‘ঘুম ভাঙাতে’ আসছে ছাত্রদলের নতুন কমিটি

২৫ বার পঠিত

বারবার নেতৃত্ব পরিবর্তন করেও ছাত্রদলের স্থবিরতা কাটাতে ব্যর্থ বিএনপির হাইকমান্ড। তাই সংগঠনটির ‘ঘুম ভাঙাতে’ আসছে নতুন কমিটি। বিএনপির গত দুটি আন্দোলন-সংগ্রামে ‘যথার্থ ভূমিকা রাখায় ব্যর্থ’ছাত্রদলের সাংগঠনিক অবস্থা এখন যেকোনো সময়ের তুলনায় বেশি ভেঙে পড়েছে। বক্তব্য-বিবৃতির মধ্যেই সীমাবদ্ধ রয়েছে সংগঠনটি। সাংগঠনিক কার্যক্রমে এসেছে স্থবিরতা।

এ অবস্থায় ছাত্রদলের অতীত ঐতিহ্য ফেরাতে এবার আর ভুল পথে হাটছেন না বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। ভবিষ্যতে সম্ভাব্য প্রতিকূল পরিস্থিতি মোকাবিলায় আগামী দুই মাসের মধ্যে যোগ্যদের ছাত্রদলের নেতৃত্বে নিয়ে আসবেন তিনি। এজন্য সম্ভাব্য নেতাদের কর্মকাণ্ড নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন বিএনপি নেত্রী। বলা হচ্ছে, এবার ছাত্রদলে এমন কমিটি হবে, যে কমিটি সংগঠনটিকে ‘ঘুমন্ত অবস্থা’ থেকে জাগিয়ে তুলবে। ছাত্রদল ও বিএনপি সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য।

১৯৭৯ সালের ১ জানুয়ারি জিয়াউর রহমান জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল গঠন করেন। ’৮০ এর দশকে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র সংসদে ছিল ছাত্রদলের জয়জয়কার। তবে বর্তমানে সংগঠনটির চিত্র অনেকটাই ম্লান আর ব্যর্থতায় ভরপুর বলে মনে করছেন সংগঠনটির প্রাক্তন নেতারা। ২০১৪ সালের ১৪ অক্টোবর রাজিব আহসানকে সভাপতি ও মো. আকরামুল হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে ছাত্রদলের ১৫৩ সদস্যের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। সে সময় পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনে ছয় মাস সময় দেওয়া হলে দেড় বছরেও তা হয়ে ওঠেনি। এরপর চলতি বছরের ৬ ফেব্রুয়ারি ৭৩৪ জন সদস্যকে নিয়ে ওই কমিটি পূর্ণাঙ্গ রূপ পায়।

ছাত্রদলের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় এই কমিটি দিয়ে সংগঠনটির নেতৃত্ব সমালোচনার মুখে পড়ে। পাশাপাশি সিনিয়র-জুনিয়রের ভারসাম্যহীনতা এবং যোগ্য ও ত্যাগীদের পদবঞ্চিত করার অভিযোগ ওঠে। এতে সংগঠনটির ভেতরে অস্থিরতা বাড়ে, বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়। ছাত্রদল ও বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, গত ১৪ অক্টোবর ছাত্রদলের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়েছে। সেজন্য আগামী দুই মাসের মধ্যে সংগঠনটিতে নতুন নেতৃত্ব আনছে বিএনপির হাইকমান্ড। এরই মধ্যে ছাত্রদলের সম্ভাব্য নেতাদের তালিকা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার হাতে আছে।

ছাত্রদলের শীর্ষ দুই পদে কাদের আনলে সংগঠনটিতে প্রাণ ফিরবে, সে বিষয়ে যাচাই-বাছাই এবং নেতৃত্ব সক্ষমতা বিশ্লেষণ চলছে। বলা হচ্ছে, অতীতে ছাত্রদলের কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে প্রাক্তনরা যেভাবে প্রভাব বিস্তার করতেন এবার সেটি হবে না। ছাত্রদলের কমিটি গঠনে খালেদা জিয়া স্বয়ং নজর রাখছেন।

ছাত্রদলের নতুন নেতৃত্বের জন্য আলোচনা ও বিবেচনায়  রয়েছেন বর্তমান কমিটির সিনিয়র সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুন, সহ-সভাপতি এজমল হোসেন পাইলট, আবু আতিক আল হাসান মিন্টু, নাজমুল হাসান, আলমগীর হাসান সোহান, ইখতিয়ার কবির, মামুন বিল্লাহ, সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক আসাদুজ্জাম আসাদ, যুগ্ম সম্পাদক মিয়া রাসেল, বায়েজিদ আরেফিন, মিজানুর রহমান সোহাগ, আবদুল করিম সরকার, নুরুল হুদা বাবু, ফয়েজ উল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক ইসহাক সরকার, আবদুর রহিম হাওলাদার সেতু ও সাহিত্য প্রকাশনা সম্পাদক মিনহাজুল ইসলাম ভূইয়া।

এদিকে বিএনপির নতুন নির্বাহী কমিটিতে সদস্য হিসেবে ছাত্রদলের বর্তমান সভাপতি রাজীব আহসান, সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান, মামুনুর রশীদ মানুনকে রাখা হয়েছে। তবে আকরামুল হাসান এবং মামুনুর রশীদ নতুন কমিটির শীর্ষ পদেও প্রার্থী বলে জানা গেছে। জানতে চাইলে আকরামুল হাসান বলেন, নতুন কমিটি গঠনের বিষয়ে তার কাছে কোনো তথ্য নেই। তিনি এখন বিএনপি হাইকমান্ডের নির্দেশনা অনুযায়ী বাদ পড়া জেলা, মহানগর এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর নতুন কমিটি গঠনের জন্য কাজ করছেন। তিনি বলেন, ছাত্রদল বিএনপির একটি সহযোগী সংগঠন। সেহেতু দলের হাইকমান্ড যেভাবে চাইবেন, সেভাবেই এর কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

–রাইজিংবিডি

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com