হোয়াইট হাউসেও নিরাপদ নন ট্রাম্প!

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের কার্যালয় ও বাসভবন হোয়াইট হাউসেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিরাপদ নন। এ মন্তব্য করেছেন হোয়াইট হাউসে প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকা মার্কিন সিক্রেট সার্ভিসের সাবেক এজেন্ট ড্যান বঙ্গিনো। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্ট এ খবর জানিয়েছে। গত সপ্তাহে এক ব্যক্তি হোয়াইট হাউসে ঢুকে পড়েন এবং ১৫ মিনিট অবস্থান করেন। ওই ব্যক্তি হোয়াইট হাউসের তিনটি নিরাপত্তা বেষ্টনী পার করেন বলেও বিভিন্ন মার্কিন সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে। এ নিয়ে যখন মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলোতে জোর আলোচনা চলছে তখন এই মন্তব্য করলেন সাবেক এই সিক্রেট সার্ভিস এজেন্ট।

ড্যান বঙ্গিনো বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল আইন বাস্তবায়নকারী সংস্থা সিক্রেট সার্ভিসও হোয়াইট হাউসে সন্ত্রাসী হামলা হলে ট্রাম্পকে রক্ষা করতে পারবে না’। তিনি আরও বলেন, ‘সেই অনুপ্রবেশকারী প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গে অ্যালার্ম বেজে ওঠে। সবাই জেনে যায় কেউ ভিতরে ঢুকেছে। এটা খুবই বড় ঘটনা।’ ড্যান বঙ্গিনো সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও জর্জ বুশের নিরপত্তার দায়িত্বে ছিলেন। তিনি বলেন, ‘এর মাধ্যমে এটাই প্রমাণিত হয় যে, প্রেসিডেন্ট সেখানে নিরাপদ নন। হোয়াইট হাউসে প্রেসিডেন্টকে রক্ষার সক্ষমতা নেই সিক্রেট সার্ভিসের।’

সংস্থাটি একজন ব্যক্তিকেই সামলাতে পারে না মন্তব্য করে তিনি প্রশ্ন তোলেন, ‘যদি ৪০ জন সন্ত্রাসী প্রবেশ করে তাহলে তারা কি করব?’ অনুপ্রবেশের ঘটনার পর এক বিবৃতিতে সিক্রেট সার্ভিস জানায়, ‘আটককৃত ওই তরুণ লাফিয়ে লাফিয়ে তিনটি নিরাপত্তা বেষ্টনী পার হয়েছিলেন। হোয়াইট হাউস থেকে মাত্র কয়েক কদম দূরে ছিলেন তিনি। আর সেখানেই ১৬ মিনিট ধরে অবস্থান করেছেন জোনাথন ট্রান নামের ওই তরুণ।

বিবৃতিতে বলা হয়, ১০ মার্চের ওই ঘটনা নিয়ে সিক্রেট সার্ভিস প্রচণ্ড হতাশ ও ক্ষুব্ধ। পরবর্তীতে যেন কোনও নিরাপত্তাজনিত ফাঁকফোঁকড় না থাকে সেজন্য দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছে সিক্রেট সার্ভিস। এছাড়া এ ঘটনা নিয়ে ৫০ জনের বেশি মানুষের সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়েছে। ঘটনার দিন জোনাথন ট্রান ইউএস ট্রেজারি বিভাগের কাছের ৫ ফুট উচ্চতার নিরাপত্তা বেষ্টনী পার হন। এরপর ৮ ফুট উচ্চতার একটি গেইট পার হন। সবশেষে হোয়াইট হাউসের কাছাকাছি আরেকটি বেষ্টনী পার হন।

এর আগেও বিভিন্ন সময়ে হোয়াইট হাউসে অনুপ্রবেশের ঘটনা সামনে এসেছে। অনুপ্রবেশকারীদের গ্রেফতার করে স্থানীয় পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। ২০১৪ সালে ওমর গনজালেস নামে ৪২ বছর বয়সী এক অনুপ্রবেশকারী ছুরিসহ হোয়াইট হাউসে ঢুকে পড়েন। হোয়াইট হাউসের দরজায় ঢুকে পড়ার পর ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছিল সিক্রেট সার্ভিস।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
৭৪ বার পঠিত
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com