জামায়াতের গঠনতন্ত্রে পরিবর্তন

১২৭ বার পঠিত
নোভা খন্দকার: নির্বাচন কমিশন থেকে নিবন্ধন বাতিল ও স্বাধীনতা যুদ্ধে সরাসরি বিরোধিতাকারী জামায়াতে ইসলামীর গঠনতন্ত্রে বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। সূত্র জানায়, সংশোধিত গঠনতন্ত্র অনুযায়ী দলটির রুকন সম্মেলনের পরিবর্তে জাতীয় কাউন্সিল করার বিধান যোগ করা হয়েছে। এ ছাড়া প্রায় ২৭ বছর পর আবার কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক পদ যুক্ত করা হয়েছে। সম্প্রতি প্রকাশিত দলের গঠনতন্ত্রের ৬০তম সংস্করণে এই দুটি পরিবর্তন আনা হয়েছে।

সূত্র আরো জানায়, ২০১৫ সালের জুনে গঠনতন্ত্রের ৫৯তম সংস্করণে ১৩ ধারায় জামায়াতের রুকন সম্মেলনের কথা বলা হয়। যদিও সর্বশেষ সংস্করণে বলা হয়েছে, জাতীয় কাউন্সিল।  এরপর ধারা ১৪-তে বলা হয়েছে, জাতীয় কাউন্সিল জামায়াতের সর্বোচ্চ ফোরাম হিসেবে গণ্য হবে। জাতীয় কাউন্সিলের সদস্যদের সরাসরি গোপন ভোটে দলের আমির নির্বাচিত হবেন। দলের গঠনতন্ত্রের ধারা-১৪-এর-৩-এ কে জাতীয় কাউন্সিলের সদস্য হবেন, এ বিষয়ে বিবরণ রয়েছে। সংশোধিত গঠনতন্ত্রে ৩টি বাড়িয়ে ৭৩টি ধারা করা হয়েছে।

সংশোধিত গঠনতন্ত্রে বলা হয়েছে, জাতীয় কাউন্সিলের সভাপতি হবেন আমিরে জামায়াত। এর মেয়াদ তিন বছর। জামায়াতের কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরার সদস্য মাওলানা হাবিবুর রহমান জানান, গত বছরের শেষ দিকেই রুকনরা ভোটে গঠনতন্ত্র সংশোধনের বিষয়ে মত দিয়েছেন। এরপর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ তা চূড়ান্ত করে।

এদিকে, নতুন গঠনতন্ত্রের সঙ্গে পাল্টে গেছে জামায়াতের ওয়েবসাইটও। এই সাইটে দলটির সব ধরনের তথ্য যুক্ত করা হয়েছে। জানতে চাইলে জামায়াত নেতা মাওলানা হাবিবুর রহমান বলেন, আঞ্চলিক পরিচালকের স্থলে সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তবে কেন্দ্রীয়ভাবে এ পদকে কী নামে অভিহিত করা হবে তা বলতে পারব না।

যমুনানিউজ
ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com