আজ বৃহস্পতিবার, ৬ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং, ২৮শে জিলহজ্জ, ১৪৩৮ হিজরী, শরৎকাল, সময়ঃ রাত ১২:১৯ মিনিট | Bangla Font Converter | লাইভ ক্রিকেট

প্রকাশিত সংবাদে জাককানইবি সাবেক উপাচার্যের প্রতিবাদ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ময়মনসিংহের ত্রিশালে অবস্থিত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের  উপাচার্য মোহীত উল আলমের সফল ভাবে চার বছর দায়িত্ব পালন শেষে ক্যাম্পাস থেকে চলে যাওয়ার এক দিনের মাঝে ভিসির বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে অনলাইন সংবাদ মাধ্যমে সংবাদ পরিবেশন করা হয়। সদ্য বিদায়ী সাবেক উপাচার্য মোহীত উল আলম ফেইসবুকে একটি স্ট্যাটাস এর মাধ্যমের প্রচারিত সংবাদ গুলোর তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করেন।

সাবেক উপাচার্য মোহীত উল আলম জানান,   রিপোর্টটি নিছক আমাকে অপমান করার জন্য রচিত, যার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কিছুই সঠিক নয়। প্রথমত বলে নিই, আমার উপাচার্য থাকাকালীন সময়ে আমি ৫ কোটি নয়, ৫ পয়সাও কখনো কারো কাছ থেকে অনৈতিকভাবে বা বেআইনিভাবে গ্রহণ করিনি। একেবারে নিষ্পাপ মন নিয়ে কাজ করে গেছি। আমার আমলে বিশ্ববিদ্যালয় একদিনের জন্যও অনাকাঙ্ক্ষিত কারণে বন্ধ থাকেনি। তার চেয়েও বড় কথা কোন ছাত্র সংঘর্ষ হয়নি যাতে কোন মায়ের কোল খালি হতে পারে। কোন জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠান কখনো মিস যায় নি। সকল ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠূভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এবং কোথাও ব্যত্যয় ঘটলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নেয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ১১ বছরের জীবনে প্রথম সমাবর্তন অত্যন্ত সুষ্ঠূভাবে সমাপন হয়, যেখানে সভাপতিত্ব করেছিলেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি স্বয়ং। একটা ২৫০ কোটি টাকার প্রকল্পের কাজ চলছে, আরেকটা ৪৮০ কোটি টাকার প্রকল্প পরিকল্পনা কমিশনে চূড়ান্ত পর্যায়ে আছে।

মাস্টার রোলের ব্যাপাররে সাবেক ভিসি জানান, মাস্টার রোলের একটা বোর্ড সিন্ডিকেইট কর্তৃক নির্ধারিত হয়। কিন্তু ইউজিসির নিয়মে আছে তাঁদের পূর্বানুমতি ছাড়া মাস্টার রোল নিয়োগ দেয়া যাবে না। এখানে বলে রাখি আমার ওপর সবসময় বিভিন্ন মহল থেকে মাস্টার রোলে লোক নিয়োগ দেবার চাপ ছিল।  বার্ষিক বাজেটেও সরকার/ইউজিসি মাস্টার রোলের খাতে কিছু টাকা দিয়ে থাকেন। কিন্তু জাককানইবিতে আমরা কখনো মাস্টার রোলে লোক নিয়োগের ক্ষেত্রে নিয়ম বহির্ভুত লোক নিয়োগ দিইনি, বোর্ড বসিয়ে নিয়োগ দেয়া হয়েছে বিধায় সরকারের অডিট এবং ইউজিসির এ ব্যাপারে কোন আপত্তি কখনো আসেনি।

আর শেষ কার্যদিবসের যে লোক নিয়োগের কথা বলা হয়েছে সেটা পরিস্থিতির ভুল ব্যাখ্যা থেকে এসেছে। আগেই বলেছি, ইউজিসির পূর্বানুমোদন ছাড়া মাস্টার রোলের বোর্ড বসানো যায় না। গত ৫ তারিখের সিন্ডিকেইটে মাস্টার রোলের বোর্ডটি পুনরগঠিত হয়। কিন্তু আমার সময় শেষ হয়ে আসাতে ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এবং আমি পরামর্শ করে ঠিক করি যে ইউজিসির নিয়ম ভাঙ্গা যাবে না, এবং বোর্ডও বসানো যাবে না। বোর্ড বসানোর আগে ইউজিসির পূর্বানুমোদন লাগবে। এবং এ মর্মে একটি চিঠি ইউজিসিকে লিখতে আমি রেজিস্ট্রারকে নির্দেশ দিয়েছি। যাঁরা শুরু থেকে আমার বিরুদ্ধে খেয়ে-না-খেয়ে লেগে আছেন, এবং আমি মেয়াদ শেষ করার পরও লেগে আছেন এবং বিভিন্ন্ভাবে আমার মান-মর্যাদা ক্ষুণ্ণ করার নিরন্তর প্রচেষ্টায় আছেন, তাঁদের কাছে বিনয়ের সঙ্গে আমার একটি ক্ষুদ্র প্রস্তাব দিতে চাই। দেশে আরো ৩৭টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় আছে। আপনারা সেগুলি ঘুরে আসুন এবং গত চার বছরে তাদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে কী উন্নতি হয়েছে এবং, কী শৃঙ্ক্ষলা ছিল সেটা দেখুন আর জাককানইবিতে গত চার বছরে কী কী হয়েছে সেটিও দেখুন। এই স্টাডিটা হওয়া দরকার। জাতি উপকৃত হবে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com