শুরুতেই ধরাশায়ী চ্যাম্পিয়ন প্রাইম ব্যাংক

এই সংবাদ ৩৭ বার পঠিত

চ্যাম্পিয়নের মতো শুরু করতে পারেনি গত আসরের শিরোপা জয়ী দল প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব। ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে (ডিপিএল) শুরুতেই হোঁচট খেল তারা। শুক্রবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত প্রিমিয়ার লিগের খেলায় নবাগত গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের কাছে ১০৬ রানের বড় ব্যবধনে হার মেনেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন প্রাইম ব্যাংক। মেহেদি হাসানের সেঞ্চুরিতে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স আগে ব্যাট করে নেমে ৫০ ওভারে ৪ উইকেটে ৩০৩ রান করে। জবাবে ৪৫.৩ ওভারে ১৯৭ রানে অলআউট হয় প্রাইম ব্যাংক।

এরআগে সকালে টস জিতে প্রাইম ব্যাংকের অধিনায়ক শুভাগত হোম চৌধুরী প্রতিপক্ষকে ব্যাটিংয়ে পাঠান। গাজী গ্রুপের দুই ওপেনার আনামুল হক বিজয় ও শামসুর রহমান শুভ দারুণ সতর্কতার সঙ্গে খেলা শুরু করেন। এমনকি লিগের প্রথম ম্যাচেই দুইজনই পেয়ে যান কাংখিত ফিফটি। বিজয় ৬৭ রানে এবং শুভ ৫৬ রানে সাজঘরে ফিরে গেলেও প্রিমিয়ার লিগে নবাগত দলটি আরেক নবাগত ক্রিকেটার মেহেদি হাসানের হাত ধরেই পেয়ে যায় লড়াই করার মতো পুঁজি।

শেষ পর্যন্ত মেহেদি হাসানের ১০৩ রানের ওপর ভর করে বড় স্কোর গড়ে তারা। পরের দিকে পাকিস্তানি খেলোয়াড় সাঈদ জুনিয়রের ২৭, ফারুক হোসেনের অপারিজত ২২ ও দলনায়ক অলক কাপালির অপারাজিত ১৫ রানের সুবাদে গাজী গ্রুপ ৫০ ওভারে ৪ উইকেটে হারিয়ে ৩০৩ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়তে সক্ষম হয়। প্রাইম ব্যাংকের হয়ে রুবেল হোসেন, নাজমুল ইসলাম ও মোহাম্মদ আজিম ১টি করে উইকেট পান।

ম্যাচের শুরু থেকেই ছয় রানের ওপর আস্কিং রান তাড়া করতে নেমে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে প্রাইম ব্যাংক। দলীয় ৪৬ রান না তুলতেই দলটি হারিয়ে বসে প্রথম সারির তিন ব্যাটসম্যানকে। এ সময় একে একে সাজঘরে ফিরে যান লংকান ক্রিকেটার মুনাবীরা (৪), মেহেদি মারুফ (৭) এবং দলনায়ক শুভাগত (৪)।

পরে তাইবুর রহমানকে নিয়ে ইনিংস মেরামতে মনোযোগী হন জাতীয় দলের ইনফর্ম ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান রুম্মান। শেষ পর্যন্ত এই জুটি দলকে বেশি-দূর পর্যন্ত টেনে নিয়ে যেতে পারেনি। সাব্বির ৩১ রানে এবং তাইবুর ৩০ রানে আউট হয়ে ফিরে যান সাজঘরে। পরে ইয়ারি আলী একটু লড়াই করার চেষ্টা করেন। শেষ পর্যন্ত তিনি ৫৬ রান করে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। বল হাতে দলকে তেমন কিছুই দিতে পারেননি রুবেল হোসেন।

তবে ব্যাট হাতে ৪৫ বলে ৪৫ রান করে পরাজয়ের ব্যবধান কিছুটা কমিয়েছেন এই ডানহাতি পেসার। শেষ পর্যন্ত প্রাইম ব্যাংক ৪৬.৩ ওভারে ১৯৭ রানে অলআউট হয়ে যায়। এদিন গ্রজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের হয়ে সাঈদ আনোয়ার জুনিয়র ৩১ রানে ৩টি, মোহাম্মদ শরীফ ও মমিনুল ইসলাম ২টি করে উইকেট পান।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com