বেলুচিস্তানের মাজারে বিস্ফোরণে নিহত ৪৩ : আইএসের দায় স্বীকার

৪৮ বার পঠিত
পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে একটি মাজারে বিস্ফোরণের ঘটনায় কমপক্ষে ৪৩ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরও ১০০ জন। শনিবার প্রদেশের খুজদার জেলার শাহ নুরানি মাজারে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। স্থানীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে। ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান বলেছে, ইরাক ‍ও সিরিয়াভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসের (ইসলামিক স্টেট) পাকিস্তান শাখা হামলার দায় স্বীকার করেছে। তবে আইএসের এ দাবির ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু জানায়নি গণমাধ্যমটি।

বেলুচিস্তানের মুখ্যমন্ত্রী মীর শরফরাজ আহমেদ বুগতি ৪৩ জন নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। করাচি থেকে ৫০টি অ্যাম্বুলেন্স ঘটনাস্থলে নেয়া হয়েছে। করাচি হাসপাতালে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। গণমাধ্যম ডন জানিয়েছে, হতাহতদের মধ্যে নারী ও শিশুও রয়েছে। উদ্ধার কার্যক্রমে সমন্বয়ের জন্য প্রাদেশিক রাজধানী কোয়েটায় একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে। মাজার প্রাঙ্গণের ভেতরে এ বিস্ফোরণ ঘটেছে। অত্যন্ত প্রত্যন্ত অঞ্চল ও যোগাযোগ অবকাঠামো ভাল না হওয়ায় ঘটনাস্থলে দ্রুত পৌঁছানো কঠিন। পাহাড়ি এলাকাটির আশেপাশে বড় ধরনের কোন হাসপাতালও নেই।

খবরে বলা হয়, মাজার প্রাঙ্গণে সুফি রীতির ধামাল গানের অনুষ্ঠান চলছিল। ঠিক অনুষ্ঠান স্পটেই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। পরে নিরাপত্তা বাহিনী ঘটনাস্থলে গিয়ে পৌঁছেছে। মাজারের খাদেম নওয়াজ আলী বলেন, প্রতিদিন সূর্যাস্তকে ঘিরে মাজারটিতে ধামাল গানের আসর বসে। এজন্য সেখানে প্রতিদিনি বিপুল সংখ্যক লোকজন এসে জড়ো হয়। খুজদার জেলার ইধি কর্মকর্তা আবদুল হাকিম জানিয়েছেন, বিস্ফোরণের সময় জনসমাগম স্থলে কমপক্ষে ৫০০ জন জড়ো হয়েছিল।

এ হামলার ঘটনায় এখনও কোন গ্রুপ দায় স্বীকার করেনি। শুক্রবার মাজারটিতে বিপুল সংখ্যক ভক্তের আনাগোনা দেখা গেছে। পাকিস্তানের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে সেখানে ভক্তরা এসে থাকেন। বেলুচিস্তানের মুখ্যমন্ত্রী মীর শরফরাজ আহমেদ বুগতি বলেছেন, গুরুতর আহতদের করাচিতে স্থানান্তর করা হবে। এর আগে অক্টোবরে প্রাদেশিক রাজধানী কোয়েটার একটি পুলিশ প্রশিক্ষণ কলেজে ভারী আত্মঘাতী হামলায় ৬১ জন নিহত হয়, আহত হয় ১১৭ জন।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com