,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

মাহমুদ নোমান-এর একগুচ্ছ কবিতা

লাইক এবং শেয়ার করুন

একতরফা প্রেম

ছায়া হাটছে টর্চের আলোর আগে,
চাঁদও কি বেশরম
ঘষাঘষি করছে বাঁশপাতা;
বাদুড় লটকে গেছে
জ্যাম্পারের ভিতরে…
দৌড়তে দৌড়তে
তোমার কাছে এসে
যে ঝুঁকলাম,
তুমি চোখ উল্টে ফেললে!

বোতলবন্দী জিনের কবিতা

দুঃখ পেলে পাখির মতো উড়ে যাবো
দূরের বনে।সংগোপনে বটের ছায়ায়
জিরিয়ে নেবো, হ্রদের জলে স্নান সেরে।
চিংড়ি ঘেরে,জলবিরোধী দু’চোখ জ্ব’লে
টর্চের আলোয়।জজবা হালে,কালো
জামের কলজে দোলে-নাগেশ্বরের
পদ্মা পাড়ে।ফেরি করে খেচর প্রাণী
বাঁশঝাড়ে।অন্ধকারে লাফিয়ে উঠে
ডেকে ডেকে ভেংচি মারে!

শীতের দুপুরে

উতরে উঠলো ভাতের ফেনা
চড়ুইছানা নাচছে কার্নিশে
বালুর চরে পুঁতে রাখা
শীতার্ত মন
শিমের মাচানে
নপুংসক বাতাসে বসতি।
বাল্যবিধবার বুকে
ফেরারি কৈতর গুঁতা মেরে
কাঁদায় জলঘাটে,
জল ছাড়া কেউ জানলো না!

অসুখ

বেণী দোলাতে দোলাতে
স্কুলফেরত বালিকা,
আমাকে ভাঙিয়ে
সুইংগাম চাবাতে চাবাতে
ঘরে ফিরলে মা বকলো
স্কুলের কার্ণিশে কি ভিমরুলের বাসা!
অথচ,কেউ বললোনা
তোমার ঘুম কম হয় কিনা
চরুটের মতো শুকিয়ে
কার নেশাদ্রব্য হয়ে গেলে।
কোন শঙ্খের হা-করা মুখে
তোমার সোনালি চর
ডুবছে আর ভাসছে..

মা ভাবতেন, তুমি কাল নাগিনী
নাচের মুদ্রা না শিখিয়ে
প্রতি কালী পুজোয় বলতো,
নাচ্ না,নাচ্ না!

মাদুলি

বিষেতে অঙ্গ জ্বলে রে….
দোঁহারে, বংশী বাজায়ো না
ঐ ঘরে ঢোকা নাজায়েজ;
কেনো টানো জোয়ানি তোড়ে
ভোরে, রজনীগন্ধা কালশিটে
তুলো নাকে আতর-গন্ধরাজ।
বিনা মেঘে বারিষা আসে
ভেসে যায় ধুলো, ছাই-
চিরকুট বাঁধা ভেলা
                ঐ অসীমে….
ভালবাসি,বানবাসি
মোরগ ডাকে
          মগডালে বসে
বরইতলার পশ্চিমে।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ