,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

রাকিবুল হায়দার-এর একগুচ্ছ কবিতা

লাইক এবং শেয়ার করুন

জাদুকর

ঐ গ্রামে আমাকে লোকে জাদুকর বলতো,
তোমাদের শহরে আমি ম্যাজিশিয়ান।
আমার এই কালো হ্যাট থেকে লালচে আদুরে বেড়াল,
সোনার প্রলেপ মাখানো শেকল বেরোতো,
আজকাল সেখান থেকে বেরিয়ে পড়ে-
সাদা খরগোশ, একশ মিটারের রিবন।
আমি জানি, বেড়ালের গলায় সোনালী শেকল যতটা মানায়,
খরগোশের গলায় গোলাপী রিবন ততটাই বেমানান।
এর চাইতে বরং ঐ রিবনের একটা টুকরো-
কোন ভদ্রমহিলার পালকগোঁজা হ্যাটে বেশ মানাতো।
ঐ গ্রামে চেনা গৃহবধূর যে হাততালি অর্কেষ্ট্রার মতো বেজে উঠতো,
এই শহরে সম্ভ্রান্ত ভারী দস্তানায় সে শব্দ দূরবর্তী সংকেত এর মতো বাজে।
গত একুশ শতাব্দী ধরে হৃদয়ে যে প্রেমিকা আমি বয়ে বেড়াই,
আমার এই বদলে যাওয়া তার কাছে গ্রহনযোগ্য নয়।
তার প্রেমের সংকেতে আমি হয়তো গ্রামেই ফিরে যাবো,
ম্যাজিশিয়ানের আলখাল্লা খুলে, শরীরে জড়াবো জাদুকরের চাদর,
আমার হাত সাফাইয়ের জাদুতে মন্ত্রমুগ্ধ হবে সেই চেনা গৃহবধূ,
হাততালিতে বেজে উঠবে কয়েকজোড়া কাঁচের চুড়ি,
আমি আবার পরিপূর্ন প্রেমিক হবো, তোমার হৃদয়ে।

মানুষ

কোন বর্ণ নয়, গোত্র নয়, কোন দেশ নয়, কোন ধর্ম নয়,
যদি কোনদিন শুধু মানুষ,
স্রেফ “মানুষ” হত্যার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াও,
আমাকে ডেকো সেই মিছিলে,
কথা দিচ্ছি, শ্লোগানে শ্লোগানে হেঁটে যাবো,
পেরিয়ে যাবো, ধর্ম-বর্ণ-গোত্র-দেশ নামক সব কাঁটাতার।

কথা ছিলো সংসার হবে

কথা ছিলো একটা বাবুই পাখির বাসাতেই–
দু’জনের হয়ে যাবে মাথা গোঁজবার ঠাঁই।
বাজার থেকে কিনে আনা কুঁচো চিংড়ির তরকারিতে,
তিনবেলা ডালভাতে মাখামাখি হয়ে যাবে।
কথা ছিলো, দুঃস্বপ্নে কারো ঘুম ভেঙ্গে গেলে,
চাঁদের আলোয় বারান্দায়, রাত জেগে গল্প হবে।
শেষরাতে কথা জড়িয়ে এলে, কেউ হয়তো কারো আগেই–
অন্য জনের কোলে হঠাৎ ঘুমিয়ে পড়বো।
কথা ছিলো, কোন এক বৈশাখে সাদা পাঞ্জাবি আর–
লালপেড়ে শাড়ির যৌথ রসায়ন, ঘুরিয়ে নেবে রিকশার চাকা।
সান্ধ্য আইন কাউকে হঠাৎ বাড়ি ফিরিয়ে নেবে না,
হাতে হাতে রেখে চলে যাওয়া যাবে, অনেকটা পথ।
কথা ছিলো, ভালোবেসে তপ্ত নিঃশ্বাস হবার,
রাতজাগা প্যাঁচার হৃদয়ছেঁড়া কোন দীর্ঘশ্বাস নয়।

তুমি থাকবেই

পারমিতা, অতটা গভীরে লুকিয়ে থেকেও,
তুমি হারাবে না কোথাও, এক স্ফটিকজলা জ্যোৎস্নার রাতে,
আমার অনুগত একদল ঢেউ এসে, তোমাকে ভিড়িয়ে দেবে–
আমার মনের এই বাদামি বালুতীরে।
তুমি সবুজ শঙ্খের ভেতর ঘুমিয়ে থেকো,
কাঁকড়ার দল হবে প্রহরী, আমার ঘুম ভাঙ্গার আগে যেনো–
কোন নোনাজল তোমায় না ছুঁতে পারে।
ভোরবেলা আমার ঘুম ভাঙ্গার পর,
তুমি এসে, আমার এই হাতে রেখো হাত,
এই বালুতটে, আমাদের পায়ের ছাপ রেখে যাবো,
তারপর একদিন, ক্লান্তিতে মিশে যাবো, মহাকালে!
দেখো, একশকোটি বছর পরে, ভালোবাসার ফসিলে,
লেখা রবে, তোমার-আমার, আমাদের নাম।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ