মিসবাহ-ইউনিসের বিদায়ী টেস্ট সিরিজ

৮১ বার পঠিত

ঘোষণাটা আগেই দিয়ে রেখেছিলেন পাকিস্তান ক্রিকেটের দুই বর্ষীয়ান ক্রিকেটার মিসবাহ-উল-হক এবং ইউনিস খান। অবশেষে এসে গেল সেই সময়টি।ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আগামীকাল শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে এই দুজনের বিদায়ী টেস্ট সিরিজ। ৩ ম্যাচের এই সিরিজ শেষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানাবেন পাকিস্তানের অধিনায়ক মিসবাহ-উল-হক ও সাবেক অধিনায়ক ইউনিস খান। দীর্ঘদিন দলকে সার্ভিস দিয়ে যাওয়া দুই ক্রিকেটারকে বিজয়ীর বেশে বিদায় জানাতে চায় পাকিস্তান।অন্যদিকে দেশের মাটিতে পাকিস্তানের কাছে এখনো সিরিজ না হারের রেকর্ড ধরে রাখার মিশনে মাঠে নামবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

জ্যামাইকার সাবিনা পার্কে বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় আগামীকাল থেকে শুরু হবে সিরিজের প্রথম টেস্ট। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর শেষেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বিদায় জানানোর সিদ্বান্ত চলতি মাসেই জানিয়ে দেন মিসবাহ। অধিনায়কের সিদ্ধবান্তের কিছুদিন পর ক্যারিবীয় সফর শেষে ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর কথা জানান অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান ইউনিসও। তাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পাকিস্তানের কাছে এই সিরিজটি, মিসবাহ-ইউনিসময় সিরিজ।

মিসবাহ-ইউনিসের সিরিজটি জয় দিয়ে শেষ করতে প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। তিনি বলেন, “পাকিস্তান ক্রিকেটে তাদের অবদান অনেক। মিসবাহ-ইউনিসের পারফরমেন্সে পাকিস্তান ক্রিকেট বহুবারই আনন্দ করার উপলক্ষ্য পেয়েছে। এবার তাদের বিদায়টা আনন্দায়ক করতে চাই আমরা। ”

তবে সিরিজ নিয়ে এখনই ভাবচ্ছেন না পাকিস্তানের অধিনায়ক মিসবাহ। ম্যাচ বাই ম্যাচ এগিয়ে ভালোভাবে সিরিজ শেষ করতে বদ্ধপরিকর তিনি, “সিরিজ তিন ম্যাচের। প্রত্যক ম্যাচ নিয়েই আমাদের আলাদা-আলাদা পরিকল্পনা থাকবে। ম্যাচ ধরে এগোতে পারলে সিরিজ জয় সহজ হবে। ক্যারিয়ারের শেষ সিরিজটি স্মরনীয় করতে রাখার লক্ষ্য আমারও রয়েছে। প্রথমবারের মত ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে সিরিজ জিততে পারলে শেষটা অনেক বেশি স্মরনীয়ই থাকবে আমার ও ইউনিসের। সেই চেষ্টাই করবো আমরা। ”

এদিকে পাকিস্তানের বিপক্ষে অতীত রেকর্ড আত্মবিশ্বাস যোগাচ্ছে ক্যারিবীয়দের। নিজেদের মাটিতে পাকিস্তানের কাছে এখন পর্যন্ত কোন টেস্ট সিরিজ হারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ৭টি টেস্ট সিরিজের মধ্যে ৪টি জিতেছে ক্যারিবীয়রা। বাকী ৩ সিরিজ ড্র হয়েছে। তাই ক্যারিবিয় অধিনায়ক জেসন হোল্ডার বললেন, “আমাদের কাছে এই সিরিজটি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

নিজেদের প্রমানের দারুন এক সুযোগ আমাদের সামনে। পাকিস্তান অনেক বেশি শক্তিশালী। তারপরও আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করবো ভালো ক্রিকেট খেলার জন্য। অতীতে আমাদের এখানে এসে কখনো সিরিজ জিততে পারেনি পাকিস্তান। এবারও পাকিস্তানকে রুখে দিতে পারবো বলে আমি আশাবাদি। তবে সিরিজে শুরুটা ভালো করতে হবে এবং পরবর্তীতে তা অব্যাহত রাখতে হবে। তিন বিভাগেই ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে আমাদের। ”

অন্য একটি অতীত রেকর্ডে বেশ এগিয়ে পাকিস্তান। ২০০০ সালের পর থেকে পাকিস্তানের বিপক্ষে কোন টেস্ট সিরিজ জিততে পারেনি ক্যারিবীয়রা।২০০০ সালের পর পাঁচটি সিরিজের মধ্যে তিনটিতে জিতেছে পাকিস্তান।দু’টি হয় ড্র। এখন পর্যন্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তান মোট ১৬টি সিরিজ খেলেছে।এরমধ্যে ৫টি করে সিরিজ জিতেছে দুদল।আর ৬টি সিরিজ হয় ড্র।পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজের পরের দু’টি ম্যাচ হবে ৩০ এপ্রিল ও ১০ মে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com