সেলিম ওসমানসহ জড়িতদের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নয়: হাইকোর্ট

২১ বার পঠিত
নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার পিয়ার সাত্তার লতিফ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লাঞ্ছনার ঘটনায় জাতীয় পার্টির সাংসদ সেলিম ওসমানসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নেয়া হবে না জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। বুধবার এ রুল জারি করে ও ৩ দিনের মধ্যে পুলিশ সুপারকে তদন্ত প্রতিবেদন জমার দেয়া নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। এর আগে সকালে সচিবালয়ে প্রধান শিক্ষক শ্যামল কান্তিকে মারধর ও কান ধরে ওঠবস করানোর ঘটনা তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর ব্যবস্থা নেয়া হবে জানান শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

এদিকে, ঘটনা তদন্তে কাজ শুরু করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) তদন্ত কমিটি। গতকাল বরখাস্ত হওয়ার চিঠি পান লাঞ্ছনার শিকার শিক্ষক শ্যামল কান্তি। গত ৮ মে বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীকে শাসন করার সময় শিক্ষক শ্যামল কান্তি ‘ধর্মীয় কটূক্তি’ করেন বলে অভিযোগ ওঠে। পরে গত শুক্রবার বিদ্যালয়ে পরিচালনা কমিটির সভা চলাকালে মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে তার শাস্তির দাবিতে লোক জড়ো করা হয়। এরপর উত্তেজিত লোকজন তাকে মারধর করেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জাতীয় পার্টির স্থানীয় সাংসদ এ কে এম সেলিম ওসমান ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের উপস্থিতিতে প্রধান শিক্ষককে মারধর ও কান ধরে ওঠবস করানো হয়। প্রধান শিক্ষকের অভিযোগ, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির দ্বন্দ্বের জেরে পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। গতকাল বরখাস্ত হওয়ার চিঠি পেয়েছেন লাঞ্ছনার শিকার শিক্ষক শ্যামল কান্তি।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com