ফের জাপার চেয়ারম্যান হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদ

এই সংবাদ ৩৮ বার পঠিত

জাতীয় পার্টির কাউন্সিলে হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদ ফের চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে। কমিটির পূর্ববর্তী পদগুলোর কোনো পরিবর্তন হয় নি। সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান হিসেবে রওশন এরশাদ, কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের, মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার নির্বাচিত হয়েছেন।  শনিবার দুপুর ১২টার পরে দলের ৮ম জাতীয় সম্মেলনের কাউন্সিল অধিবেশন শুরু হয়। নানা জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে শুরু হয় জাতীয় পার্টির ৮ম কেন্দ্রীয় কাউন্সিল।
 
পুর্ব ঘোষণা অনুযায়ী শনিবার সকাল ১০টা থেকে রাজধানীর রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তন ও পাশের মাঠে এই সম্মেলন শুরু হয়। বেলা ২টায় শেষ হবে কাউন্সিলের মূল পর্ব।  সকাল ১০ টায় সম্মেলন শুরু হলেও পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সকাল সাড়ে ১০ টায় পার্টির চেয়ারম্যানসহ কেন্দ্রীয় নেতারা একযোগে সভা স্থলে আসেন। এরপর সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন এরশাদ। এসময় শিল্পীরা বাদ্য-যন্ত্র বাজিয়ে দলীয় সঙ্গীত পরিবেশন করেন।
 
এরপর বিভিন্ন ধর্মীয় গ্রন্থ পাঠ করার পরে বিভিন্ন সময়ে মৃত্যুবরণকারী দলের নেতা-কর্মীদের জন্য ১ মিনিট নিরবতা পালনসহ শোক প্রস্তাব করা হয়। 
সম্মেলনের মঞ্চে দলটির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ও সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ, কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদারসহ অধিকাংশ প্রেসিডিয়ামের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত রয়েছেন। প্রথম পর্বে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত সাধারণ সম্মেলন ও সাংগঠনিক রিপোর্ট পেশ করবেন পার্টির মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার। দুপুর ২টা থেকে মিলনায়তনে কাউন্সিলরদের নিয়ে মূল সম্মেলন চলবে।

দ্বিতীয় পর্বে জাতীয় পার্টির ৭১টি সাংগঠনিক জেলা থেকে আসা ১৯ হাজার ৭শ’ কাউন্সিলর অংশ নেবেন। ডেলিগেট থাকবেন আরো প্রায় ৫০ হাজার। এসময় রাজনৈতিক এবং সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত ও গঠনতন্ত্রের প্রয়োজনীয় সংশোধনী আনা হবে। জাপা সূত্রে জানা গেছে, এবারের সম্মেলনে জাতীয় পার্টি তাদের সর্বোচ্চ শক্তি জানান দিতে বিপুল সংখ্যক লোক সমাগমের চেষ্টা করবে। এক্ষেত্রে গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ, টাঙ্গাইল, মানিকগঞ্জ ও উত্তরবঙ্গ থেকে লোক আনা হয়েছে।

কাউন্সিলে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও বাংলাদেশে অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত, হাইকমিশনার ও বিভিন্ন দাতা সংস্থার প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। এছাড়া ইসলামী আন্দোলন, জাকের পার্টি, ওয়ার্কার্স পার্টি, জাসদ, বিকল্পধারা, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগসহ বিভিন্ন ইসলামী দলের নেতাদেরকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। 
 
এদিকে সকাল থেকেই জাপার হাজার হাজার নেতা-কর্মী রঙ-বেরঙের ব্যানার, ফেস্টুন, প্লাকার্ডসহ মিছিল সহকারে সম্মেলন স্থলে উপস্থিত হতে শুরু করেন। তাদের মুখরিত স্লোগানে আশে-পাশে উৎসব মুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়। তবে সম্মেলন উপলক্ষে শাহবাগ ও এর আশে-পাশে রাস্তায় যানজটের সৃষ্টি হওয়ায় যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। 

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com