‘ট্রাম্প একজন মানসিক রোগী, দেশ পরিচালনায় অযোগ্য’

১০০ বার পঠিত

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মানসিক রোগী হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন আমেরিকার একদল মনোরোগ বিশেষজ্ঞ। তারা বলেছেন, ট্রাম্প দেশ পরিচালনায় অযোগ্য। বৃহস্পতিবার আমেরিকার ইয়েল ইউনিভার্সিটিতে এক সম্মেলনে মনোরোগ বিশেষজ্ঞদের একটি দল দাবি করেন, ট্রাম্প মস্তিষ্ক বিকৃতি ও বিভ্রমে আক্রান্ত এবং ট্রাম্পের এই মানসিক অবস্থা সম্পর্কে সচেতন করাকে তারা তাদের নৈতিক দায়িত্ব বলে মনে করছেন।

সম্মেলনে জন্‌স হপকিন্‌স বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল স্কুলের পরামর্শক ও সাইকোথেরাপিস্ট ড. জন গার্টনার বলেন, অভিষেক অনুষ্ঠানে সবচেয়ে বড় লোকসমাগম হয়েছে বলে ট্রাম্প যে মন্তব্য করেছিলেন সেটি ছিল অন্য অনেক ইস্যুর মতো ভবিষ্যতের বিরাট সমস্যার একটি সতর্কবার্তা। এ ধরনের মন্তব্যকারী একজন মিথ্যাবাদী ও আত্মপ্রশংসাকারীর চেয়ে খারাপ। এছাড়া, তার মস্তিষ্কবিকৃতি, বিভ্রম ও কর্তৃত্বপরায়ণ চিন্তাভাবনার প্রমাণ প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার প্রথম দিন থেকেই তিনি দিয়ে আসছেন। ডোনাল্ড ট্রাম্প যদি মনে করেন, তাঁর অভিষেক অনুষ্ঠানে সবচেয়ে বড় জনসমাগম হয়েছিল, তবে সেটি বিভ্রম চিন্তা ভাবনার ফসল।

ড. গার্টনার মনোরোগ বিশেষজ্ঞদের সংগঠন ডিউটি টু ওয়ার্নের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। বেশ কয়েকজন পেশাদার মনোরোগ বিশেষজ্ঞ নিয়ে ওই সংগঠন গঠিত। ইয়েল ইউনিভার্সিটিতে অনুষ্ঠানের সভাপতি ইয়েলের মনোরোগ বিভাগের সহযোগী ক্লিনিক্যাল প্রফেসর ড. ব্যান্ডি লি বলেন, আমি মনে করি জনগণও ট্রাম্পের এই মানসিক অবস্থা বুঝতে পারছে। এ নিয়ে এখন তারা ব্যাপকভাবে আলোচনাও করছে। নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর মনোরোগ বিশেষজ্ঞ জেমস গিলিগান সম্মেলনে বলেন, হত্যাকারী, ধর্ষকসহ সমাজের সবচেয়ে ভয়ংকরতম লোক নিয়ে তিনি কাজ করেছেন। ট্রাম্পের মানসিক রোগের ভয়াবহতা নিয়ে তাঁর দ্বিমত নেই বলে তিনি মন্তব্য করেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রথম থেকেই নানা বিতর্কিত মন্তব্য ও আচরণের মাধ্যমে তার নিজের সুস্থতা নিয়ে জনমনে সন্দেহ সৃষ্টির সুযোগ করে দিয়েছেন। ক্ষমতা গ্রহণের পর তার বিভিন্ন সিদ্ধান্তেও একই ধরনের আভাস পাওয়া যাচ্ছে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের অযাচিত সিদ্ধান্তের কারণে বিশ্বে পরমাণু যুদ্ধ শুরু হতে পারে বলেও অনেকে আশঙ্কা করছেন। ট্রাম্পের বিরোধী মহলের কেউ কেউ বলছেন, পরমাণু অস্ত্রের নিয়ন্ত্রণ এখন একজন পাগলের হাতে। কাজেই কখন যে পাগলামির কারণে তা বিস্ফোরিত হবে তা বলা যায় না।

<

p style=”text-align: right;”>সূত্র: পার্সটুডে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com