,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

বগুড়ায় মরণফাঁদে চিকিৎসা সেবা : প্রাণহানির শঙ্কা

লাইক এবং শেয়ার করুন

হাফিজুর রহমান, বগুড়া: সংস্কার না করায় ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র এখন মরণফাঁদে পরিনত। যেকোনো মুহুর্তে ভবন ধসে প্রাণহানির শঙ্কা নিয়েই চলছে চিকিৎসাসেবা। ১৯৮০সালের দিকে সাধারন মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর কর্তৃক বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলার ২নং সদর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ভবনটি নির্মাণ করে। এরপর থেকে ভবনটি সংস্কারের কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ৬টি পদ থাকলেও পরিবার কল্যাণ পরিদর্শিকাসহ দুটি পদ খালি রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে পরিদর্শিকা ও ফার্মাসিষ্ট না থাকায় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসা রোগীরা চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, নন্দীগ্রাম সদর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রটির ভবনের বিভিন্নস্থানে বড়ধরনের ফাটল ধরেছে। খসে পড়েছে পলেস্তারা। যেকোনো মুহুর্তে ছাঁদ ও দেয়াল ধসে প্রাণহানির শঙ্কা রয়েছে। তবুও ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে চিকিৎসাসেবা। স্বাস্থ্য কেন্দ্রটি জরুরি ভিত্তিতে পরিত্যক্ত ঘোষণা করে নতুন ভবন নির্মাণ করা প্রয়োজন বলে মন্তব্য করে উপজেলা নাগরিক কমিটির সভাপতি আনোয়ার হোসেন রানা বলেন, প্রানহানির শঙ্কা মাথায় রেখে জনসাধারনের সু-চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে ভবনটি সংস্কার বা নতুন ভবন নির্মাণ আবশ্যক। এলাকাবাসী জানান, প্রতিদিন ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রে চিকিৎসাসেবা নিতে আসেন শিশু ও নারী-পুরুষ। ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় চিকিৎসা নিতে এসে অনেক রোগীরাই প্রাণভয়ে ফিরে যান। স্বাস্থ্য কেন্দ্রটি সংস্কার বা নতুন ভবন নির্মাণ জরুরী। অন্যথায় চিকিৎসাসেবা ব্যাহত হবে।

এপ্রসঙ্গে সদর ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাষক আব্দুল বারী বারেক বলেন, সু-চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে ও রোগীদের নিরাপত্তার কথা ভেবে ভবনটি সংস্কার অথবা নতুন ভবন নির্মাণ করতে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের উর্ধতন কতৃপক্ষের সুদৃষ্টি প্রত্যাশা করছি। একই প্রসঙ্গে সদর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার ফজলুর রহমান জানান, শুধু রোগী নন, আমিও ঝুঁকির মধ্যেই থাকি। স্বাস্থ্য কেন্দ্রের পাশাপাশি আবাসিক ভবনটিও মৃত্যুফাঁদে পরিনত। বিষয়টি উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ