টেস ক্রিশ্চিয়ান না হেসেই কাটালেন দীর্ঘ ৪০ বছর

এই মহিলা হাসেন না। এক-দুবছর নয়। দীর্ঘ ৪০ বছর এই মহিলা হাসেননি। এমন নয় যে, তিনি হাসতে জানেন না। স্বেচ্ছায় ৪০ বছর হাসেননি তিনি। নাম টেস ক্রিশ্চিয়ান। আসলে হাসলেই গালে রিংকল পড়ে যাবে যে! আর একবার রিংকল পড়ে গেলে বার্ধক্য অবধারিত। যৌবন ধরে রাখতেই তাই এমন সিদ্ধান্ত টেসের। এখন তাঁর বয়স ৫০। হাসতে বন্ধ করে দিয়েছেন শৈশব পেরিয়ে কৈশোরে পা দেওয়ার পর থেকেই। বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা, মজা, ছবি তোলা- কখনওই ভুল করেও হাসতে দেখা যায়নি টেসকে। ঠোঁটের কোণে এক চিলতে হাসির রেখাও ফোটেনি কখনও।না হেসেই ৪০ বছর কাটালেন এই মহিলা... কেন?এমনকী, মেয়ের জন্মের পরও স্বভাবে এতটুকু নড়চড় হয়নি টেসের। অনেকেই তাঁকে দেখে ভাবেন, তিনি হয়তো বোটক্স করিয়েছেন। টেস জানালেন, কোনও বোটক্স নয়। নিজের মুখের মাংসপেশীকে নিয়ন্ত্রণ করেছেন তিনি নিজে। যা বোটক্স বা যে কোনও অ্যান্টি রিংকল ক্রিমের থেকে অনেক বেশি ফলদায়ী। আর এর ফলেই অটুট তাঁর মুখমণ্ডলের সৌন্দর্য।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
৩১ বার পঠিত
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com