রাবিতে শোকসভায় অধ্যাপক ড. রেজাউলের স্ত্রী

৫৯ বার পঠিত

জি.এ.মিল্টন, রাবি প্রতিনিধি # আমার স্বামী একটা সন্তানের চাকুরীও দেখে যেতে পারলো না, একটা সন্তানের বিয়ে দেখে যেতে পারলো না। তিনি যদি বাজারে আলু-পটল বিক্রি করতেন তাহলে তাকে খুন হতে হতো না। তার একটাই দোষ সে বুদ্ধিজীবী। সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগে আয়োজিত শোকসভায় এসব কথা বলেন অধ্যাপক এ এফ এম রেজাউল করিমের স্ত্রী হোসনে আরা। এ শোকসভায় বিভাগের তিন শতাধিক শিক্ষক-শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

ড. রেজাউলের স্ত্রী বলেন, ‘আমি ভয় পাচ্ছি, যে দেশে সাগর-রুনি হত্যার বিচার হয়না সে দেশে নিরীহ সিদ্দিকীর বিচার হবে কিনা? আপনি যদি শক্তিশালী প্রধানমন্ত্রী হয়ে থাকেন তবে আমার স্বামী হত্যাকারীদের খুঁজে বের করে বিচার করে দেখান। দেশের অগ্রগতি কতটুকু হয়েছে তার প্রমাণ হয়ে যাক।’ সভায় কান্না জড়িত কণ্ঠে অধ্যাপকের স্ত্রী বলেন, বিভিন্ন গণমাধ্যমে শুধু গানের স্কুলের কথাই এসেছে। তিনি তো সেখানে শুধু গান-বাজনা করতেন না, তিনি সে স্কুলের শিক্ষার্থীদের ক্রিকেট খেলার সরঞ্জাম কিনে দিতেন। এখন এটা যদি অপরাধ হয় তাহলে সব ক্রিকেট প্রেমীদের হত্যা করা উচিত। আর তিনি স্কুল, মাদ্রাসা গরীব, দুঃখী সবার পাশেই দাঁড়াতেন।

শোকসভায় বিভাগের শিক্ষক মুহাম্মদ তারিক-উল-ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান, অধ্যাপক রেজাউল করিম সিদ্দিকীর মেয়ে রিজওয়ানা হাসিন সতভী, ছেলে রিয়াসাত ইমতিয়াজ সৌরভ প্রমুখ। এসময় বিভাগের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরাও বক্তব্য দেন।

অধ্যাপক রেজাউলের মেয়ে রিজওয়ানা হাসিন সতভী বলেন, আমার আব্বু যে সংস্কৃতিমনা ছিলেন না তা আপনারা খুব ভালো করেই জানেন। দাড়িওয়ালা মানেই বিএনপি আর মুক্তমনা মানেই আওয়ামীলীগ; কেন? একজন দাড়িওয়ালা কি বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বিশ্বাস করতে পারেন না? একটু কবিতা আবৃত্তি, গান-বাজনা, সেতারা বাজালেই আমরা মনে করি লোকটা খুব খারাপ, লোকটা ভালো না, লোকটা নাস্তিকÑএই মিথ্যা মানুষের সৃষ্টি। এটা ভুল, এ ভুল আমাদেরকেই ভাঙতে হবে।

সতভী বলেন, অনেক গণমাধ্যমে ব্লগারদের কথা এসেছে। আমার আব্বু ফেসবুক ভালোমতো বোঝেন না। তিনি ব্লগার ছিলেনÑএটা মিথ্যা। তিনি সৃষ্টিকর্তাকে বিশ্বাস করতেন, কিন্তু যারা মনে করেন সৃষ্টিকর্তাকে বিশ্বাস করার জন্য কিছু কাজ করতে হয় যা তিনি করেন নি তাদের দৃষ্টিতে আব্বু নাস্তিক।

শোকসভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন বলেন, ‘একজন শিক্ষার্থীকে প্রকৃত মানুষ হিসেবে গড়ে তোলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা। আর তিনি এরকম একজন শিক্ষক ছিলেন। এ হত্যার ইস্যু শুধু ইংরেজি বিভাগের না পুরো বিশ্ববিদ্যালয়ের ইস্যু। তাই ৩৪ হাজার শিক্ষার্থীদের সাথে কণ্ঠ মিলিয়ে বলতে চাই, তার হত্যার বিচার চাই, তার আত্মার শান্তি চাই।’ প্রসঙ্গত, গত শনিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রাজশাহী নগরীর শালবাগান এলাকায় নিজ বাসার কিছু সামনে দূর্বৃত্তদের হামলায় নিহত হন অধ্যাপক রেজাউল করিম সিদ্দিকী। এ হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে শনিবার থেকেই বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করে আসছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জি.এ.মিল্টন, রাবি প্রতিনিধি #

গাউছুল আজম মিল্টন শহীদ হবিবুর রহমান হল, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী - ৬২০৫ ০১৭৬৩-২৩৭৭৭৬

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com