,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

শব্দযানে বিশ্বভ্রমণ ।। কালের লিখন

লাইক এবং শেয়ার করুন

তিউনিসিয়া

তিউনিসিয়া, তুমি আমার মনন মুগ্ধ প্রিয়া।
অ্যাটলাস পর্বতমালা চলে গেছে তোমার মধ্য দিয়া;
উত্তরে তোমার সমভূমি, দক্ষিণে শুষ্কতার খেলা।
অর্ধেক তোমার মরুভূমি, বাকীটা প্রাণের দোলা।

মা-হারা সাহারা তোমার পরমপ্রেম পেয়ে!
মুগ্ধ রৌদ্দ্রোজ্জ্বল আবহাওয়া, বেলাভূমিতে নেয়ে।
স্বাধীনতা প্রেম বুকে ধরে- হাবিব বুর্গিবা গুণী;
হয়েছো তুমি উত্তর আফ্রিকার ধ্রুব নয়নের মণি।

ফিনিসীয় আর কার্থেজীয়, রোমান জাতি,
আদি আরব, উসমানীয় তুর্কি জ্বালে জ্যোতি।
বিচিত্র ভূ-প্রকৃতি সুরক্ষিত প্রাচীন রোমান প্রত্ন;
তিউনিস তোমার রাজধানী, মুসলিমদের রত্ন।

বাংলায় তুমি শৈলান্তরীপ, রাত কাটাবার স্থান;
মাটির কবির এ কিছুটা বৈশ্বিক প্রতিদান।
যদি কোনোদিন দেখা হয়ে যায় সন্ধ্যা বেলা!
তিউনিসিয়া হেসে দিও; মনের ভাষা খোলা।

একপাশে বালি একপাশে জল, মুগ্ধতায় থামি;
ভূমধ্যসাগরের বাধ্য কন্যা তিউনিসিয়া তুমি!

চিলি

তুমি লম্বা ফিতার রূপসী কন্যা চিলি!
ভালোবাসার সীমানা নেই, ভালোবেসেই বলি।
ঝঞ্ঝাপীড়িত হিমবাহে তুমি কাঁপছ যখন একা;
মাটির কবি সাথে আছে, ওয়াইন বোতল ফাঁকা।

অঙ্গব্যাপী শিল্প তোমার, সবজিলতা-ফলমূল;
সৌন্দর্য ব্যাখ্যাহীন, মনের কোণে হুলস্থূল।
সুউচ্চ খাড়া ঢাল, অঙ্গজুড়ে মধ্যবর্তী খাঁড়ি,
প্রেমিক তোমার বরফঢাকা, সান্তিয়াগো বাড়ি।

মুখে তোমার স্পেনীয় ভাষা, মনের ভাষা মনে!
শিল্প কৃষি তামায় তুমি, আছো শৈল্পিক খননে।
রোমান ক্যাথলিক ধর্ম তোমার, ঋদ্ধ সন্তরণ;
দেখা হলে পর’ ঘোমটা খুলো, বরফ আস্তরণ।

মার্তা কলভিন বন্ধু আমার, প্রমিলা ভাস্কর!
শীত না এলেও চিলি তোমার শীতল কণ্ঠস্বর।

মিশর

পিরামিডের সুউচ্চ বুক আজও আকাশগামী!
মিষ্ট মিশর, প্রাণের দোসর তোমার কাছে থামি।
গ্রীক-রোমান, খ্রিস্টান ও প্রাচীন আদিবাসী,
আরবিভাষী মুসলিম আছে মিলিত প্রতিবেশী।

মরুময় তোমার তপ্ত বুকে শক্ত সময় খেলে,
উটের পিঠে রাজার বেশে সাধারণও দোলে।
সাদ জঘলুল তোমার চোখে দেখেনি তো ভুল;
সালাদিনের ঈগল উড়ে, জলপদ্ম জাতীয়ফুল।

আলেকজান্দ্রিয়ার বাতিঘর চোখের কোণে ধরে,
ভ্যালী অফ দ্যা কিংস, সুয়েজ খালে সময় ঘুরে।
নীল নদে তখন রক্তিম চাঁদ, বাঁধভাঙা আবেগ;
কায়রো গিয়ে পায়রা উড়াই, ভাবনায় ধরে মেঘ।

নীল নদের উপত্যকায় স্থিতু প্রাচীন মিশর!
প্রাচীন সভ্যতার লীলাভূমি তুমি; ঋদ্ধ দোসর।

ফ্রান্স

তোমার বুকে দাগ কেটেছে প্রথম বিশ্বযুদ্ধ!
তাই কী তুমি দিনে দিনে হয়েছ এতটা ঋদ্ধ?
বিশ্বকে প্রথম বিপ্লবের মধ্যে দিয়েছ গণতন্ত্র!
সংস্কারবাদী বিপ্লবীরা জপে আজও সে মন্ত্র।

জগদ্বিখ্যাত; শিল্পকলা, সাহিত্য ও বিজ্ঞান,
পাশ্চাত্য সংস্কৃতি এখনো তোমার মূল তান।
উত্তরে নিম্নভূমি উপকূলীয়, বিস্তৃত সমভূমি,
পূর্বে উপত্যকার সারি, দক্ষিণে পাহাড় দামি।

আল্পস পর্বতমালার বরফে ঢাকা ভেজা রুমাল,
সেইন নদীতে ধ্যান করে জল, উড়ে মেঘের পাল।
মন্ট সেন্ট-মিচেল রাত্রিবেলা স্বর্গীয় রূপ ধরে,
ভার্সাইলের দূর্গে এখনো লুই এর ঘ্রাণ উড়ে।

সুশিক্ষিত মানব সন্তান তোমার মূল পাওয়ার,
মাথা উঁচু করে দাঁড়ানো তাই আইফেল টাওয়ার।
দুই হাজার বছরের ঐতিহ্য বুকে প্যারিস শহর-
পালে গার্নিয়ে, ম্যুজে দর্সে, গ্রঁদ আর্শ, ল্যুভ জাদুঘর।

মোনালিসা হাসে বিষাদের হাসি পরাণ পোড়ে!
আমারও আছে ফরাসী প্রেমিকা, অন্তপুরে।

ডেনমার্ক

বর্ষা, কুয়াশা, মেঘলা আকাশ উপকূলীয় হাওয়া!
প্রকৃতিকন্যার অপরূপ সাজ, মনের মতো পাওয়া।
মৃদু জলবায়ু আয়ুর রেখা করেনি কখনো ডার্ক!
ঢেউ খেলানো পাহাড়ের সারি, দ্বীপপুঞ্জ ডেনমার্ক।

ভাইকিংয়েরা নেই যদিও আছে তাদের ছায়া,
তিভোলি গার্ডেনে বিকেল কাটে, সন্ধ্যা ধরে মায়া।
ছয়শ বছরের পুরনো, কোপেনহেগেন রাজধানী,
প্রতিটি দ্বীপ রাতের বেলা এক একজন রাজরাণী।

ক্রিস্টিয়ান আণ্ডারসনের রূপকথার ঋদ্ধ ঝুলি!
জেলান্ড দ্বীপের সৌন্দর্যে মুগ্ধ, অনুভবের চোরাবালি।
বিস্তৃত সবুজ চারণভূমি, সাজানো গোছানো খামার।
আছে সমুদ্রতট, চিত্রপট, বিরতি কোথায় থামার?

যদি থেমে যাই, তোমাকে পাই দৃষ্টি সীমায় একা!
ওয়াডেন সী ন্যাশনাল পার্কে, চাই প্রাচীন প্রিয়ার দেখা।

কাব্যগ্রন্থ : শব্দযানে বিশ্বভ্রমণ (অপ্রকাশিত)
(১০০ দেশ নিয়ে ১০০ কবিতা)


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ