জেনে নিন পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের ‘আদর্শ’ নারীশরীরের গঠন ধারণা

৪৭ বার পঠিত

যৌনতা বিকোয়। সেলস-এর ক্ষেত্রে এ যেন এক আপ্ত বাক্য। আরও ভালো করে বললে বিকোয় নারীর আবেদন। সিনেমা থেকে বিজ্ঞাপন, মিউজিক ভিডিও থেকে ম্যাগাজিনের কভারশুট। সবেতেই নারীর লাস্য, নারীর আবেদন। এক একসময় এক-একরকম। কখনও সে লাজুক, কখনও সে বোল্ড। এটা কি জানেন? পৃথিবীর এক-এক দেশে নারীর ‘আদর্শ’ শরীরের গঠন নিয়ে এক-একরকম ধারণা রয়েছে!

বাংলাদেশ– সুশ্রী মেয়ের গুণগুলি হবে ঠিক এই রকম, “নম্র, বিনয়ী, ফর্সা, টিকালো নাক, টানা টানা চোখ, আবেগঘন ভ্রু, কার্ভি ফিগার, ন্যূনতম উচ্চতা ৫ ফিট ২ ইঞ্চ”।

ফ্রান্স– সাইজ জিরো মহিলার কদর বেশি।

ব্রিটেন– প্রথমেই হতে হবে লম্বা, ৫ ফিট ৭ ইঞ্চ। আর তারপরই হতে হবে কার্ভি এবং অতি অবশ্যই সাইজ প্লাস।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র- সোনালি চুলে মায়াবিনী নীল চোখ। রোদে পোড়া ‘সেক্সি’ লুকে কাত্ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তামাম পুরুষকুল। এর উপর যদি সেই মহিলা হন লম্বা ও কার্ভি।

মিশর- যে দেশের পিরামিডের প্রতি গাঁথনিতে লুকিয়ে থাকে রহস্য, সেখানে নারীর রহস্যই সৌন্দর্যের মাপকাঠি!

সুইজারল্যান্ড– হিমশীতল এই দেশে মাঝারি উচ্চতার, খয়েরি চুলের মেয়েরাই নাকি বেশি ‘উষ্ণ’।

চিন– বলা হয় চিনে নাকি “এ৪ কোমর ও আইফোন-৬ লেগ” মেয়েরাই সবচেয়ে বেশি আকর্ষণীয়।

বুলগেরিয়া– লম্বা, নো ফ্যাট, স্লিম কিন্তু সাইজ প্লাস! খটকা লাগল শুনে? বুদ্ধি খাটিয়ে ভেবে নিন এবার…

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com