,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

কাউখালী লঞ্চ ঘাটের পল্টুনটি এখন মরণফাঁদে পরিণত

লাইক এবং শেয়ার করুন

সৈয়দ বশির আহম্মেদ, কাউখালী প্রতিনিধি : দক্ষিণ অঞ্চলের নদী পথের অন্যতম নৌ যোগাযোগের প্রধান ঘাট কাউখালী লঞ্চ ঘাট। ব্রিটিশ আমল থেকেই আন্ত-দেশীয় এবং মংলা খুলনা ঢাকা সহ বিভিন্ন অঞ্চলের নৌ যোগাযোগের ঐতিহ্যবাহী লঞ্চ ঘাট কাউখালী। দীর্ঘ যোগাযোগের সড়ক যোগাযোগ উন্নতি হওয়ার পরে যাত্রীর সংখ্যা কিছুটা হ্রাস পেলেও লঞ্চ ঘাটটি তার পুরনো ঐতিহ্য ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু ঘাটের পল্টুনটির উপরের অংশ ফেটে দুই ভাগ হয়ে দীর্ঘ দিন পরে থাকায় এখন মৃত্যু কুপে পরিণত হয়েছে। পল্টুনটি ফেটে যাওয়ায় উপর থেকে নিচে ৫ ফুট গভীরে যাত্রীরা যেকোন সময় পরে যেয়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনায় পড়ে যেতে পারে।

প্রতি দিনই লঞ্চ থেকে উঠা নামার সময় ছোট বড় দুর্ঘটনা পড়তে থাকে। পল্টনটি পরিবর্তন করার জন্য স্থানীয় ভাবে বি.আই.ডাব্লুউ.টি. এ এর নিকট বার বার ধরনা দিলেও অজানা করনে পল্টুনটি পরিবর্তন করে নুতন পন্টুন স্থাপন করা হয়নি। গত ১৩ জানুয়ারী বি.আই.ডাব্ল্ুুউ. টি. এর পরিচালক মোঃ শাহজাহান হোসেন স্বরজমিন পরিদর্শনে এসে বাস্তবতা দেখে দ্রুত পরিবর্তনের আশ্বস দিলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। ঐতিহ্যবাহী এই কউখালী নদী বন্দরের লঞ্চ ঘাট থেকে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ সুপারি সহ বিভন্ন ধরনের কাচা মাল আমড়া, ডাব, কলা, তাল, চালতা ও পান দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রেরণ করা হয়। এছাড়াও এই ঘাট থেকেই ঢাকা ও চট্টগ্রাম হয়ে সরাসরি বিদেশেও মালামাল পাঠানো হয়।

প্রতিদিন ঢাকা, চাঁদপুর গামী ৫ টি লঞ্চ যাতায়াত করে। এবং ছোট বড় প্রায় ১০ থেকে ১২ টি লঞ্চ বিভিন্ন রুটে চলাচল করে। অথচ সরকার বি.আই. ডাব্লুউ. টি এ কর্তৃপক্ষ প্রতি বছর ১২ থেকে ১৫ লক্ষ টাকা রাজস্ব আদায় করলেও নাম মাত্র পল্টুনের সংস্কার করে যাত্রীদের দুর্ভোগে ফেলে। অভিযোগ রয়েছে প্রতি বছর লক্ষ লক্ষ টাকা সংস্কারে জন্য ব্যায় করলেও পল্টনটির স্থায়ী কোন সমস্য সমাধান হচ্ছে না। এব্যাপরে কাউখালী লঞ্চ ঘাট তদারকী কারক নাসির উদ্দিন জানান নিউজ করার দরকার নেই দ্রুত পল্টুনটি প্রতিস্থাপন করা হবে।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ