‘আইএস’ সন্দেহে একজনসহ রাবিতে আটক ৩

১,৫৪৪ বার পঠিত

জি.এ.মিল্টন, রাবি প্রতিনিধি : জঙ্গি সংগঠন ‘আইএস’-এর সাথে জড়িত সন্দেহে একজন এবং আচরণবিধি সন্দেহজনক হওয়ায় আরো দুজন শিক্ষার্থীকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। বৃহস্পতিবার বিকাল পৌনে চারটার দিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের টুকিটাকি চত্ত্বরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদেরকে পুলিশে হাতে তুলে দেয় তারা।

আটককৃতরা হলেন বিশ^বিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের জুবায়ের হোসেন, প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণবিজ্ঞান বিভাগের মাকসুদুল হক এবং ভূগোল ও পরিবেশ বিদ্যা বিভাগের আল তৌফিক। তারা তিনজনই ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী। এদের মধ্যে জুবায়ের হোসেন আইএস-এর পোস্টগুলো তার ভালো লাগে বলে সাংবাদিকদের সামনে স্বীকারোক্তিও দিয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের টুকিটাকি চত্ত্বরে জুবায়ের হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে বিশ^বিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এসময় সে স্বীকার করে আইএস-এর ফেসবুক পেজে তারা যা শেয়ার করে তা তার (জুবায়ের) ভালো লাগে। তার ফোন থেকে তথ্য নিয়ে পরে ডেকে নিয়ে আসা হয় মাকসুদুল হককে। আর মুখে দাঁড়ি থাকা এবং এ ঘটনা দেখে দ্রুত পায়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করতে দেখে সন্দেহের বশবর্তী হয়ে আল তৌফিককেও জিজ্ঞাসাবাদ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। পরে বিকাল পৌনে চারটার দিকে তাদেরকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়।

জিজ্ঞাসাবাদের সময় সাংবাদিকদের সামনে জুবায়ের হোসেন বলেন, ‘তারা (আইএস) যে কাজগুলো করে সেগুলো ঠিক না বেঠিক তা বোঝার জন্যে আমি ফেসবুকে তাদের পোস্টগুলো পড়তাম। কোরআন হাদিস থেকে সেখানে লেখা থাকতো, জিহাদ সম্পর্কেও লেখা থাকতো। তাদের লেখা ভালো লাগে। তাদের কার্যক্রম নিয়ে মওলানাদের সাথে কথাও বলতাম। এসব বিষয় নিয়ে আমি কনফিউজড। কিন্তু আমি তাদের সাথে যুক্ত হইনি।’

এসময় তার ফোন থেকেই তার ফেসবুক প্রোফাইল ‘মধ্যরাতের অশ্বারোহী’-তে গিয়ে বিভিন্ন পোস্ট এবং তার ফোনে আইএস-এর বিভিন্ন বিষয় ও বিভিন্ন যুদ্ধের ভিডিও পাওয়া যায়। এমন সময় তার ম্যাসেঞ্জারে বার্তা পাঠায় ‘শেষ স্টেশন কবরস্থান’ নামের আইডির মালিক মাকসুদুল হক। সেখানে উল্লেখ করে, ছাত্রলীগ তাকে কিছু করেছে কিনা। পরে বিনোদপুর থেকে তাকেও তুলে নিয়ে আসে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, ‘গত কয়েকদিন ধরেই ফেসবুকে মধ্যরাতের অশ্বারোহী আইডিকে খেয়াল করছিলো আমাদের নেতাকর্মীরা। পরে বৃহস্পতিবার তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার সময় জঙ্গি সম্পৃক্ততার কিছু প্রমাণ আমরা পাই। আর তার সহযোগী হিসেবে মাকসুদুল হক এবং জঙ্গিবাদে জড়িত থাকতে পারে এমন সন্দেহে আল তৌফিককে পুলিশে দেয়া হয়েছে।’

এ বিষয়ে মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির বলেন, ‘জঙ্গি সন্দেহে তিনজনকে পুলিশে দিয়েছে ছাত্রলীগ। তাদেরকে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

জি.এ.মিল্টন, রাবি প্রতিনিধি #

গাউছুল আজম মিল্টন শহীদ হবিবুর রহমান হল, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী - ৬২০৫ ০১৭৬৩-২৩৭৭৭৬

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com