রাবিতে ফের হল প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগের দাবি

১৮ বার পঠিত

জি.এ.মিল্টন, রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) রহমতুন্নেসা হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মিলি জেসমিন ও আবাসিক শিক্ষিকা পাক নেহাদ বানুর পদত্যাগের দাবিতে ফের অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে ওই হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ভবনের সামনে তারা এ কর্মসূচি পালন করে। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন তাদের আশ্বাস দিলে তারা কর্মসূচি স্থগিত করেন।

শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, ২৯ আগষ্ট নানা অভিযোগসহ আমরা হল প্রাধ্যক্ষ ও আবাসিক শিক্ষিকার পদত্যাগ দাবিতে ২৪৬ জন শিক্ষার্থীর স্বাক্ষর সম্বলিত একটি অভিযোগপত্র ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক মিজানুর রহমানকে দিয়েছি। তিনি আমাদের সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিলে আমরা হলে ফিরে যাই। পরে বিকেলে হল প্রাধ্যক্ষ আমাদের ডেকে পাঠিয়েছেন বলে আবাসিক শিক্ষিকা পাক নেহাদ বানু আমাদের ঘুম থেকে জাগিয়ে তোলেন। এবং যেভাবে আছি সেভাবেই দ্রুত নিচে যেতে বলেন। এসময় তিনি অভিযোগপত্রে স্বাক্ষর করার কারণে আমাদের ‘দেখে নেওয়ার হুমকি দেন’ এবং খারাপ ব্যবহার করেন।

শিক্ষার্থীরা আরো বলেন, ‘আন্দোলনের কারণে তারা আমাদের সাথে আরো বেশি খারাপ আচরণ করছে। তাদের আচরণের কোন পরিবর্তন হয়নি। আমাদেরকে তারা মানুষই মনে করে না। স্বাক্ষর করায় হলে থাকতে পারবেনা আরো নানা ধরনের হুমকি-ধামকি দিচ্ছে। তাদের আচরণের কারণে আমরা আগেও তাদের পদত্যাগ দাবি করেছি এখনও করছি।’

এর আগে বেলা ১১টার দিকে তাদের দাবি নিয়ে তারা ছাত্র উপদেষ্টার সাথে দেখা করেন। ছাত্র উপদেষ্টা দফতরে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা শেষে দাবি আদায় না হওয়ায় তারা প্রশাসন ভবনের সামনে অনশনের ডাক দিয়ে বসে পড়েন। পরে এক ঘণ্টা অবস্থান করার পর ভিসি অধ্যাপক মিজানউদ্দিন তাদের সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিলে তারা হলে ফিরে যান।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগপত্রে বলা হয়, ছাত্রীদের কোনও সমস্যা প্রাধ্যক্ষ বা আবাসিক শিক্ষিকাকে জানালে তারা সেটা না শুনে দুর্ব্যবহার করে। এমনকি হল ছেড়ে যেতে এবং পরিবার নিয়ে কটূ কথা বলে। গণরুমে অতিথি কার্ড করার জন্য অনেক ভোগান্তি পোহাতে হয়। কার্ড হলেও তা ইচ্ছাকৃতভাবে প্রদান করতে দেরি করে। কক্ষে পর্যাপ্ত পরিমাণ সিট থাকা সত্ত্বেও তৃতীয় ও চতুর্থ বর্ষের ছাত্রীদের কক্ষে সিট দেওয়া হচ্ছে না। এছাড়া দায়িত্বে অবহেলাসহ বিভিন্ন অভিযোগ করেন শিক্ষার্থীরা।

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন বলেন, এর আগে তাদের সমস্যাগুলোর বিষয়ে জানতাম না। শিক্ষার্থীরা তাদের অভিযোগ জানিয়েছে। আস্তে আস্তে তাদের সমস্যাগুলো সমাধান করা হবে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জি.এ.মিল্টন, রাবি প্রতিনিধি #

গাউছুল আজম মিল্টন শহীদ হবিবুর রহমান হল, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী - ৬২০৫ ০১৭৬৩-২৩৭৭৭৬

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com