,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

আলোচিত ইউপি সদস্য নজু হত্যা মামলা তদন্তে সিআইডি, রহস্য উদঘাটন

লাইক এবং শেয়ার করুন

এম নজরুল ইসলাম, বগুড়া :

বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার থালতা মাঝগ্রাম ইউনিয়নের আমড়া গোহাইল গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য ও সাবেক জাপা নেতা নজরুল ইসলাম ওরফে নজুর আলোচিত হত্যা মামলা আলোর মুখ দেখতে চলেছে। দীর্ঘ ৩বছর ১০মাস পর আলোচিত এই হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করতে সফল হয়েছে সিআইডি। তদন্ত সম্পন্ন, খুব শিগগির আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে চলেছে সিআইডি।
বিষয়টি নিশ্চিত করছেন বগুড়া সিআইডির সহকারি পুলিশ সুপার (এএসপি) হাসান শামীম ইকবাল। তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, ২০১৩সালের ১৯আগষ্ট সাবেক ইউপি সদস্য ও সাবেক জাপা নেতা নজরুল ইসলাম ওরফে নজুকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। দেহে ধারালো অস্ত্র দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে ক্ষত-বিক্ষত করা হয় ইউপি সদস্য নজুকে। ধারনা করা হয়, পেশাদার খুনিরা এই হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে।

এঘটনায় নজুর ভাই বেলাল হোসেন বাদী হয়ে থালতামাঝগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন, সাবেক চেয়ারম্যান আফছার আলী, ইউপি সদস্য আতিকুর রহমান, জাহেদুর রহমান ও আশরাফুল ইসলামসহ ২৩জনের বিরুদ্ধে নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ১০/১৫জনকে আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

স্থানীয়রা জানান, ১৯৯২সাল থেকে থালতা মাঝগ্রাম ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পদে নির্বাচন করে পরপর বেশ কয়েকবার নির্বাচিত হয় নজরুল। সে থানা পুলিশের বিশ্বস্থ্য সোর্স হিসাবে কাজ করত। চাঁনপুরে সরকারী একটি পুকুর নিয়ে এলাকার কতিপয় লোকজনের সাথে দীর্ঘদিন ধরে নজরুলের বিরোধ হয়ে আসছিল। হত্যা মামলার তদন্তভার গ্রহন করেন নন্দীগ্রাম থানার তৎকালিন ওসি শাহজাহান আলী। মামলায় থানা পুলিশ ৫জনকে গ্রেফতার করলেও চাঞ্চল্যকর এই হত্যা মামলার ভবিষ্যত অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। মামলাটি তদন্তে হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনে ব্যর্থ হয় থানা পুলিশ। পরে ২০১৩ সালের ৩১অক্টোবর মামলাটি অধিকতর তদন্তের জন্য তৎকালিন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার উজ্জল কুমার রায় এর তত্বাবধানে বগুড়া জেলা পুলিশ অফিসে পাঠানো হয়। তারপরেও আলোচিত এই হত্যাকান্ডের রহস্য অন্ধাকারেই থেকে যায়।

সর্বশেষ ২০১৬ সালের ডিসেম্বর মাসে মামলার রহস্য উদঘাটনের জন্য নজু হত্যা মামলাটি বগুড়া সিআইডিতে হস্তান্তর করে। মামলা তদন্তকালে সিআইডির দুজন কর্মকর্তার পর হাতবদল হয়ে সিআইডির বর্তমান এএসপি হাসান শামীম ইকবাল এর হাতে যায়। এরপর সুষ্ঠ তদন্তে চাঞ্চল্যকর নজরুল অরফে নজু হত্যা মামলার রহস্যের জট খুলতে শুরু করে।

সিআইডির তদন্তে আলোর মুখ দেখতে চলেছে আলোচিত এই হত্যা মামলা। খুব শিগগির মামলার চুড়ান্ত রিপোর্ট আদালতে দাখিল করবেন জানিয়ে সিআইডির এএসপি ইকবাল বলেন, মামলার আসামিরা বর্তমানে জামিনে রয়েছে। মামলার তদন্তে মূল রহস্য বেড়িয়ে এসেছে। অচিরেই রিপোর্ট বিজ্ঞ আদালতে দাখিল করবো।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ