,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

বগুড়া শজিমেকে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি অব্যাহত

লাইক এবং শেয়ার করুন

গুড়া অফিস : বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (শজিমেক) ইন্টার্ন চিকিৎসকদের অঘোষিত কর্মবিরতি অব্যাহত রয়েছে।

 
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে তারা এই কর্মবিরতি শুরু করে। তাদের চারজন ইন্টার্ন এর বিরুদ্ধে যে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে তা প্রত্যাহার করা না পর্যন্ত কর্মবিরতি অব্যাহত থাকবে বলে ইন্টার্নি চিকিৎসকদের মুখপাত্র কুতুব উদ্দিন জানিয়েছেন। 
 
এদিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে , বিনা নোটিশে কর্মবিরতিরত ইন্টার্ন চিকিৎসকদের অনুপস্থিতিতে চিকিৎসা ব্যবস্থার কোনো ব্যাঘাত ঘটবে না। চিকিৎসা ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখতে আট সদস্য করে দুইটি মনিটরিং কমিটি গঠন করেছে পরিচালনা কর্তৃপক্ষ।
 
 
হাসপাতাল সূত্র জানায়, রোগির স্বজনকে মারপিটের দায়ে চার ইন্টার্ন চিকিৎসকের ইন্টার্নশীপ ছয় মাসের জন্য স্থগিত করার পর বৃহস্পতিবার গোপন বৈঠক করে সন্ধ্যার পর থেকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা কাজে যোগ দেয়নি।
 
 
 
১৯ ফেব্রুয়ারি সিরাজগঞ্জ থেকে আসা এক রোগীর আত্মীয়কে মারপিট করে কয়েকজন ইন্টার্ন চিকিৎসক। রোগীর স্বজনকে কয়েকদফা মারপিট ও কানধরে উঠবস করার ঘটনার সেসব ভিডিও চিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও প্রকাশিত হয়। কিন্তু ইন্টার্ন চিকিৎসকরা উল্টো তাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলে কর্মবিরতি পালন করে। মানব বন্ধন ও বিক্ষোভের মাধ্যমে তাদের নিরাপত্তাজনিত কিছু দাবির কথাও তুলে ধরে। ঘটনাটি নিয়ে ব্যপক সমালোচনার সৃস্টি হয়। গত ২১ ফেব্রুয়ারি  আলাউদ্দিন নামের ৬০ বছরের সেই রোগী মারা যাবার পর স্বাস্থ্য মন্ত্রীর নির্দেশে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।
 
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নিদের্শনায় ২৫ ফেব্রুয়ারি তদন্ত কমিটি বগুড়া ও সিরাজগঞ্জে তদন্ত করেন। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এবং  কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী বগুড়া মেডিকেলের চার ইন্টার্ন চিকিৎসকের ইন্টার্নশীপ সাময়িকভাবে স্থগিত করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। আল মামুন, নূরজাহান বিনতে  ইসলাম নাজ, মো. আশিকুর রহমান এবং কুতুব উদ্দিন নামে চার শিক্ষানবিশ চিকিৎসক ছয় মাস বিরতির পর পৃথক মেডিকেল কলেজে তাদের ইন্টার্নশপি সমাপ্ত করতে পারবেন শর্ত জুড়ে দেয়া হয়। এ সংক্রান্ত খবর বৃহস্পতিবার গনমাধ্যমে আসে। বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের মধ্যে এনিয়ে প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। এরপর তারা গোপন বৈঠক করে কর্মবিরতিতে যাবার সিদ্ধান্ত নেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর থেকে হঠাৎ করেই ইন্টার্ন চিকিৎসকরা দায়িত্ব পালন থেকে বিরত থাকে। শনিবারও ইন্টার্ন চিকিৎসকদের দায়িত্ব পালনে দেখা যায়নি।

লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ