রাজধানীতে ভেজাল ও নিন্মমানের সেমাই তৈরী প্রতিষ্ঠানের সন্ধান : “জরিমানা আদায়”

এই সংবাদ ২৯ বার পঠিত

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর এলাকায় এপিবিএন-৫ এর অপারেশনাল টীম, ঢাকা জেলা প্রশাসন এবং বিএসটিআই এর যৌথ উদ্যোগে ভেজাল বিরোধী অভিযান পরিচালনাকালে দুটি সেমাই তৈরী প্রতিষ্ঠান’কে ১ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়। গতকাল বিকাল ১৬.০০ হতে রাত ২০.৩০ পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে এপিবিএন-৫ এর সহকারী পুলিশ সুপার জনাব মোঃ সাইদুর রহমান, ঢাকা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট জনাব তৌহিদ এলাহী এবং বিএসটিআই’র কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।  

এপিবিএন-৫ এর অপারেশন্স অফিসার মোঃ সাইদুর রহমান জানান “ দীর্ঘ ২ মাস ধরে এপিবিএন-৫ এর অপারেশনাল টীম পর্যবেক্ষণ করে আজ এই অভিযান পরিচালিত হয়”। অভিযানে দেখা যায় যে, রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর এলাকায় আসন্ন ঈদুল ফিতর’কে সামনে রেখে “আলী ফুড” ও “এস আর ফুড” সেমাই তৈরীকারক প্রতিষ্ঠান বিএসটিআই এর লাইসেন্স ব্যতিত স্যাঁতস্যাঁতে নোংরা পরিবেশে খাবারের অনুপযোগী ভেজাল ও নিন্মমানের সেমাই তৈরী ও বিপনণ করে আসছে। প্রতিষ্ঠানদ্বয়ের মালিক যথাক্রমে মোঃ মাহবুব ও আব্দুল আলীম অপরাধ স্বীকার করলে তাদের প্রত্যেক’কে ৫০ হাজার টাকা করে মোট ১ লক্ষ টাকা জরিমানা করা হয়।

তিনি আরো জানান “ পামওয়েল বা ব্যবহৃত তেলে ভাজা হয় সেমাই। এতেই শেষ নয়, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে উৎপাদিত এসব লাচ্ছা ও সেমাই ভোক্তাদের কাছে আকষর্ণীয় করে তুলতে মেশানো হয় মানবদেহের জন্য ক্ষতিকারক রং। রং ও অন্যান্য কেমিক্যাল মানুষের শরীরের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। খাদ্যদ্রব্যে মেশানো রং মানুষের পেটে গেলে তা গ্যাষ্ট্রিক, আলসার থেকে ক্যান্সারের কারণ হতে পারে এবং কিডনী ড্যামেজ ও ব্রেণের ক্ষতির পাশাপাশি অকাল মৃত্যু ডেকে আনতে পারে।

ঢাকা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট জনাব তৌহিদ এলাহী জানান “সেমাই তৈরীকারী প্রতিষ্ঠানদ্বয় বিএসটিআই এর লাইসেন্স ছাড়া নিন্মমানের সেমাই তৈরী ও বাজারজাত করার অপরাধে ভোক্তা অধিকার আইন-৩৭ ও ৪১ ধারা অনুযায়ী মোবাইল কোর্ট মামলা নং-১২ ও ১৩/১৬ তারিখ-১২/০৬/২০১৬ খ্রিঃ অনুসারে এ জরিমানা করা হয়। তাছাড়া অন্য এক অপারেশনে এপিবিএন-৫ এর অপারেশনাল টীম, ঢাকা জেলা প্রশাসন, বিএসটিআই এর  যৌথ উদ্যোগে রাজধানীর চকবাজার এলাকায় ১৫.০০ হতে ১৬.০০ পর্যন্ত ভেজাল বিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানে এপিবিএন-৫ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার জনাব আমিরুল ইসলাম, ঢাকা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট জনাব সেলিম ও বিএসটিআই কর্মকর্তা জনাব সুরাইয়া আক্তার উপস্থিত ছিলেন। অভিযানকালে দেখা যায়, অবৈধ পানি প্রক্রিয়াজাতকরণ প্রতিষ্ঠান বিএসটিআই এর লাইসেন্স ব্যতিত কোন ধরনের পরীক্ষা ছাড়া খাবারের অনুপযোগী নিন্মমানের পানি ব্যবহার করে বোতলজাত করে বাজারে সরবরাহ করে আসছে। উক্ত অপরাধে মালিক ১। সুবন ও ২। সাহিদ’কে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

    
 (আমিরুল ইসলাম)
সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (মিডিয়া অফিসার)
৫ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন
উত্তরা, ঢাকা

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com