ঢাবিতে “শুদ্ধ বাংলা চর্চার বর্তমান অবস্থা ও আমাদের করণীয়” শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

২০৩ বার পঠিত

ঢাবি করেসপনডেন্টঃ ঢাবিতে চেতনা পরিষদের-চেতনায় বাংলাদেশ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাস্কের যৌথ আয়োজনে বংলাভাষা ও সংস্কৃতির বিকৃতি রোধে আমরা” শীর্ষক মানববন্ধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৯ ফেব্রুয়ারী বিকালে বাংলা একাডেমির সামনে মানববন্ধন শেষে সন্ধ্যায় চেতনা পরিষদের সভাপতি জাহিদ সোহেলের সভাপতিত্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্রের শহিদ মুনির চৌধুরী অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পেট্রোবাংলার সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোঃ হোসেন মনসুর ও প্রধান আলোচক ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ও চিন্তাবিদ অধ্যাপক ড. আবুল কাসেম ফজলুল হক।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই নিউজের সম্পাদক আলী নিয়ামত,বীরমুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট আহমেদ উল্লাহ ভুইয়া,এডভোকেট মোশাররফ হোসেনসহ অন্যোন্য নেতৃবৃন্দ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. মোঃ হোসেন মনসুর বলেন,জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা বাংলাদেশ পেয়েছি,বাংলাভাষাকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে পেয়েছি। ভাষাআন্দোলন ও মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে আমাদের বংলাভাষা ও সংস্কৃতির বিকৃতি রোধে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আজকে বংলাভাষা ও সংস্কৃতির বিকৃতি রোধে যে আলোচনা হলো ভবিষ্যতে বাংলাভাষা ও সংস্কৃতিকে রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে বলে বিশ্বাস করি।

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে চেতনা বিশিষ্ট চিন্তাবিদ অধ্যাপক ড. আবুল কাসেম ফজলুল হক বলেন,আমাদেরকে এগিয়ে যেতে হলে এই অঞ্চলের সঠিক ইতিহাস জানতে হবে,আমাদের পড়াশুনা করতে হবে।তাহলেই আমরা বুঝতে পারবো আমাদের করণীয় সম্পর্কে।ভাষা আন্দোলনের প্রথম সংগঠন তমুদ্দুন মজলিশ খুবই জনপ্রিয় পরর্তীকালে তমুদ্দুন মজলিশও জোটগত রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েছিলো।ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিয়েই আমাদের বাংলা ও সংস্কৃতিকে রক্ষা করতে হবে।শুদ্ধ বাংলা ভাষা চর্চার প্রসারের ক্ষেত্রে আমাদের সবাইকে একনিষ্ঠভাবে কাজ করতে হবে। নাসিরনগর,গাইবান্ধাসহ বিভিন্ন জায়গায় ধর্মের নামে যে সহিংসতা হয়েছে তা কোন ধর্মের মৌলিক শিক্ষার সাথে সংহতিপূর্ণ নয়,এগুলো সন্ত্রাসবাদী ধারা।কাজেই,আমাদের দেশ ভাষা ও সংস্কৃতিকে এগিয়ে নিতে ইতিহাস চর্চার বিকল্প নেই।

অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক এস এম নাহিদ হাসান নয়নের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন চেতনা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ড. মোঃ আলমগীর হোসেন। আলোচনা শেষে মোঃ দুলাল মিয়াকে সভাপতি ও এস এম নাহিদ হাসান নয়নকে সাধারণ সম্পাদক করে চেতনা পরিষদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার ৭ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয় ও নতুন কমিটিকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন,সহ-সভাপতি মোঃ মুহিব,যুগ্নসাধারণ সম্পাদক মোসা. নাছরিন জেবিন,সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ মোঃ জিদান,মোঃ সিরাজ মিয়া,মোঃ নাসিম প্রমূখ।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com