স্বাধীনতার ৪৬ বছরেও ন্যুনতম মজুরি নির্ধারণ হয়নি

জাতীয় ন্যুনতম মজুরি নির্ধারণ হয়নি, স্বাধীনতার ৪৬ বছরেও। এমনকি খাতভিত্তিক যে ন্যুনতম মজুরি চালু আছে, সেখানেও বাইরে আছে মোট শ্রমশক্তির ৮৭ ভাগ মানুষ। জাতীয় ন্যুনতম মজুরি। ঘণ্টা, দিন, সপ্তাহ বা মাস ভিত্তিতে এমন একটি মজুরি বা বেতন যার নিচে দেশের কোথাও কোনো কাজে মজুরি বা বেতন হতে পারবে না। কিন্তু বাংলাদেশে আজও তা হয়নি।

বরং এখন সরকারি বেসরকারি সব ক্ষেত্রেই উল্টো দেখা যাচ্ছে, থার্ড পার্টির মাধ্যমে নিয়োগ। ফলে নুনতম মজুরি তো দুরে থাক,উল্টো তাদের জীবিকাকে করছে নিরাপত্তাহীন। আবার তৈরি পোশাকসহ প্রাতিষ্ঠানিক ৪২টি খাতে আছে, নির্ধারিত নুনতম বেতন। কিন্তু সেটাও মানা হচ্ছেনা সবক্ষেত্রে।

আবার শ্রম আইনের বাইরেও থেকে গেছে অনেক খাত। যাদের নেই নূনতম বেতনও। অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের এ তালিকায় আছে কৃষি শ্রমিক, গৃহকর্মী, নির্মাণ শ্রমিকসহ মোট শ্রম শক্তির প্রায় ৮৭ ভাগ। অনেক সময় জীবন দিয়েও শ্রমিকরা কিনছে, তাদের জীবিকা। আর জীবনের দামে কেনা সেই জীবিকায় মালিকরা যাপন করছেন তাদের চাকচিক্যময় জীবন। কিন্তু শ্রমিকদের জীবন বদলাচ্ছে কতটুকু?

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
৫৫ বার পঠিত

স্টাফ রিপোর্টার

Bogra Offce

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com