আজ বৃহস্পতিবার, ৬ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং, ২৯শে জিলহজ্জ, ১৪৩৮ হিজরী, শরৎকাল, সময়ঃ সন্ধ্যা ৬:৩৭ মিনিট | Bangla Font Converter | লাইভ ক্রিকেট

সাত টি কারণে একটু ‘পাগলাটে’ মেয়েরাই স্ত্রী হিসাবে বেশি ভালো!

‘সংসার সুখের হয় রমণীর গুণে”- এই প্রবাদের দিন বুঝি এবার ফুরোলো। আমাদের সমাজে ‘বৌ’ মানেই সকলে খুঁজে থাকেন একদম শান্ত স্বভাবের লক্ষ্মী ভালো মেয়ে। আমরা মনে করি এমন মেয়ের সাথেই বুঝি সংসার হবে সুখের। কিন্তু আসলে কি তাই? যুগের সাথে সাথে পরিবর্তন এসেছে সবক্ষেত্রেই। মানুষের রুচি আর আবেগের ধরণে যেমন পরিবর্তন এসেছে, তেমনই পরিবর্তন এসেছে জীবনের প্রতি দৃষ্টি ভঙ্গির ক্ষেত্রেও। ‘বৌ’ মানেই সেই গড়পড়তা হিসেব-নিকেশ এখন আর খাটে না আধুনিক নারী-পুরুষের ক্ষেত্রে।

যুগের সাথে তাল মিলিয়ে আধুনিক মনোবিজ্ঞানীরাও বলছেন অন্য কথা। তাঁরাও জানাচ্ছেন যে, সাদাসিধে লক্ষ্মী মেয়েদের চাইতে বরং একটু ‘পাগলাটে’ মেয়েদের সাথেই দাম্পত্য বেশি উপভোগ্য। তবে হ্যাঁ, মনে রাখতে হবে যে এক্ষেত্রে পাগলাটে মানে উন্মাদ নয়। বরং সেই ধরণের মেয়েরা, যারা টিপিক্যাল লক্ষ্মী মেয়ের মোড়ক ভেঙে নিজের মত করে বাঁচতে শিখেছেন। যারা হাসতে ও হাসাতে ভালোবাসেন এবং চিরায়িত নারীসুলভ অনেক বাহুল্যই তারা ত্যাগ করতে পেরেছেন।

চলুন, জেনে আসি কোন ৭ কারণে পাগলাটে মেয়েরা স্ত্রী হিসাবে বেশি ভালো।

  • ঘুরিয়ে পেঁচিয়ে পরিস্থিতি জটিল করে ফেলার নারী সুলভ দোষটি এদের মাঝে পাবেন না। এরা খোলা মনের এবং জীবনকে সরল ও আনন্দময় রাখতেই ভালোবাসেন। কে কী বলল বা করলো, সেটা নিয়ে তারা অস্থির হয়ে পড়েন না।
  • তাদের সাথে জীবন কখনো পানসে হবে না, দাম্পত্য চাল-ডালের হিসেবে বন্দী হয়ে পড়বে না। জীবনের সব ক্ষেত্রেই নিজের মত করে আনন্দ ও ভালোবাসার সুযোগ খুঁজে নিতে জানেন তারা। পাগলের মত ভালোবাসা কেবল এরাই বাসতে জানেন। দাম্পত্যে নিজের সেক্সুয়ালিটি কীভাবে ব্যবহার করতে হয়, সেটাও ভালোই বোঝেন তারা।
  • এই ধরণের মেয়েরা সৃজনশীল মস্তিষ্কের অধিকারী হয়ে থাকেন। আসলে এই সৃজনশীলতার কারণেই তারা সকলের চাইতে আলাদা। ক্যারিয়ার হোক, ঘর-সংসার হোক কিংবা একান্ত দাম্পত্য যৌনতা, সব ক্ষেত্রেই নিজের সৃজনশীলতার ছাপ রাখেন তারা। আর তাই, জীবন তাদের সঙ্গে হয়ে ওঠে উপভোগের।
  • নারী সুলভ অনেক ন্যাকামোই তাদের মাঝে পাবেন না। তারা অভিযোগ করেন কম, নিজের পথ নিজেই খুঁজে নিতে বেশি পারদর্শী। আপনার ওপরে বোঝা তিনি হবেন না।
  • কেবল আপনি যে তার অবলম্বন হবেন, সেটা নয়। তিনিও হবেন আপনার অবলম্বন। আপনার সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে জীবনের পথে চলবেন তিনি। আর আপনার ওপরে কোন আঘাত এলে সেটা থেকে রক্ষারও সবটুকু চেষ্টা করবেন।
  • তারা জীবনের ক্ষেত্রে অ্যাডভেঞ্চারাস। নতুন কিছু চেষ্টা, নতুন কিছু তৈরি, নতুন একটা ঝুঁকি নেয়া ইত্যাদি সব ক্ষেত্রেই অগ্রগামী। এমনকি সম্পর্ক নিয়েও তারা নিত্য নতুন আনন্দ করতে ভালোবাসেন। তাই দাম্পত্য থাকে সব সময়ে নতুন।
  • এই ধরণের মেয়েরা সহজে হাল ছাড়েন না, সেটা জীবন হোক বা দাম্পত্য। আর তাই, দাম্পত্যে সমস্যা দেখা দিলেও তারা ধৈর্য নিয়ে সেটা সমাধানের জন্য লেগে থাকেন। নিজের তরফ থেকে সকল চেষ্টা করেন দাম্পত্য রক্ষায়। তাই এদের সাথে দাম্পত্য হয় দীর্ঘস্থায়ী।

তবে হ্যাঁ, সবশেষে একটা কথা রয়ে যায়। এই যে বিয়ের জন্য এত দারুণ যে মেয়েগুলো, তারা পছন্দ করেন কেমন পুরুষ? তাদের পছন্দের পুরুষেরাও কিন্তু এভারেজ হন না। বরং তাঁরাও ভালোবাসেন সৃজনশীল স্বভাবের উদার মনের পুরুষদের!
সূত্র: ইউয়োর ট্যাংগো, সাইকোলজিটুডে

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com