্টোকসের করা ইনিংসের ৮২তম ওভারের প্রথম বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরেন মেহেদি হাসান মিরাজ। 

এরপর বেন স্টোকস ইনিংসের ৮৬তম ওভারের তৃতীয় ও শেষ বলে যথাক্রমে সাব্বির রহমান ১৯ ও কামরুল ইসলাম রাব্বিকে ০ রানে ফেরালে ২৪৮ রানে থেমে যায় বাংলাদেশের ইনিংস। দ্বিতীয় দিনের শেষ বেলায় আউট হয়ে ফিরে যান অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। অর্ধশতক থেকে মাত্র ২ রান দূরে থাকতে বেন স্টোকসের করা ইনিংসের ৭২তম ওভারের তৃতীয় বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন মুশফিক। তার আউটে দিনটা পুরোপুরি বাংলাদেশের হয়নি। 

১৬৩ রানে চতুর্থ উইকেট পতনের পর পঞ্চম উইকেট জুটিতে সাকিবের সঙ্গে ৫৮ রানের জুটি গড়েন মুশফিক। বেন স্টোকসের করা ইনিংসের ৭২তম ওভারের তৃতীয় বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ৪৮ রান করেন মুশফিক।  মুশফিকের আউটের পর নাইটওয়াস ব্যাটসম্যান হিসেবে ক্রিজে আসেন শফিউল ইসলাম। এরপর আরো দুই ওভার খেলা হলে কোনো বিপর্যয় ঘটেনি। তাই তৃতীয় দিনে আবার ব্যাটিংয়ে নামবেন সাকিব (৩১) ও শফিউল (০)।

এ ম্যাচে ক্যারিয়ারের ১৯তম ফিফটি করে আউট হয়েছেন ওপেনার তামিম ইকবাল। গ্যারেথ ব্যাটির করা ইনিংসের ৫৫তম ওভারের চতুর্থ বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ৭৮ রান করেছেন তামিম। ৩৮ রান করে আউট হয়ে ফিরে গেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আদিল রশিদের করা ইনিংসের ৪৪তম ওভারের দ্বিতীয় বলে স্লিপে জো রুটের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন রিয়াদ। তার আগের ওভারে আম্পায়ার আউট দিলেও রিভিউ নিয়ে বেঁচে যান তামিম।

দ্রুত দুই উইকেট হারানোর চার নম্বরে নামা মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সঙ্গে  অর্ধশতাধিক রানের জুটি গড়ে বিপর্যয় সামাল দেন তামিম। তৃতীয় উইকেট জুটিতে এই দুইজন যোগ করেন মূল্যবান ৯০ রান।  মঈন আলির করা ইনিংসের ৪১তম ওভারের তৃতীয় বলে চার মেরে ফিফটি পূর্ণ করেন তামিম।  ছয়টি চারের সাহায্যে এ রান করেন তিনি।

নিজের প্রথম ও ইনিংসের ১৪তম ওভারেই ওপেনার ইমরুল কায়েস ও ওয়ান ডাউন ব্যাটসম্যান মুমিনুল হককে ফেরান ইংলিশ স্পিনার মঈন আলি। দলীয় ২৯ রানে আউট হওয়ার আগে ইমরুল করেন ২১ রান। কোনো রান না করেই ফেরেন মুমিনুল। বাংলাদেশের হয়ে ইনিংসের সূচনা করেন দুই বাঁহাতি ওপেনার তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েস। এরআগে তিন টাইগার স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ, সাকিব আল হাসন ও তাইজুল ইসলামের বোলিং তোপে ২৯৩ রানে অলআউট হয় ইংল্যান্ড।  আগের দিনে ৭ উইকেটে ২৫৮ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করে সফরকারীরা। দ্বিতীয় দিনে বাকি ৩ উইকেট হারিয়ে ৩৫ রান যোগ করে অ্যালিস্টার কুকের দল। 

দিনের প্রথম বলেই ক্রিস ওকসকে ফেরান তাইজুল ইসলাম। ইনিংসের ৯৩তম ওভারের প্রথম বলে মুমিনুল ইসলামের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ওকস। আউট হওয়ার আগে ৩৬ রান করেন তিনি। আদিল রশিদকে নিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করেছেন বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম। ইনিংসের ১০১তম ও নিজের ২২তম ওভারের সাব্বির রহমানের দুর্দান্ত ক্যাচে আউট হওয়ার আগে ২৬ রান করেছেন রশিদ। ইনিংসের ১০৫তম ওভারের পঞ্চম বলে স্টুয়ার্ড ব্রডকে নিজের ষষ্ঠ শিকারে পরিণত করেন মিরাজ। আউট হওয়ার আগে ১৩ রান করেন তিনি।  

অভিষিক্ত মেহেদি হাসান মিরাজের ঘূর্ণি জাদুতে চট্টগ্রাম টেস্টের প্রথম দিন নিজেদের করে নেয় বাংলাদেশ। প্রথম দিনে নির্ধারিত ৯০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৫৮ রান করেে সফরকারীরা। অভিষেক ম্যাচেই নিজের ভেলকি দেখিয়েছেন অনূর্ধ্ব-১৯ দলের অধিনায়ক মেহেদি হাসান মিরাজ। ক্যারিয়ারে প্রথমবার খেলতে নেমেই ৬ উইকেট তুলে নিয়েছেন এ অফস্পিনার। বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ইংলিশ অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুক টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন।

ইংলিশদের হয়ে ইনিংসের সূচনা করতে নামেন অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুক ও অভিষিক্ত বেন ডাকেট। শুরু থেকেই নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে বাংলাদেশের বোলাররা। দলীয় ২১ রানের মাথায় ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে সফরকারীরা। ইংলিশ শিবিরে প্রথম আঘাত হানেন মিরাজ। ইনিংসের দশম ওভারের পঞ্চম বলে বেন ডাকেটকে বোল্ড করে ফেরান অভিষিক্ত এ স্পিনার। আউট হওয়ার আগে ১৪ রান করেছেন ডাকেট। নিজের প্রথম ও ইনিংসের একাদশতম ওভারের দ্বিতীয় বলে অ্যালিস্টার কুককে বোল্ড করে ফেরান সাকিব আল হাসান। আউট হওয়ার আগে ৪ রান করেছেন ইংলিশ অধিনায়ক। দলীয় ১৮ রানে ইংলিশ ওপেনার বেন ডাকেটকে বোল্ড করে ফেরানোর পর গ্যারি ব্যালান্সকে এলবিডব্লিউ করে ফেরান অভিষিক্ত মিরাজ।

শুরুর ধাক্কা সামলে মঈন আলি ও জো রুটের ব্যাটে প্রতিরোধ গড়ে ইংলিশরা। চতুর্থ উইকেট জুটিতে জো রুট ও মঈন আলি ৬২ রানের জুটি গড়ে শুরুর ধাক্কা সামাল দেন। খেলার ৩০ তম ওভারের দ্বিতীয় বলে জোট রুটকে নিজের তৃতীয় শিকারে পরিণত করেন মিরাজ। সাব্বির রহমানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ৪০ রান করেন রুট। নিজের ১২তম ও ইনিংসের ৪১তম ওভারের চতুর্থ বলে বেন স্টোকসকে বোল্ড করে ফেরান সাকিব আল হাসান। আউট হওয়ার আগে ১৮ রান করেন এ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

পাঁচবার জীবন পাওয়ার পর অবশেষে অভিষিক্ত মেহেদি হাসান মিরাজের ঘূর্ণির কাছে হার মানেন মঈন আলি। মিরাজের করা ইনিংসের ৬৮তম ওভারের শেষ বলে ষষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে উইকেটরক্ষক মুশফিকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন মঈন। আউট হওয়ার আগে ১৭০ বলে ৬৮ রান করেন তিনি। ইনিংসের ৮২ ও নিজের ২৯তম ওভারের শেষ বলে অর্ধশতক করা বেয়ারস্টোকে বোল্ড করে পাঁচ উইকেট তুলে নেন মিরাজ। দলীয় ২৩৭ রানের মাথায় আউট হওয়ার আগে ১২৬ বলে ৫২ রান করেন তিনি।

ক্রিস ওকস ৩৬ ও আদিল রশিদ ৫ রানে অপরাজিত ছিলেন। বাংলাদেশের বোলারদের হয়ে মেহেদি হাসান মিরাজ নেন ৬ উইকেট। সাকিব আল হাসান ও তাইজুল ইসলামি ২টি করে উইকেট নেন। এ ম্যাচে বাংলাদেশের হয়ে অভিষেক হয়েছে সাব্বির রহমান, মেহেদি হাসান মিরাজ ও কামরুল ইসলাম রাব্বির। দলে জায়গা হারিয়েছেন শুভাগত হোম, সৌম্য সরকার ও নুরুল হাসান সোহান।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com