,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

লাভের মুখ দেখায় নতুন উদ্যমে বোরো আবাদ শুরু করেছে দিনাজপুরের কৃষকেরা

লাইক এবং শেয়ার করুন

আসাদুর রহমান, দিনাজপুর প্রতিনিধি: ধান আবাদ করে এবার লাভের মুখ দেখায় কোমর বেঁধে বোরো ধান আবাদ শুরু করেছে ধানের জেলা দিনাজপুরসহ এই অঞ্চলের কৃষকরা। কৃষকরা জানান, আমন ধানে বেশ লাভ পাওয়ায় তারা নতুন উদ্যমে শুরু করেছে বোরো আবাদ। আর সবকিছু অনুকূলে থাকায় এবার বোরো ধানের ভালো ফলনের আশা করছেন কৃষি বিভাগ।

বেশ ক’বছর থেকে ধান আবাদ করে বাজারে ন্যায্যমুল্য না পাওয়ায় লোকসানের অংক কষতে হয়েছে দিনাজপুরসহ এই অঞ্চলের কৃষকদের। এরপরও উপায় না থাকায় বাধ্য হয়েই তারা আবাদ করে দেশের প্রধান এই খাদ্যশষ্য। কৃষকরা জানান, বেশ ক’বছর থেকেই ধান আবাদ করে তাদের বাজারে বিক্রি করতে হয় ৮’শ থেকে ১ হাজার টাকা বস্তা দরে। এতে লাভ তো দুরের কথা উৎপাদন খরচও ঠিকমত উঠতো না তাদের। এই অবস্থায় লোকসান গুনতে গুনতে অনেকেই ধানের আবাদ কমিয়ে দিয়ে শুরু করে অন্যান্য ফসলের আবাদ। কিন্তু এবার আমন মৌসুমে তারা শুরু থেকেই মোটা ধানের দাম পেয়েছে প্রতি বস্তা ১৪’শ থেকে ১৬’শ টাকা । এতে বেশ লাভবান হওয়ায় এবার অন্যান্য ফসলের আবাদ কমিয়ে দিয়ে আবার ধান আবাদের দিকে ঝুকেছে এই অঞ্চলের কৃষকরা। গত বছর আগেও ধান আবাদে আগ্রহ হারিয়ে ফেললেও এবার নতুন উদ্যমে তারা বোরো ধানের আবাদ শুরু করেছে।
কৃষক আবুল কাশেম  জানান, আমন মৌসুমে যেভাবে তারা ধানের দাম পেয়েছে, তাতে তারা লাভবান হয়েছেন। বোরো ধানেরও এরকম দাম পেলে তারা ধান আবাদ আরও বৃদ্ধি করবেন বলে জানান তারা। এ জন্য ধানের বাজারমুল্য যাতে ঠিক থাকে, সেদিকে সরকারের দৃষ্টি দেয়ার আহ্বান জানান তারা।

কৃষক সাব্বির হোসে জানন,পাশাপাশি সেচ নির্ভর এই বোরো আবাদে যাতে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ এবং অন্যান্য উপকরনের যাতে ঘাটতি না হয়, সেদিকে লক্ষ্য রাখার জন্য সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান কৃষকরা। কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর-দিনাজপুর অঞ্চল, অতিরিক্ত পরিচালক, জুলফিকার হায়দার  জানান, সেচ মৌসুমে সঠিক বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করনের জন্য তারা ইতিমধ্যেই বিদ্যুৎ বিভাগের সাথে যোগাযোগ করছেন এবং সারের কোন সংকট নেই। দিনাজপুর, ঠাকুরগাঁও ও পঞ্চগড় জেলায় এবার ২ লাখ ৬৯ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে এবং ইতিমধ্যেই ৫৫ শতাংশ জমিতে বোরো রোপন সম্পন্ন হয়েছে। সবকিছু অনুকুলে থাকায় এবার ধানের আবাদ ভালোই আশা করছেন কৃষি বিভাগের এই কর্মকর্তা। এবার যেভাবে আমন ধানের মুল্য পেয়েছে তাতে বেশ খুশী কৃষকরা। তাদের কষ্টার্জিত উৎপাদিত প্রতিটি ফসলের ন্যায্যমুল্য যাতে এভাবে পায়, এমন প্রত্যাশা এই অঞ্চলের কৃষকদের।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ