কবি ও সাংবাদিক প্রান্ত পলাশের মুক্তি চাই

৪৩ বার পঠিত

গুজব ছড়ানোর অভিযোগে অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলামেইলের সম্পাদকসহ তিনজনকে র‌্যাব কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রেক্ষিতে ভুলবোঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে কবি ও সাংবাদিক প্রান্ত পলাশকে তার বাসায় ফিরিয়ে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন কথাসাহিত্যিক স্বকৃত নোমান।

তিনি লিখেছেন:

বলছি না বাংলামেইল কাজটি সঠিক করেছে। নিউজপোর্টাল হিসেবে এর একটা সুনাম আছে। দরকার ছিল না আন্ডারগ্রাউন্ড নিউজ-৭১-এর বরাত দিয়ে গুজবধর্মী নিউজটি করার। মানীয় তথ্যমন্ত্রী, র‌্যাব কর্তৃক ধৃত বাকি দুজনকে ব্যক্তিগতভাবে চিনি না। প্রান্ত পলাশকে চিনি। প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ কবি। একজন আধুনিক মানুষ। যিনি মানবতার কথা বলেন। প্রগতির কথা বলেন। ধর্মান্ধতা, ধর্মসন্ত্রাস, অমানবিকতা আর দেশদ্রোহীদের বিরুদ্ধে সদাজাগ্রত থাকেন। আপনি কি তার সেই কবিতাটি পড়েছেন? ‘আমার কিরাম জানি লাগে/কিরাম কিরাম/গায়ে-গতরে রইদ লাগি আঠা-আঠা ভাব/মাইনষের থুথুর লাগি আঠা-আঠা ভাব/শ্রীরাম শ্রীরাম/…আমি কনে যাব?/দ্যাখো ঝগড়া লাগিছে ডান-বাম/দ্যাখো মগজ হইতে ঝরিতেছে কলোনির স্পাম/আমার যাবার রাস্তা রাখিছো শ্রীরাম?’

মাননীয় তথ্যমন্ত্রী, পুরো কবিতাটি পড়লে আপনার কিন্তু খুব ভালো লাগবে। অসাধারণ কবিতা। এই নিষ্ঠুর শহরে টিকে থাকার জন্য বাংলামেইল নামক প্রতিষ্ঠানটিতে চাকরি করেন প্রান্ত। হয়ত উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের চাপে এমন একটা নিউজ করতে তিনি বাধ্য হয়েছেন। আমাদের অনলাইন নিউজপোর্টালগুলো এখনো বিকশিত হয়নি। আলেক্সা র‌্যাংকিংয়ে এগিয়ে থাকার প্রতিযোগিতায় উল্টাপাল্টা নিউজ করে বিস্তর। নিউজপোর্টালগুলো এখনো আসলে মহড়ার মধ্যে আছে। মহড়ায় ভুলত্রুটি হয়। ভুল করতে করতে একদিন শুদ্ধির জায়গায় পৌঁছবে। মাননীয় তথ্য ও প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় নিশ্চয়ই সহিষ্ণুতা প্রদর্শন করবেন। আমরা তাঁকে উদার ক্ষমাশীল হিসেবে দেখতে চাই। প্রান্তকে মুক্তি দিন। কবিকে গারদে আটকে রাখতে নেই। রাখলে সভ্যতা থরথরিয়ে কাঁপে।

র‌্যাব-৩ এর একটি দল রোববার রাত ১১টার দিকে কাকরাইলে প্রতিষ্ঠানটির কার্যালয়ে গিয়ে  ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাহাদাত উল্যা খান, নির্বাহী সম্পাদক মাকসুদুল আলম খান ও স্টাফ রিপোর্টার প্রান্ত পলাশকে আটক করে নিয়ে যায়।

র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক খন্দকার গোলাম সারোয়ার বলেন, “গুজব ছড়ানোর অভিযোগে তাদের র‌্যাব কার্যালয়ে আনা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে তাদের আটক বা গ্রেপ্তার করা হবে, না ছেড়ে দেওয়া হবে।”

অখ্যাত একটি অনলাইন বিমান দুর্ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী পুত্র জয় নিহত শিরোনাম দিয়ে ভুয়া সংবাদ প্রচার করে। সেই নিউজের সূত্রে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে বাংলামেইল২৪ডটকম যেখানে নিহতের খবরটি গুজব বলে সঠিক তথ্য প্রচার করার দাবি করে সংবাদ মাধ্যমটি। প্রতিবেদনটি তৈরি করেন সহ-সম্পাদক প্রান্ত পলাশ।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সুব্রত দেব নাথ

সিনিয়র নিউজরুম এডিটর

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com