আজ শুক্রবার, ৭ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং, ১লা মুহাররম, ১৪৩৯ হিজরী, শরৎকাল, সময়ঃ দুপুর ১২:২৮ মিনিট | Bangla Font Converter | লাইভ ক্রিকেট

কক্ষ বরাদ্দ নিয়ে রাবির পরিসংখ্যান বিভাগের অসন্তোষ

জি.এ.মিল্টন, রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) তৃতীয় বিজ্ঞান ভবনে নবনির্মিত ৪০টি কক্ষ বরাদ্দ নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগ। তাদের দাবি বিভাগে শিক্ষকদের সংখ্যা বেশি হওয়ায় এক চেম্বারে আমাদের অনেক শিক্ষককে বসতে হয়। কিন্তু অন্য বিভাগে অনেক শিক্ষক জুনিয়র হয়েও একটি চেম্বারে একজন শিক্ষক বসতে পারে। অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন মনে করে প্রতিটি বিভাগের কথা বিবেচনা করেই তারা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, তৃতীয় বিজ্ঞান ভবনে বর্তমানে মোট ৬টি বিভাগ আছে। তারা হলেন উদ্ভিদ বিজ্ঞান, প্রাণী বিদ্যা, পরিসংখ্যান, ভূগোল, জেনেটিকস ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি, পপুলেশন সায়েন্স এন্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট বিভাগ। দক্ষিণ দিকের নিচ তলায় নব-নির্মিত পূর্ব দিকের চারটি কক্ষ উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগকে, উত্তর দিকে দ্বিতীয় তলায় নব-নির্মিত পশ্চিম দিকের চারটি কক্ষ প্রাণীবিদ্যা বিভাগকে, উত্তর দিকের দ্বিতীয় তলায় নব-নির্মিত কক্ষের পূর্ব দিকের একটি এবং নিচ তলার পূর্ব দিকের তিনটি কক্ষ পরিসংখ্যান বিভাগকে, উত্তরদিকে নিচ তলার পশ্চিম দিকে নব-নির্মিত দুইটি, দক্ষিণ দিকে নিচ তলায় পশ্চিমের একটি এবং দক্ষিণ দিকে দ্বিতীয় তলায় পাঁচটি মোট আটটি রুম ভূগোল বিভাগকে, উত্তর দিকে তৃতীয় ও চতুর্থ তলায় নব-নির্মিত দশটি কক্ষ জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়েটেকনোলজি বিভাগকে এবং দক্ষিণ দিকে তৃতীয় ও চতুর্থ তলায় নব-নির্মিত দশটি কক্ষ পপুলেশন সায়েন্স এন্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট বিভাগকে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে পরিসংখ্যান বিভাগের সভাপতি প্রফেসর আইয়ুব আলী বলেন, আমরা এই ভবনের মধ্যে সিনিয়র বিভাগ। আমাদেরকে মাত্র চারটি রুম দেয়া হয়েছে তবে সেগুলোর তিনটিই নিচ তলায়। আমাদের বিভাগে শিক্ষকরা এক চেম্বারেই অনেক শিক্ষক বসে কিন্ত অন্য বিভাগে জুনিয়র শিক্ষক হয়েও একজন শিক্ষক একটি চেম্বারে বসে। তিনি আরও বলেন আমাদেরকে তৃতীয় তলায় রুম না দিয়ে কেন নিচ তলায় দেয়া হয়েছে?

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর চৌধুরী সারওয়ার জাহান বলেন, ‘আমরা প্রতিটা বিভাগকে যথেষ্ট বিবেচনা করেছি। তাদের (পরিসংখ্যান বিভাগের) আগে থেকেই অনেক রুম ছিল আবার তাদের নতুন করে চারটি রুম বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। কিন্তু নতুন রুম বরাদ্দ দেয়ার পর পরিসংখ্যান বিভাগের মতো ভূগোল, জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ও পপুলেশন সায়েন্স বিভাগের ততো বর্গফুট জায়গা আমরা দিতে পারিনি। তারাও তো বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক। তাদেরও সমান অধিকার আছে। কক্ষ বরাদ্দের ক্ষেত্রে সবদিক বিবেচনা করেই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।’

পরিসংখ্যান বিভাগকে নিচ তলায় রুম বরাদ্দ দেয়ার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এগুলো বিভাগের অভ্যন্তরীন বিষয়। তারা যদি তৃতীয় তলায় বরাদ্দ দেয়া জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সাথে কথা বলে বিনিময় করে নিতো তাহলে এর সমাধান হয়ে যেতো।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর মুহম্মদ মিজানউদ্দিন বলেন, ‘এগুলো বিভাগের অভ্যন্তরীন বিষয়। আর কক্ষ বরাদ্দ বিষয়টি উপ-উপাচার্যের নেতৃত্বে হয়েছে। এ বিষয়ে আমার কিছু জানা নেই।’#

 

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
উপরে
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com