চীনে আবাসিক ভবন ধসে ২২ জনের মৃত্যুর

২১ বার পঠিত

চীনে আবাসিক ভবন ধসে ২২ জনের মৃত্যুর। ধসে পড়া ছয় তলা ভবনের ধ্বংসস্তূপ সরিয়ে চার জনকে উদ্ধারের পর যখন জীবিত কাউকে পাওয়ার আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন উদ্ধারকর্মীরা তখন নিঃসাড় একজনের কোলের ভেতরে প্রাণের স্পন্দন টের পেয়ে সচকিত হয়ে ওঠেন তারা। প্রায় ১২ ঘণ্টার বেশি সময় পর জীবিত অবস্থায় বের করে আনা হয় তিন বছরের মেয়ে উ নিঙ্গশিকে তার মৃত বাবার কোল থেকে।

উদ্ধারকর্মীরা বলেন, বাবার কারণেই বেঁচে গেছে শিশুটি। শিশুটি প্রায় অক্ষত অবস্থায় আছে। সে বেঁচে গেল, আর এই কৃতিত্ব পুরোটাই তার বাবার। চাপা পড়ার পর নিজে মরলেও কোলের ভেতরে মেয়ের বেঁচে থাকার জন্যঅ একটু জায়গা তিনি করতে পেরেছিলেন। সোমবার চীনের পূর্বাঞ্চলে কয়েকটি আবাসিক ভবন ধসে পড়ার পর ধ্বংসস্তূপ থেকে এই শিশুটিকে উদ্ধারের খবরটি দিয়েছে দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন সিসিটিভি।

জেঝিয়াং প্রদেশের ওয়েনজোউ-এ ছয় তলা মোট চারটি ভবন একসঙ্গে ধসে পড়ে ২২ জন মারা গেছেন। জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে তিন বছরের শিশুটিসহ পাঁচ জনকে। সিসিটিভির প্রতিবেদনে দেখা যায়, উদ্ধারকর্মীরা ধুলায় ধূসরিত শিশুটিতে তুলে আনছেন— পাশেই পিলারের নিচে চাপা পড়ে আছে তার বাবা ও মায়ের মৃতদেহ।

শিশুটির বাবা ২৬ বছর বয়সী ব্যধক্তিটি একটি জুতার কারখানার শ্রমিক ছিলেন বলে সিসিটিভি জানায়। মূলত অন্যব অঞ্চল থেকে আসা নিম্ন আয়ের পরিবারগুলো এই ভবনগুলোতে ভাড়া থাকতেন। উল্লেখ, ১৯৭০ সালে নির্মিত এই ভবনগুলো কী কারণে ধসে পড়েছিল, তার কারণ উদ্ঘাটনে তদন্ত কমিটি হয়েছে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com