,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

রাত আখন্দ্ এর একগুচ্ছ কবিতা

লাইক এবং শেয়ার করুন

দৃশ্য এবঙ পাখিমুখ 

মাঝরাতে একা পাখি যে চোখের ঘুম ফেলে আকাশ ও অন্ধকারে উড়ে গেলো
তার যন্ত্রণায় আমি পড়ে থাকি কষ্ট পুয়ে সারারাত

নৈঃশব্দের অন্ধকার ক্ষয়ে গেলে মুছে যায় ছায়ার হুল্লোড়
তার ফিরে আশা-পথে পরিস্কার রোদ নামে
উড়ে যাওয়া দিকরেখা মুখরিত করে অন্য পাখিমুখ

দৃশ্যরা বৃক্ষাণু বীজ নিয়ে বুদ্বুদ রাতের চোখ খুলে বসে
পাখিদের পথ নেই, ও-পাখি হারায়নি মেঘের ভেতর
অথচ উড়ে যাবার ডানার পালক রঙে অথই পাথর।

মৃত্যু 

মৃত্যু, তুমি তো জেনেছো, জলপাই রঙের বাগান
হলুদ নরকে গেলে, তামাটে শিশির লেগে থাকা
চোখ, লুকে রাখে ঘ্রাণ; নিঃসঙ্গ মাছের
নীল জলের কাফনের মতো

মৃত্যু, তুমিতো জেনেছো, শীতল সমুদ্রে
জাহাজের জানালায় জটিল দূরত্ব।

সোনালি প্রহর 

ঘুম রাত্রির আকাশে কষ্টের জ্যোৎস্না পোড়াই,
সোনালি প্রহর
বসন্তবেলার নমুনা ঋতুতে পড়ে আছে একা,
নিঃসঙ্গ, পৃথিবীর এক নওগাঁ শহর।

জীবন ও সময় 

বর্তমান সময়ের
প্রতিটি মুহূর্তের মালা গেঁথেই জীবন।

জানো তো, কোনো মালাই চিরকাল ভেজা থাকে না।
সময়ের দাবীতে একদিন শুকিয়ে যাবেই
এবঙ পুরোনো হবেই; এই পুরোনোই তো অতীত।
এই অতীতের মালা দিয়ে বড়জোর
স্মৃতির ছবি আঁকা যায়।
জীবন?
একে সবাই নিজের মতো কোরে স্পর্শ করে;
ভালোবাসে
ঘৃণা করে
আশান্বিত কোরে রাখে যে-যার মতো।
সবকিছু সয়ে যায় জীবন,
এর বুকেই ক্ষয়ে যায় সময়।

জীবনটা
শুধু সময়ের
মালা-গাঁথা অদৃশ্য সুতো;
আর সময়—
সে-সুতোয় গাঁথা প্রতিটি মুহূর্তের ফুল।

নদী ও নোঙর

এই নদীর নিকটে সে প্রথম এলো।
তেপান্তরের বিধবা মেঘের মনের মতো
উৎকন্ঠার আঙুলে প্যাচানো একটি স্বপ্ন।

নোঙরের নিচে ছিলো কঙ্কালের বিষণ্ণ চুম্বন।
নিঃসঙ্গ নৌকা ও ছায়া, পড়ে থাকে স্রোতের ভিতর
জল কাঁপে
নৌকা কাঁপে
ছায়া কাঁপে
রোদ ও নদীও কেঁপে কেঁপে ওঠে পৃথক দর্পনে;
ছায়ার চূড়ার চোখে দূরত্বের গভীরতা কিংবা ভেসে ওঠে
জলসীমানার অন্ধকার।

এই নদীর নিকটে সে প্রথম আসে
নোঙরের নিকটে হেঁটে যায়
কোনো এক অতিনান্দনিক একাকী, সময়।

ভালোবাসার রঙ

ভালোবাসার সোনালি রঙে
শূন্যতার বুকে
কেউ বাঁচতে চায় না।

যদিও ভালোবেসে
কেউ বাঁচতে আসে না;
থাকতে আসে।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ