মঙ্গলবার থেকে সরগরম হচ্ছে সুপ্রিম কোর্ট

ঈদুল ফিতর ও অবকাশকালীন ছুটি শেষে আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে শুরু হচ্ছে সুপ্রিম কোর্টের কার্যক্রম। গুরুত্বপূর্ণ মামলার শুনানি এবং রায় ঘোষণার মধ্য দিয়ে আবারো সরগরম হবে আদালত অঙ্গন।

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহা সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের গুরুত্বপূর্ণ মামলা নিষ্পত্তির জন্য নতুন করে ২৫টি বেঞ্চ পুনর্গঠন করে দিয়েছেন বলে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট সূত্র। এসব আদালতে জামিন, রিট মোশন সিভিল মামলাসহ বিভিন্ন মামলা ও আবেদনের শুনানি নিষ্পত্তি করা হবে।

মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট খোলার পর চলতি সপ্তাহ থেকে তারেক রহমানের অর্থপাচার মামলা, শফিক রেহমানের জামিন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ প্রধান বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর নির্বাচনী এলাকা নিয়ে করা আপিল এবং আওয়ামী লীগ নেতা আহসানউল্লাহ মাস্টার হত্যা মামলায় করা আপিলসহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ মামলার শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

আগামী ২৫ জুলাই মীর কাসেম আলীর রিভিউ শুনানির জন্য রয়েছে। এছাড়া সুপ্রিম কোর্ট এবং হাইকোর্ট বিভাগে এসব মামলার কোনোটি শুনানির জন্য আবার কোনো মামলা রায় ঘোষণার জন্য রয়েছে।

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীর আপিলের রায়ের বিরুদ্ধে করা (রিভিউ) পুনর্বিবেচনার আবেদন শুনানির জন্য রয়েছে চলতি মাসে।

গত ১৭ জুন থেকে সুপ্রিম কোর্টের ছুটি ও অবকাশ শুরু হয়। এ সময়ে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে জরুরি মামলা সংক্রান্ত বিষয়াদি শুনানি ও নিষ্পত্তির জন্য ২০টি অবকাশকালীন বেঞ্চ গঠন করে দিয়েছিলেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা।

অবকাশকালীন ও ঈদুল ফিতরের ছুটির পর উচ্চ আদালতে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের অর্থপাচার মামলাসহ বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ মামলার নিষ্পত্তি হতে পারে বলে আদালত সূত্রে জানা গেছে।

তারেক রহমান ও গিয়াসউদ্দিন আল মামুনের অর্থপাচার মামলায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আনা আপিল শুনানি শেষে এখন রায়ের জন্য হাইকোর্টের একটি ডিভিশন বেঞ্চে অপেক্ষমাণ। ৩৪টি ওষুধ কোম্পানির লাইসেন্স বাতিলের বিষয়ে হাইকোর্টে রুল নিষ্পত্তির অপেক্ষায় রয়েছে। গাজীপুরের আওয়ামী লীগ নেতা আহসানউল্লাহ মাস্টার হত্যা মামলার খালাসপ্রাপ্তদের রায় স্থগিত করার বিষয়টি শুনানির জন্য ধার্য আছে।

টাঙ্গাইল-৪ আসনের উপনির্বাচনে কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র নিয়ে আপিলের শুনানির জন্য আপিলে নির্ধারিত, সাংবাদিক শফিক রেহমানের জামিন আবেদন বিষয়েও আপিল বিভাগে শুনানির জন্য রয়েছে।

অন্যদিকে মুক্তিযুদ্ধকালে আলবদর বাহিনীর নেতা মুহাম্মদ আশরাফ হোসাইনসহ জামালপুরের আট রাজাকারের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার রায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে দেওয়া হবে যেকোনো দিন।

একই মামলার আট আসামির মধ্যে গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আছেন অ্যাডভোকেট শামসুল আলম ওরফে বদরভাই ও এস এম ইউসুফ আলী। মুহাম্মদ আশরাফ হোসাইন ছাড়া পলাতক অন্য আসামিরা হলেন- অধ্যাপক শরীফ আহমেদ ওরফে শরীফ হোসেন, মোহাম্মদ আবদুল মান্নান, মোহাম্মদ আবদুল বারী, মো. হারুন ও মোহাম্মদ আবুল হাসেম। গত ১৯ জুন মামলাটির বিচার কার্যক্রম শেষে রায়ের জন্য দিন ঠিক করা হয়।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
৩৩ বার পঠিত

সুব্রত দেব নাথ

সিনিয়র নিউজরুম এডিটর

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com