প্রসঙ্গঃ কাশেম বিন আবুবকর ও বর্তমান ভাবনা – গোলাম রব্বানী টুপুল

১৭২ বার পঠিত

বেশ কয়েকদিন ধরে ‘ফেসবুকে কাশেম বিন আবুবকর’ নামটি ঘুরে ফিরে আসছে। পক্ষে বিপক্ষে অনেক বন্ধুরাই মন্তব্য লিখছেন। আমি প্রাজ্ঞ বিজ্ঞ মানুষ নই। তবু বিষয়টি নিয়ে ভাবনার অবকাশ পেলাম।

অফিস থেকে যখন বাসায় ফিরছি তখন একটি জিনিস আমার চোখে পড়ল। বাসার কাছে বাস স্ট্যান্ডে এসে রিকশা নেবার সময় খেয়াল করলাম সব রিকশা উত্তর পাশে সার করে দাঁড়ানো। একটি মাত্র রিকশা যা দক্ষিণে দাঁড়ানো। এটা যে শুধু আজই দেখেছি তা নয়। বেশ ক’দিন হল দেখছি। বুঝলাম রিকশাওয়ালা বুদ্ধিমান। সবাই একই স্রোতে গা ভাসায় না। সেখানে দাঁড়িয়ে ওর ভালই কাটছে। যাত্রী ধরা বেশ সহজ।
আমার এই ভূমিকার কারণ বোঝাটা কঠিন কিছু নয়।

বর্তমান সময়ে গতানুগতিক যে সাহিত্য মানুষ গিলছে তা বাংলা সিনেমার গল্পের মত একই ধারায় প্রবাহমান। বিন আবুবকর সাহেব সেই গতানুগতিক ধারা থেকে বেরিয়ে এসেছেন। এখানে সমাজের অস্থির অবস্থা থেকে সামান্য হলেও পাঠক কে মুক্তি দিয়েছেন। সাধারণ মানুষের মনের কথাগুলো তুলে ধরেছেন। বিশেষ করে মধ্যবিত্ত ঘরের মুসলিম কিশোর কিশোরীর প্রেম ও প্রনয় কে তুলে এনেছেন তার রচনায়। আর এ কারণেই তার লেখা বই একচ্ছত্র বাজার পেয়েছে। হুমায়ুন আহমেদ পরলোকে যাবার পর সেভাবে কেউ স্থান নিতে পারছে না। সেই শূন্যতা কাটানোর একটা প্রয়াস তো থাকবেই। বাম ঘরানার অনেকেই বিশ্ব মিডিয়ায় কাসেম সাহেবের উপস্থিতির বিষয় টি ভাল চোখে দেখছেন না। যেহেতু দেশের কোন মিডিয়া তাকে ফলাও করেনি তাই প্রশ্ন ওঠারই কথা। সেদিক থেকে যদি বলি কণ্ঠ শিল্পী মমতাজের কথা। গণ মানুষের শিল্পী মমতাজ কিন্তু এক দিনে হননি। সাধনার ফসল এই মমতাজ। তিনি কিন্তু গিনেজ বুকে নাম উঠিয়েছেন।

শেষ পর্যন্ত মিডিয়া তার প্রতিভা কে সম্মান জানাতে বাধ্য হয়েছে। নোলক বাবুর কথাই ধরুন। ক্লোজাপ ওয়ানের সেই নোলককেও স্বীকৃতি দিতে হয়েছে। আবার পাশের দেশ ভারতে হলধর নাগ ৩য় শ্রেণি পর্যন্ত পড়ে ২০টি মহাকাব্য লিখে পদ্মশ্রী পুরষ্কার জিতেছেন। তা বিশ্ব মিডিয়ায় এসেছে। তা নিয়ে বড় অংকের লেনদেনের প্রশ্ন কেউ তুলেছে বলে জানা নেই।

বর্তমানে প্রচ্ছদসর্বস্ব বইয়ে ভিতরে কিছু থাকছে না। সেই সব বইয়ের চড়া দাম। অপর পক্ষে বিন আবুবকরের বই তুলনামূলক সস্তা। পাশাপাশি ধর্মীয় ভাবধারা থাকার কারণে মানুষ তার বই কিনছে। কারো বই যদি লক্ষ লক্ষ পিস বিক্রি হয় সেটা বিশ্ব মিডিয়ায় আসবে তাতে আশ্চর্য হবার কিছু আছে বলে মনে করি না। শিল্পী মুজিব পরদেশী গণ মানুষের গান গাইতেন বলে তার গানের যে কাটতি ছিল তা ঈর্ষণীয়। যে যাই বলুন, সমাজ যে সকল আচারণে অভ্যস্থ তা’ই হতে হবে সাহিত্যের উপাত্য। তবেই লেখক হবেন বিশ্বমিডিয়ার আলোচ্য ব্যক্তি।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com