,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

রাজাপুর পুলিশি হয়রানীর প্রতিবাদে ঐতিহায্য বাঘরীর হাট অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ! জনসাধারনের চরম দূর্ভোগ।

লাইক এবং শেয়ার করুন

অহিদ সাইফুল,ঝালকাঠি সংবাদদাতাঃjhal picপন্য পরিবহনে পুলিশের হয়রানীর প্রতিবাদে  রাজাপুর বৃহত্তর বাঘরী হাটে পন্য বেচাকেনা বন্ধ করে দিয়েছে ব্যবসায়ীরা। রোববার সকাল থেকে ব্যবসায়ীরা অনির্দিষ্টকালের জন্য এ ধর্মঘট শুরু করে। এতে নিত্য প্রয়োজনীয় পন্য কিনতে না পেরে চরম দূর্ভোগে পড়েছে সাধারণ মানুষ। তবে প্রশাসন দাবী করেছে, রাস্তায় পন্য ওঠানামা করায় যানজটের সৃষ্টি হওয়ায় ব্যবসায়ীদের অন্যত্র পন্য ওঠানামা করার জন্য বলা হয়েছে।
ব্যবসায়ীরা জানায়, দেশের উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল থেকে ট্রাকযোগে নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্য আনার পর রাজাপুর বাঘরি হাটের সড়কে পন্য নামানো হয়। এসময় রাজাপুর থানা পুলিশ ট্রাক চালক ও শ্রমিকদের বিভিন্ন অজুহাতে আটক ও হয়রানী করছে। এ ধরনের হয়রানীর ফলে ট্রাক মালিক শ্রমিক সংগঠনও পন্য আনা নেয়ার জন্য ট্রাক সরবরাহ করতে অস্বীকৃতি জানায়। এতে ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন সময়ে উপজেলা প্রশাসনে অভিযোগ দিয়েও কোন প্রতিকার না পাওয়ায় রোববার সকাল থেকে হাটের শতাধিক ব্যবসায়ীরা বেচাকেনা বন্ধ করে দিয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ডাক দেয়। ধর্মঘটে সাধারণ মানুষ নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্য না পাওয়ায় চরম দূর্ভোগে পড়েছেন।
স্থানীয় বাসিন্দা জালাল আহমেদ বলেন, ‘আমরা বাঘরী হাট থেকেই এক সপ্তাহের বাজার করি। হঠাৎ করে এটি বন্ধ হয়ে গেলে আমাদের আর দূর্ভোগের সীমা থাকবেনা।’
বাঘরি বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি জাকির সিকদার বলেন, ‘সড়কের পাশে মালামাল নামানো হলেও পুলিশ অনর্থক আমাদের হয়রানী করছে। ট্রাক চালক ও বাজার শ্রমিকদের মারধর ও আটক করছে। তাই বাধ্য হয়ে আমরা এ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছি।’
রাজাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম সাদিকুর রহমান বলেন, ‘ব্যবসায়ীরা আঞ্চলিক মহাসড়কে পন্য ওঠা নামা করায় ওই সড়কে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টিসহ যাত্রীদের দূর্ভোগ হয়। তাই তাদের পন্য অন্যত্র নামাতে বলা হয়েছে। কোন হয়রানী করা হচ্ছে না তাদের। হাট চালুর ব্যাপারে ব্যবসায়ীদের সাথে আলোচনা করা হচ্ছে।’


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ