ইশান্ত-কোহলি-স্টোকসদের জন্য দুঃসংবাদ

৬৫ বার পঠিত

ক্রিকেট ভদ্র লোকের খেলা। তবে কিছু কিছু খেলোয়াড়দের জন্য যেন এই প্রবাদটি ভুলেই যেতে বসেছেন ক্রিকেট ভক্তরা। ক্রিকেটারদের অখেলোয়াড়সুলভ আচরণের জন্য কঠোর আইন রয়েছে আইসিসিতে। তবে ক্রিকেটকে পরিমার্জিত করতে আরও কঠোর হচ্ছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা। বেশ কিছু নতুন নিয়ম যুক্ত করতে যাচ্ছে আইসিসি।

এসব নিয়ম চালু হওয়া মানেই ইশান্ত শর্মা বা বিরাট কোহলি কিংবা বেন স্টোকসের জন্য দুঃসংবাদ! সাম্প্রতিক সময়ে এমন কিছু ঘটনা ক্রিকেট মাঠে দেখা গেছে যা খুবই দৃষ্টিকটূ। বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ খেলতে আসা ইংল্যান্ডের অলরাউন্ডার বেন স্টোকস অখেলোয়াড়সুলভ আচরণ করেছিলেন। পরে তার জরিমানাও হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজেও ভারতের পেসার ইশান্ত শর্মা ও অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে অদ্ভুত আচরণ করতে দেখা গেছে।

তাছাড়া বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজেও ইশান্ত শর্মা সাব্বিরের সঙ্গে অদ্ভুত আচরণ করেন। নতুন নিয়ম কার্যকর হলে সমস্যায় পড়তে হবে ইশান্ত শর্মা বা বেন স্টোকসের মতো ক্রিকেটারদের। এমন অদ্ভুত আচরণ বা অখেলোয়াড়সুলভ আচরণ করলে ক্রিকেটারকে মাঠ থেকে বের করে দিতে পারবেন আম্পায়াররা। কেবল তাই নয় ৫ রানের পেনাল্টিসহ ওভারকর্তনও করা হবে দলকে। গত নিউজিল্যান্ড সফরে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যান সাকিব আল হাসানের সঙ্গেও অদ্ভুত আচরণ করেন কিউই পেসার টিম সাউদি। বল ধরে সরাসরি সাকিবের পায়ে থ্রো করেছিলেন সাউদি। বলের আঘাতে মাটিতে পরে গিয়েছিলেন সাকিব। এমন কাণ্ড ঘটালেও জরিমানার বিধান রাখা হচ্ছে।

মাঠের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে এমন আইনই করতে যাচ্ছে মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাব (এমসিসি)। নতুন নিয়মানুযায়ী প্রতিপক্ষ কোনো খেলোয়াড়ের সঙ্গে ইচ্ছা করে ধাক্কা খেলে বা কারও দিকে বল ছুড়ে মারলে পাঁচ রান জরিমানা করা হবে। যা প্রতিপক্ষের রানের সঙ্গে যোগ হবে। এছাড়া মাঠে আম্পায়ারের সঙ্গে অখেলোয়াড়সুলভ আচরণ বা কোনো ক্রিকেটারের সঙ্গে সহিংসতা দেখালে আম্পায়ার নির্দিষ্ট ওই খেলোয়াড়কে প্রথমে সতর্ক করে দেবেন। না শুধরালে ওই খেলোয়াড়কে সাময়িক সময়ের জন্য বা চূড়ান্তভাবে মাঠ থেকে বের করে দিতে পারবেন। ব্যাটের আকারও পরিবর্তণ করা হবে। ব্যাটের আকার ছোট করা হবে। নিয়ম কার্যকর হলে কেউ ইচ্ছামতো আর ব্যাট তৈরি করতে পারবেন না। প্রয়োজনে ‘ব্যাট গজ’ দিয়ে মেপে দেখা হবে ব্যাট।

এই নিয়ম অনুযায়ী ব্যাটের প্রস্থ ১০৮ মিলিমিটারের (৪.২৫ ইঞ্চি) বেশি হতে পারবে না। সর্বোচ্চ ৬৭ মিলিমিটার পুরু হতে পারবে কোনো ব্যাট। আর কিনারা হবে ৪০ মিলিমিটার। কেউ যদি অতিরিক্ত আবেদন আর আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে তাহলে প্রথমে তাদের সতর্ক করে দেয়া হবে। এমন কাজ দ্বিতীয়বার করলে ৫ রান করে জরিমানা করা হবে। নতুন নিয়মে নন-স্ট্রাইকিং প্রান্তের ব্যাটসম্যান যদি আগেই ক্রিজ ছেড়ে বের হয়ে যান তাহলে বোলার ক্রিজে না ঢুকেই তাকে রানআউট করতে পারবেন। ক্রিকেট আইন অনুযায়ী, যদি কোনো ব্যাটসম্যান ফিল্ডিং দলের অনুমতি ছাড়া ব্যাট বাদে কেবল হাত দিয়ে বল স্পর্শ করে বা ধরে ফিল্ডারের কাছে ফেরত পাঠায় বা স্টাম্পে লাগতে পারে,

এমন বলের দিক পরিবর্তন করে তবে ফিল্ডিং দলের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে আউট দিতে পারেন আম্পায়ার। এমন আউটকে ‘হ্যান্ডেল দ্য বল’ নামে ডাকা হতো। নতুন নিয়ম চালু হলে এই আউট আর থাকবে না। তার বদলে ‘অবস্ট্রাক্টিং দ্য ফিল্ড’-এর নিয়ম প্রযোজ্য হবে। নিউজিল্যান্ড সফরে নুরুল হাসান সোহানের একটি আউট নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। ব্যাটসম্যান ক্রিজে ঢোকার পর বল থ্রো করে আউট করেছিলেন সোহান। ওই সময় ব্যাটসম্যানের শরীর ও ব্যাট শূন্যে ভেসে ছিল। নতুন নিয়ম চালু হলে ব্যাটসম্যান নিরাপদ সময়ে ক্রিজ পার হওয়ার পর যদি তার ব্যাট বা শরীর শূন্যে ভেসে থাকে ওই অবস্থায় যদি কেউ স্ট্যাম্প ভেঙেও দেন তাহলেও ব্যাটসম্যান নটআউট থাকবেন।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com