,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

সিলেট নগরীতে জমে উঠছে ঈদের কেনাকাটা

লাইক এবং শেয়ার করুন

উদয় জুয়েল : ঈদ যতই ঘনিয়ে আসছে সিলেট নগরীতে তত জমে উঠছে ঈদ বাজার। চলছে জমজমাট বেচাকেনা। বিগত রমজান মাসের ঈদবাজারের তুলনায় এবার ক্রেতা কম থাকলেও নিজেদের ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার আশায় বুক বাঁধছেন দোকান মালিকরা। লাখ লাখ টাকার মাল ক্রয় করে তা গোডাউনে পচানোর দিন শেষ হতে চলেছে বলে মনে করছেন তারা। তাই দোকানে সাজিয়েছেন নতুন মডেল ও ডিজাইনের বাহারি পোশাক দিয়ে।
ধীর ধীরে ক্রেতারা ঈদ মার্কেটমুখী হতে শুরু করেছেন। বিক্রেতারাও ব্যস্ত আগের চেয়ে। নগরীর বাইরে থেকে আশানুরূপ ক্রেতা না এলেও কেনাকাটা সেরে নিচ্ছেন নগরীর কর্মব্যস্ত মানুষরা। গতবারের তুলনায় এবার তৈরি পোশাক ও রেডিমেট পোশাকের দাম বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণের কাছাকাছি। তবু ও প্রিয়জনের মুখে হাসি ফোটাতে পছন্দের পোশাকটি কিনতে হচ্ছে ক্রেতাকে। অভিজাত পরিবারের লোকজন তাদের রুচিসম্মত পোশাকের জন্য ছুটে যাচ্ছেন আল হামরা মার্কেট, বু্লওয়াটার  মার্কেট, ওয়েস্ট ওয়ার্ল্ড মার্কেট, শুকরিয়া মার্কেট, মধুবন মাকেট সহ বিভিন্ন মার্কেট।

এ ছাড়াও নগরীর আশপাশের মার্কেটগুলোতেও ভিড় লক্ষ করা গেছে। বিপনীবিতানের পাশাপাশি ভীড় রয়েছে বুটিক হাউসগুলোতে। আবার নিম্নবিত্তরা ছুটছেন ফুটপাতের দোকান গুলোতে। কারণ একটাই ঈদ করা চাই। গত ৪, ৫ দিন ঈদের বাজারে ক্রেতা শূন্যতা বিক্রেতাদের হতাশ করলেও এখন খুশি তারা। কিন্তু এবারে পোশাকের দাম চড়া হওয়ায় ক্রেতাদের মনে হতাশা বিরাজ করছে। পছন্দের জিনিসটি কিনতে না পেরে ফিরে আসছেন খালি হাতে। তারপরও ঈদের বাজারে ক্রেতার কমতি নেই।

মধ্যবিত্তদের মার্কেট নামে খ্যাত বিভিন্ন হকার্স মার্কেটে এখন উপচে পড়া ভিড়। ঈদ আয়োজনেও নেই কমতি। ছেলে, মেয়ে, শিশু, ছোট বড় সবার কথা মাথায় রেখে এবারে বিক্রেতারা দোকানগুলো সাজিয়েছেন ভিন্নভাবে। ছেলেদের জন্য এবারের ঈদে থাকছে বাহারি ডিজাইনের সর্ট পাঞ্জাবি, পাকুয়া পাঞ্জাবি, নবীন পাঞ্জাবি, বডিগার্ড শার্ট, ব্যন কালার শার্ট, বোর্ড শার্ট, ন্যারো শার্ট, লেলিন শার্ট, ফোল্ডিং শার্ট, ন্যারো টি-শার্ট এবং ওয়াশ কাপড়ের শার্ট। এগুলোর দাম রাখা হচ্ছে ৭০০ টাকা থেকে শুরু করে ১২৫০ টাকা পর্যন্ত।

প্যান্টের মধ্যে রয়েছে-থাই জিন্স, স্টোন ফ্রেড জিন্স, ক্রেপ জিন্স, ন্যারো গ্যাবার্ডিং, মোবাইল গ্যাবার্ডিং, এক্সপোর্ট প্যান্ট। ছেলেদের জন্য বিশেষ আকর্ষণ হিসেবে থাকছে রকি ভাই পেন্ট, এক্সম্যান, কিডসের গেঞ্জি ও টিস্যুপ্যান্ট। এ নতুন মডেলের পেন্ট গুলোর দাম রাখা হচ্ছে ৫০০ থেকে শুরু করে ৩০০০টাকা।

প্রতিবারের মতো মেয়েদের জন্য রয়েছে বিশেষ আয়োজন। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য-ঝিলিক, খুশি, আকশারা, পরি, ফুলকলি, লেহেঙ্গা, বেবিস্কার্ট, টু পার্ট স্কার্ট, ফ্রগ, থ্রি পিছ, লং ফ্রগ, ধুতি সেট, শানশান, রানী ফ্রগ এবং ঝিপসি। এর মধ্যে ক্রেতাদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে রয়েছে, শানশান, আকশারা, লেহেঙ্গা, ধুতি সেট এবং রানী ফ্রগ। এ সেটগুলোর দাম রাখা হয়েছে ১২০০ টাকা থেকে শুরু করে ১০০০০ হাজার টাকা।

শিশু ও কিশোরদের জন্য রয়েছে- রকি ভাই, পাগলু টু, ডোরেমন সেট, ডোরেমন অ্যাঙ্কর সেট, কিডসের গেঞ্জি, জিন্স কোয়ার্টার বাবা সেট এবং রং-বেরঙের শার্ট ও পাঞ্জাবি। শিশুদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে রয়েছে বাবা সেট, রকি ভাই, পাগলু টু, ডোরের মন অ্যাঙ্কর সেট। এগুলোর দাম রাখা হচ্ছে ৫০০ থেকে শুরু করে ২০০০ টাকা।

জিন্দাবাজারস্থ ওয়েস্ট ওয়ার্ল্ড মাকেটের নীচ তলায় এক্সপোর্ট বাজারের স্বত্বাধীকারী জাবেদ আহমদ জানান, দিন দিন ক্রেতাদের ভীড় বাড়ছে। স্কুল-কলেজ ছুটি থাকায় এখন থেকেই মার্কেটগুলোতে তরুণ-তরুণীদের ভিড় বাড়ছে। কিশোর-কিশোরী ও তরুণ-তরুণীদের পোশাক বিক্রি হচ্ছে বেশি। এসব পোশাকে বৈচিত্রও বেশি। পোশাকের রঙ, কাট ও আবহাওয়ার সঙ্গে মানানসই কাপড়ের প্রাধান্য পেয়েছে।

তবে অন্যান্ন মার্কেটের ব্যবসায়ীরা জানান, বেচা-কেনা খুব ভালো না। অন্য বছরের তুলনায় এবার ব্যবসাও কম। তবে এখন বাড়তে শুরু করেছে ক্রেতা। আশা করি ২০রোজার পর থেকে ব্যবসা আরও জমে উঠবে। আমরা আমাদের ব্যবসার ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে নিতে পারব।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ