,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

রায়হান মুশফিক-এর একগুচ্ছ কবিতা

লাইক এবং শেয়ার করুন

“মায়ের কাছে”

শান্ত নদীর ধার ঘেসে সরু আঁকাবাকা পথ চলে গেছে উত্তরের দিকে।
সবে সন্ধ্যা হলো;
শাদা কাশফুল গুলো আবছা শাদার স্তুপ।

আকাশে সন্ধ্যা তারারা জ্বলতে শুরু করেছে,
আমি চলেছি বাড়ির পথে
মায়ের কাছে।
ইট পাথরের যান্ত্রিক শহর থেকে সাময়িক মুক্তি মিলেছে অামার।

প্রযুক্তির এই যুগে দুরালাপনীতে কথা হয় নিয়মিত;
তবু মা আমার প্রতিদিন কাশবনের সরু রাস্তায়
চেয়ে থাকে,
অভ্যাসটা মোবাইল ফোনেরও আগের কিনা!

মায়ের জন্য একটা দুধসাদা শাড়ি নিয়ে যাচ্ছি,
বাবা গত হয়েছেন মাস ছয়েক হলো।
এইতো গত বছরও মা রঙ্গিন শাড়ীটা দেখে কত্ত খুশি হয়েছিল।

চোখের কোণটা ভিজে উঠে
সন্ধ্যার ঝাপসা আলোয় কেউ দেখতে পায়না।
মায়ের কাছে পৌঁছে গেছি।

মা জড়িয়ে ধরেই বলে খোকা তুই কাঁদছিস কেনো?
মায়ের কাছে কিছুই লুকোতে পারিনা,
এবার সজোরে কেঁদে উঠি।

“নিষিদ্ধ ভ্রুণ”

সময়ের নিষ্ঠুরতার শিকার
বুনোফুল ঝরে পড়ে অবেলায়
শকুনের ঠোটে লেগে থাকে মড়ির জমাট রক্ত।
অভুক্ত শিশুগুলো অপুষ্টিতে ভোগে
ভুল সময়ে ভুলের মাঝে জন্ম ওদের।
নিষিদ্ধ ভালবাসার তিন চার মাস পার হয়
অপূর্ণ শিশুটির বড় দোষ ও গর্ভে জায়গা করে নিয়েছে কিছুদিন,
ভ্রুণ হত্যার খেলায় মেতে ওঠে ক্লিনিক আর ঐ সমস্ত বেজন্মা নারী পুরুষ গুলো।
ড্রেনের নোংরা পানির সাথে ভেসে যায় ভ্রুণ
বুনোফুলে গন্ধের মাতম হয়।
ঐসব ভ্রুণগলা পানির ঠায় হয় ময়লার স্তুপের তলায়,
উপরে খাবার খোজে রক্তমাখা শকুন।
সাময়িক জিত হয় ঐসব নষ্ট প্রেমিকের,
প্রেমিকা বোঝেনা মাতৃত্ব।

“নিঃশেষের বিষ দাও”

আর একটি বার তোমার চোখ তুলে তাকাও
আমি ক্ষত-বিক্ষত হই;
আর একটিবার
শুধু একটিবার তোমার চোখের বিষবাণ ছোড়ো আমাকে লক্ষ করে,
আমি চুর্ণ-বিচুর্ণ হয়ে যাই।

আমি আবারও শব্দ দূষণের কবলে পড়তে চাই;
আর একটিবার হাসির রেখা ফুটিয়ে তোলো তোমার নরম ঠোটে,
গালে,
মুখে,
কপোলে।

গল্প শোনাও
রুপকথার মায়াবতীর গল্প;
আমি আবারও ঘুমে নিমগ্ন হব
তোমার কোল হবে আমার বালিশ,
আমি আরো একবার
তুমি মায়াবতীর সাথে
রুপকথার রাজ্যে হারাব।

একটিবার দুচোখ তুলে অাকাশের দিকে তাকাও
আমি ভিজতে চাই;
তোমার চোখের টানে শীতল মেঘ
বৃষ্টি হয়ে ঝরুক,
আমি ভিজব শ্রাবণ জলে।

একটিবার তুমি আগেকার তুমি হও
আমি তোমার সাথে কালো পাথরের পিচ ঢালা পথে হাটব;
একবার
শুধু একবার আমার সঙ্গী হও বৃষ্টি স্নানের।

আরো একবার একবার করে
চোখে আনো প্রেম,
আনো আগুন,
আনো মায়া,
সর্বোপরি নিঃশেষের বিষ আনো;
আমি বারবার আত্মহত্যা করতে চাই তোমাতে।

“ফিরে এসো”

অভিযোগ নেই মিথ্যে ছলের আকুতিতে;
মায়া ছিল একদিন
যখন সবকিছু ছিল তোমার অনুকুল….
বাড়তি আবদার গুলো বাদই থাক
সেদিন তোমাকে দুর থেকেও পাইনি;
আজ প্রতিকূলে হারিয়ে সাড়া দিচ্ছ।
সাড়া শুধু সাড়া-ই
কাছে না আসার গল্পটা সেই পুরোনো,
অনুকূল অতীতের মত।
দোষটা ভাগ্যের দিয়ে এড়িয়ে যেতে চাও?
পারছ না।
প্রতিনিয়ত হারছ নিজের কাছে;
বিবেকের কাছে।
ওকূলের আঘাত সইতে পারছো না
না পারছি আমিও দেখতে তা,
ফিরে এসো
একূলে বাঁচো নিজের মত।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ