,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

সুনামগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর পোষ্টার আগুনে পুরানো ও মূর্তি ভাংচুর মামলায় ১ আসামী জেলহাজতে

লাইক এবং শেয়ার করুন

মোজাম্মেল আলম ভূঁইয়া, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি # সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পোষ্টার আগুনে পুরানো ও ২টি মন্দিরের কালী মূর্তি ভাংচুর মামলার ১ আসামীকে গ্রেফতার করে গতকাল সোমবার সকাল ১০টায় জেলহাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আসামীর নাম-আলম শেখ(২২)। সে উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের কামড়াবন্দ গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে। এই মামলার অন্য আসামীরা হলেন-কামড়াবন্দ গ্রামের মৃত বদ মিয়ার ছেলে হাবিব সারোয়ার আজাদ (৩৮) ও তার সহযোগী একই গ্রামের শহিদুল্লার ছেলে রাজু মিয়া (২১)। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পোষ্টার আগুনে পুরানো ও পরপর ২টি মন্দিরের কালী মূর্তি ভাংচুরের ঘটনায় পুলিশ থানায় পৃথক ৩টি মামলা দায়েরের পর অভিযান চালিয়ে সন্ত্রাসী রাজু মিয়াকে গ্রেফতার করে তার সীকারোক্তি মূলক জবানবন্দি নিয়ে জেলহাজতে পাঠালেও মামলার প্রধান আসামী হাবিব সারোয়ার আজাদকে এখনও পযন্ত গ্রেফতার করছে না পুলিশ।

গত রবিবার সন্ধ্যায় থানার এসআই অজয় ও এসআই আমীর অভিযান চালিয়ে বাদাঘাট বাজার থেকে সন্ত্রাসী আলম শেখকে গ্রেফতার করেছে। কিন্তু মামলার প্রধান আসামী সন্ত্রাসী হাবিব সারোয়ার আজাদকে গ্রেফতারের দাবীতে জেলা ও উপজেলা আওয়ামীলীগ,ছাত্রলীগ ও হিন্দু সম্প্রদায়সহ এলাকার সর্বস্থরের জনসাধারণ ফুসে উঠে মানববন্ধনসহ বিক্ষোভ মিছিল করে উপজেলা প্রশাসনের নিকট স্মারকলিপি দিয়েছে।

উল্লেখ্য,গত ২রা ফেব্রুয়ারী রাত অনুমান ১২টায় উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়নের পৈলনপুর গ্রামের সার্বজনিন কালী মন্দিরের ২টি মূর্তি ভাংচুর ও বাদাঘাট বাজারে প্রধানমন্ত্রীর পোষ্টার পুরানোসহ গত ১১ই মার্চ শনিবার রাত অনুমান ২টায় দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়নের টুকেরগাঁও কালী মন্দিরের ১০টি মূর্তি ভাংচুর করে জঙ্গি সন্ত্রাসী হাবিব সারোয়ার আজাদ,তার সহযোগী আলম শেখ ও রাজু মিয়া। এসব ঘটনার প্রেক্ষিতে গত ৬ই ফেব্রুয়ারী সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ সহ-সভাপতি ঝুমুর কৃষ্ণ তালুকদার বাদী হয়ে সন্ত্রাসী হাবিব সারোয়ার আজাদ,তার সহযোগী আলম শেখ ও রাজু মিয়াকে আসামী করে মামলা নং-৫ ও গত ১৩ই মার্চ সোমবার টুকেরগাঁও কালী মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক বাবুল বর্মণ বাদী মামলা নং-৮ দায়ের করেন। এছাড়াও তাদের বিরুদ্ধে থানায় ও আদালতে ৪টি চাঁদাবাজি মামলা,৫টি সাধারণ ডায়রীসহ ১টি জিআর মামলা রয়েছে। তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নন্দন কান্তি ধর এসব ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ