,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা, প্রতিবাদে লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন, গ্রেপ্তার-২

লাইক এবং শেয়ার করুন

কিশোর কুমার দত্ত, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে আবদুল কাদের নামে এক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যার প্রতিবাদে ও ঘটনার সাথে জড়িতদের বিচারের দাবীতে নিহতের লাশ নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছে বাজার ব্যবসায়ী ও স্থানীয় জনতা। বৃহস্পতিবার (০৬ অক্টোবর) বিকেলে উপজেলার সুফির বাজারে প্রায় ২ ঘন্ট ব্যাপী এসব কর্মসূচি পালন করেন তারা। এর আগে সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত ওই বাজারের সকল দোকান-পাট বন্ধ রেখে কাদের হত্যার প্রতিবাদ জানান ব্যবসায়ীরা। এসময় বিক্ষুদ্ধ জনতা জয়নালের বসতবাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। এদিকে সকালে নিহতের ভাই আবদুল মালেক বাদী হয়ে জয়নাল আবেদিন, সাদ্দাম হোসেন ও রোমান হোসেনসহ ৫জনকে আসামী করে রামগতি থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরপর ঘটনার মূল হোতা জয়নাল আবেদিনসহ দুইজনকে ওই এলাকায় থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে বুধবার উপজেলার সুফির বাজার এলাকায় প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ব্যবসায়ী কাদের চিকিৎসাধীন অবস্থায় গভীর রাতে নোয়াখালীর একটি প্রাইভেট হসপিটালে মারা যান।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, দীর্ঘদিন ধরে আবদুল কাদেরের সাথে একই এলাকার জয়নাল আবেদিনের জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। বুধবার সকালে সুফির বাজার এলাকায় জয়নাল আবেদিনের নেতৃত্বে ৫/৬ জনের একদল সন্ত্রাসী ব্যবসায়ী  কাদেরের ওপর হামলা চালায়। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা তাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে রাস্তায় ফেলে রেখে চলে যায়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় ঘটনাস্থল থেকে আবদুল কাদেরকে উদ্ধার করে নোয়াখালী’র একটি প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি করে স্বজনরা।পরে ঐ রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়। বৃহস্পতিবার দুপুরে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে আবদুল কাদেরের লাশ রামগতি উপজেলার সুফির বাজার এলাকায় নিয়ে আসা হয়।

পরে বিকেলে এ হত্যার প্রতিবাদ, জড়িতদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবীতে তার লাশ নিয়ে বাজারে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করে ব্যবসায়ীসহ হাজার হাজার জনতা। এসময় বক্তব্য রাখেন, স্থানীয় চরআলগী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজ উদ্দিন, সুফি বাজার উন্নয়ন কমিটির সভাপতি জসিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সফিক উদ্দিন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহেদ আলী মনু. যুবলীগ নেতা জাবেদ আমিন রাসেল। নিহতের লাশ দাফনের আগে বাড়িতে নিয়ে গেলে বিক্ষুদ্ধ জনতা জয়নালের বসতবাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। নিহত আবদুর কাদের সুফির বাজারের একজন ব্যবসায়ী ছিলেন। বিকেলে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

রামগতি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ইকবাল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় ৫জনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত জয়নাল আবেদিনসহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে বলেও জানান তিনি।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ