,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

জঙ্গি আস্তানায় আটকে পড়াদের উদ্ধার করছে সেনাবাহিনী

লাইক এবং শেয়ার করুন

সিলেট নগরীর দক্ষিণ সুরমার শিববাড়িতে জঙ্গি আস্তানায় ‘আতিয়া মহল’- এ অভিযানে চলছে। শনিবার সকাল ৮ টা ৪৬ মিনিটে শুরু হওয়া অপারেশন ‘টোয়ালাইট’ (গোধূলী) নামের এই অভিযানে কেবল সেনাবাহিনীর প্যারাকমান্ডোরা অংশ নিয়েছেন। আর বাড়ির বাইরে অবস্থান করছেন পুলিশ, সোয়াত ও র‌্যাব সদস্যরা।

বাড়িটির নিয়ন্ত্রণে নিয়ে প্রথমেই আটকে পড়া বাসিন্দারে উদ্ধার প্রক্রিয়া শুরু করেন প্যারাকমান্ডোরা। বেলা সাড়ে ১১টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ভবনটি থেকে ৫৫ জন বাসিন্দাকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে। তাদের পাশ্ববর্তী একটি স্কুলে রাখা হয়েছে।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার রোকন উদ্দীর জানান, ‘এই মুহূর্তে আতিয়া মহল সেনা কমান্ডোদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তারা অভিযান পরিচালনা করেছেন।’

অভিযানে ১৭ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল আনোয়ারুল মোমেনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে সেনাবাহিনীর প্যারা-কমান্ডো সদস্যরা অংশ নিয়েছেন। তারা সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়ে বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করেছেন।

বাড়ির বাইরে অবস্থান নিয়েছেন পুলিশ, সোয়াত সদস্যরা। আর্মি ইন্টিলেজেন্সর পক্ষ থেকে সকাল ৯টা ৩৫ মিনিটের সময় ব্রিফিং করে বিষয়টি জানানো হয়।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) দিবাগত রাত ৩টার দিকে শিববাড়ি এলাকায় জঙ্গি আস্তানা ‘আতিয়া মহল’ ঘিরে ফেলে পুলিশ। শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে আতিয়া মহল বাড়ির ভেতর থেকে বাইরের দিকে গ্রেনেড ছোড়া হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

পরে অভিযান পরিচালনার জন্য বিকেলে ঢাকা থেকে সোয়াট টিম ও রাত সাড়ে ৭টার দিকে সেনাবাহিনীর প্যারা-কমান্ডো বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। শুক্রবার (২৪ মার্চ) দিবাগত রাত ৩টার দিকে অভিযানে নেতৃত্ব দিতে সিলেটে পৌঁছান কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।

পুলিশ বলছে, শুক্রবার ভোররাত চারটার দিকে বাড়ির ভেতর থেকে পুলিশকে লক্ষ্য করে হাতবোমা ছোড়া হয়েছে। পরে থেমে থেমে ফাঁকা গুলি ছোড়ে পুলিশ।

তাদের শান্তিপূর্ণভাবে আত্মসমর্পনের জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে আহ্বান করা হয়েছে। এসময় সন্দেহভাজন এক নারী জঙ্গি উচ্চ কণ্ঠে বলেন, ‘আমরা আল্লাহর পথে আছি। তাড়াতাড়ি সোয়াত পাঠান। দেরি করছেন কেন? আমাদের সময় কম।’

একই সময় ওই বাড়ির ভেতর থেকে পুরুষ কণ্ঠেও উচ্চস্বরে ‘সোয়াত ফোর্স পাঠানোর’ কথা বলা হয়। ‘জঙ্গিরা’ বলেছে, ‘আমাদের সময় কম, তাড়াতাড়ি সোয়াত পাঠান’। তবে কোনো পুলিশ কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেননি।

 


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ