শেষ হয়েছে বইমেলা, নতুন বই ৩৬৪৬ টি; বিক্রি হয়েছে ৬৫ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা

ইয়াসিন মাহমুদ আরাফাত # শেষ হয়ে গেল বাঙালির প্রাণের মেলা অমর একুশে গ্রন্থমেলা। প্রতিবছর এই ফেব্রুয়ারি মাসের জন্য সবাই অপেক্ষা করে। তাই মেলাকে কেন্দ্র করে নতুন বইয়ের সমাগম ঘটে। মেলা লেখক ও পাঠকের আড্ডায় পরিণত হয়। বাংলা একাডেমী কর্তৃপক্ষ আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মেলনের আয়োজন করে। জেলা শহরের লেখকরা মেলাকে কেন্দ্র করেই মিলিত হয় প্রিয় লেখকের সাথে। মেলার শেষ কয়েকটা দিনে মানুষের ঢল নামে বাংলা একাডেমি আর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। দুপুরের পর থেকেই মনে হচ্ছিল ছুটির বিশেষ কোনো দিনের মেলার আয়োজন। সন্ধ্যার পর শাহবাগ পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে মেলার আবহ।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে বইপ্রেমীদের দীর্ঘ লাইন অতিক্রম করে প্রবেশ করতে হয়েছে। একই পরিস্থিতি ছিল বাংলা একাডেমির প্রবেশ গেটেও। দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে প্রবেশ করলেও চোখে মুখে ক্লান্তির চাপ ছিল না মানুষের মাঝে। শেষের দিন মেলায় বিক্রিও হয়েছে বেশ। দর্শনার্থীর কম-বেশি সবাই বই কিনেছেন এই দিনে। মেলায় আসা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীরা বলেন, মেলায় আজ শেষ দিন। এর আগেও মেলায় বেশ কয়েকবার এসেছি, অনেক বই কিনেছি। আজ শেষ দিনের মতো মেলা প্রাঙ্গণে এসেছি, পছন্দের কয়েকটি বই কিনতে ও ঘুরতে।

কয়েকজন প্রকাশকের সাথে কথা বলে জানা গেছে, শেষের দিনে নাকি সর্বাধিক বই বিক্রি হয়েছে। তারা বলেন, ভালোর মধ্য দিয়েই শুরু ও শেষ হলো এবারের মেলা। শেষ দিনেও উপচে পড়া ভিড় ছিল। শেষ দিনে লেখক পাঠকের মিলন মেলায় পরিনত হয়েছে। বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান বলেন, শুরু থেকেই প্রাণের আবহ ছিল। শেষ দিনেও প্রচণ্ড ভিড় আমাদের আরও উৎসাহিত করেছে। কোনো অঘটন ছাড়া মেলা শেষ করতে পারায় সবাইকে সাধুবাদ জানাই।

এবারের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় মোট বই বিক্রি হয়েছে ৬৫ কোটি ৪০ লাখ টাকার। বিক্রিতে অতীতের সকল রেকর্ড অতিক্রম করেছে এবারের বইমেলা। গতবার মোট বিক্রি ছিল ৪২ কোটি ৫০ লাখ টাকা। বইমেলা আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব ড. জালাল আহমেদের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়। অন্যবারের মতো বইমেলায় বাংলা একাডেমির বই ৩০ শতাংশ এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের বই ২৫ শতাংশ কমিশনে বিক্রি হয়েছে। গত ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাংলা একাডেমি মোট ১ কোটি ৫৪ লাখ ৫৪ হাজার ৩০৬ টাকার বই বিক্রি করেছে। ২০১৬ সালের তুলনায় এই বিক্রি ২২ লাখ টাকা বেশি।

জালাল আহমেদ বলেন, গতবার পুরো মেলায় ৪০ কোটি ৫০ লাখ টাকার বই বিক্রি হয়েছিল। এবার ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্টল মালিকদের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্য এবং আজকের সম্ভাব্য বিক্রি যুক্ত করলে বলা যায় যে, এবার বইমেলায় মোট ৬৫ কোটি ৪০ লাখ টাকার বই বিক্রি হয়েছে। এবারের মেলায় ৩৬৪৬টি নতুন বই প্রকাশিত হয়েছে। এর মধ্যে ৮৫৮টি মানসম্পন্ন বই নির্ধারণ করেছে কর্তৃপক্ষ। গতবার বই প্রকাশ হয়েছিল মোট ৩৪৪৪টি। মেলা কমিটির সদস্য সচিব ড. জালাল আহমেদের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

তিনি বলেন, এটা নিশ্চিত যে এর চেয়ে বেশিসংখ্যক বই বইমেলায় প্রকাশিত হয়েছে। অনেক প্রকাশক তাদের নতুন সব বইয়ের তথ্য না দেয়ায় প্রকৃতপক্ষে কত নতুন বই এসেছে এ তথ্য পাওয়া যায় না। তবে এবার নতুন বইয়ের স্টলে নতুন বই প্রদর্শনের ব্যবস্থা থাকায় প্রকাশকদের পক্ষ থেকে তাদের ভালো ও মানসম্মত বই তথ্যকেন্দ্রে বেশি দিয়েছেন। এছাড়া এবার আমরা বাংলা একাডেমির একটি কমিটিকে দিয়ে প্রাপ্ত সব বইয়ের মান প্রাথমিকভাবে নিরূপণের চেষ্টা করেছি।

তিনি বলেন, নতুন ৩৬৪৬টি বইয়ের মধ্যে ৮৫৮টি মানসম্পন্ন। এটি নিঃসন্দেহে আশার কথা। এক বছরের গ্রন্থমেলাকে কেন্দ্র করে ৮৫৮টি মানসম্পন্ন বইয়ের প্রকাশ সহজ কথা নয়। এবার মোড়ক উন্মোচনের জন্য সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ‘মোড়ক উন্মোচন’ মঞ্চ স্থাপন করা হয়। প্রত্যেক বইয়ের মোড়ক উন্মোচনের জন্য এবার ১০০ টাকা রেজিস্ট্রেশন ফি ধার্য করা হয়। এবার মোট ৮৬৭টি নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে।

ফেসবুক থেকে মতামত দিন
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
১৬১ বার পঠিত
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com