,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে হলে দুর্নীতিকে না বলুন : দুদক কমিশনার

লাইক এবং শেয়ার করুন

সামিউল আলম, দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধিঃ দুর্নীতি দমন কমিশনার (অনুসন্ধান) ড. নাসির উদ্দীন আহমেদ বলেছেন, “জনগণকে সেবা দিবেন অথবা চাকুরী ছেড়ে চলে যাবেন। যাদের ট্যাক্সের পয়সায় আপনাদের সংসার চলে তাদেরকে অবশ্যই সেবা দিতে হবে। সেবা গ্রহন জনসাধারনের সাংবিধানিক অধিকার।” আজ সোমবার (১৭ এপ্রিল) দুপুরে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে দুদক ও বিশ্ব ব্যাংকের আয়োজনে এবং উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত গণ শুনানীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সেবা প্রদানকারী কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে তিনি এসব কথা বলেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) বজলুর রশীদের সভাপতিত্বে গণশুনানীতে তিনি সেবা গ্রহিতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, “দুর্নীতি প্রতিরোধে সামাজিকভাবে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। বিশ্ব দরবারে এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে। সেবা প্রদানকারীরা যেন দুর্নীতি করার কোন সুযোগ না পায় সেদিকে লক্ষ রাখতে হবে। আপনাদের সেবা পাওয়ার অধিকার রয়েছে। কেউ দুর্নীতির আশ্রয় নিলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। দুদক সাধারন মানুষের পাশে আছে। সম্মিলিতভাবে সামাজিক আন্দোলনের মাঝে দুর্নীতিকে সহনীয় পর্যায়ে নিয়ে আসতে হবে।” তিনি আশা ব্যক্ত করেন যে, ২০১৮ সালের জুনের মধ্যে নবাবগঞ্জ উপজেলা একেবারে দুর্নীতি মুক্ত না হলেও সহনীয় পর্যায়ে আসবে। এজন্য দুদক নজরদারী রাখবে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে দুর্নীতিকে না বলতে হবে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, দুদক ঢাকা অফিসের পরিচালক মনিরুজ্জামান, দুদকের রাজশাহী বিভাগীয় পরিচালক আব্দুল আজিজ ভূঁইয়া, দিনাজপুর সজেকার উপ-পরিচালক আব্দুল করিম, দিনাজপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আবু আউয়াল, উপজেলা চেয়ারম্যান নুরে আলম সিদ্দিকি ও নবাবগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইসমাইল হোসেন। আরো উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও সাবেক অধ্যক্ষ এ.কে.এম আজিজুল হক, সাধারণ সম্পাদক  আল-আলিমুল রাজী, থানা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার দবিরুল ইসলাম, থানা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান মানিক প্রমূখ। শুনানীতে ২৬ জন তাদের অভিযোগ তুলে ধরেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কমিশনারের নিকট ৭ দিন থেকে ১ মাসের মধ্যে এর সমাধান দেওয়ার অঙ্গিকার ব্যাক্ত করেন।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ