রামগঞ্জে ৭ গ্রামের আগামীকাল ঈদকে ঘিরে ইমাম সমাজে রয়েছে বিতর্ক

এই সংবাদ ৪৫ বার পঠিত

কিশোর কুমার দত্ত,লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি:  লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার নোয়াগাঁও, বিঘা, সাউধেরখিল, সোন্দড়া, আলীপুর, শহরের কাঠবাজারসহ ৭ গ্রামের শতাধিক পরিবারে আগামীকাল সোমবার ঈদ-উল আজহা পালন করবে। সৌদি আরবের ক্যালেন্ডারের সাথে সংগতি রেখে এ সব গ্রামের লোকেরা যুগ যুগ থেকে ঈদ উদযাপন করে আসছে। এ আগাম ঈদকে কেন্দ্র করে প্রতি বছর রয়েছে বিতর্ক।

১৯৮৩ সাল থেকে চাঁদপুর জেলার হাজীগঞ্জে চান্দ্রা গ্রামের মরহুম পীর কেবলা মাওলানা ইছহাক সৌদি আরবের সাথে সংগতি রেখে ঈদ উল আজহা উদযাপন করেছিল। বর্তমানে তারই অনুসারিরা ওই রীতিনিতি পালন করে চলছেন।

এদিকে সৌদি আরবের সাথে সঙ্গতি রেখে ঈদ ও রোজা পালনে যথেষ্ট বিতর্ক রয়েছে উপজেলার ইমাম সমাজের কাছে। এই নিয়ে বেশ কয়েকজন ইমাম শুক্রবার (০৯ সেপ্টেম্বর) জুমার নামাজের খোতবার পূর্বে বয়ানে সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে রোজা রাখা ও ইফতার করা কোন ভাবেই ঠিক নয় বলে দাবী করেন। কারন সৌদি আরবের সাথে বাংলাদেশের সমেয়র প্রার্থক্য প্রায় সাড়ে ৩ঘন্টা। রাত আর দিনের বিস্তর ফারাক রয়েছে। আপনি যে দেশেই বসবাস করেন, সে দেশের সময় অনুযায়ী আপনাকে রোজা, ইফতার ও ঈদ পালন করতে হবে।

আগামীকাল সোমবার সকাল দশ টায় কাঞ্চনপুর ইউনিয়নের পূর্ব বিঘা গ্রামে মাওঃ মনির হোসেন, নোয়াগাঁও ইউনিয়নের দক্ষিনপাড়া তালিমূল কোরআন নূরানী মাদ্রাসা মাঠে মাওঃ নেছার আহম্মেদ খান ও রামগঞ্জ কাঠবাজার খানকায় মাওঃ রুহুল অমিনের নেতৃত্বে ঈদের জামায়ত অনুষ্ঠিত হবে। ঈদের নামাজ আদায় করার পর পশু কোরবানী করা হবে।

নোয়াগাও ঈদগাও কমিটির সভাপতি নেছার আহম্মেদ ও বিঘা ঈদগাও কমিটির সভাপতি হারুন রশিদ জানান, সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে সকলেরই উচিৎ পবিত্র ঈদুল আজহা পালন করা।

 

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সুব্রত দেব নাথ

সিনিয়র নিউজরুম এডিটর

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com