,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

ডিগ্রি নেই তবুও ডাক্তার! অবাধে চলছে চন্দ্রগঞ্জ শর্ম্মা মেডিকেলের কার্যক্রম

লাইক এবং শেয়ার করুন

কিশোর কুমার দত্ত, লক্ষ্মীপুর # প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গলী দেখিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জের শর্ম্মা মেডিকেল হলের কার্যক্রম। কোনো ধরনের ডাক্তারী বিদ্যা ছাড়াই একটি মিনি ক্লিনিক খুলে বসেছেন তিন ভূয়া ডাক্তার। নেই কোন ডিগ্রি। অথচ এসব ভূয়া ডিগ্রিধারী ডাক্তাররা প্রতারক সেজে জনসাধারণের সাথে করে চলছে প্রতারণা। ভূয়া ডাক্তাররা হলেন, রনজিৎ শর্ম্মাধিকারী, অজিত শর্ম্মাধীকারী, অনিতা শর্ম্মাধিকারী । তাছাড়া শর্ম্মা মেডিকেল হল নামে  লাইসেন্স বিহীন প্রতিষ্ঠান চালিয়ে আসছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। অথচ কেউ এদের টিকেটও ছুঁতে পারছে না।
জানা যায়, চন্দ্রগঞ্জ পশ্চিম বাজারের টুইন টাওয়ারের পিছনে শর্ম্মা মেডিকেল হল নাম দিয়ে প্রতিষ্ঠানের সামনে লাগিয়েছেন বিশাল কয়েকটি সাইনবোর্ড। ডিগ্রি না থাকলেও নামের আগে লিখেছেন ডাক্তার। ডিগ্রী আছে ডিএমএস, বিএইচই (স্বাস্থ্য)।

অভিযোগ রয়েছে, ঢাকা-কুমিল্লা থেকে টাকা দিয়ে ডিগ্রি কিনে নিয়ে নামের পাশে বিশেষজ্ঞ ডাক্তার লাগিয়ে সাধারণ মানুষদের থেকে কন্ট্রাকে টাকা নিয়ে চিকিৎসা করা হয়। ৩ হাজার থেকে শুরু করে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত কন্ট্রাকে চিকিৎসা দেওয়ার নামে রোগীদের সাথে চলছে প্রতারণা। এই টাকা ৩ জনের মধ্যে সমান ভাগে ভাগ করা হয়। আবার ভিতরে রোগীদের জন্য ভর্তির ব্যবস্থাও আছে বলে জানান একাধিক ব্যাক্তি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, অনিতা রাণী শর্ম্মাধিকারী, রনজিৎ শর্ম্মাধিকারী ও অজিত শর্ম্মাধিকারী যেসব ডিগ্রী ব্যবহার করেছেন, এসব ডিগ্রীর বাস্তব কোনো ভিত্তি নেই। কথিত ভূয়া ডাক্তারগন সব রোগের প্রেসক্রিপশন (এ্যালোপ্যাথিক) ঔষুধ লিখেন। জ্বর, সর্দি, কাশি, বাত ব্যথা, শ্বাসকষ্ট, অর্শ, গেজ, ওরিশ ও ভগন্দর রোগসহ যাবতীয় চিকিৎসা করেন এই তিন জন ভূয়া ডাক্তার। আবার মাঠে রয়েছে একাধিক মার্কেটিং রিপেজেন্টিভ। এদের মাধ্যেমে রোগীদের রাস্তা থেকে টেনে গলীর ভিতর নিয়ে ভয়ভিতি দেখিয়ে হাতিয়ে নেওয়া হয় নগদ অর্থ। এছাড়াও বিভিন্ন জায়গায় সাইনবোর্ড জুলিয়ে ভিজিট নিয়ে রোগী দেখছেন এসব ভূয়া ডাক্তার।

এব্যাপারে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলে কথিত ডা: রনজিৎ শর্ম্মাধিকারী জানান, প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে আমরা ডাক্তার লিখে রোগী দেখছি। প্রয়োজন হলে ভর্তি রাখি। আপনারা লেখেও কিছু করতে পারবেন না। ডা: অজিত শর্ম্মাধিকারী জানান, আমরা ঢাকা থেকে কোর্স করে ডিগ্রি অর্জন করেছি। তাই ডাক্তার লিখছি। তিনি আরো বলেন, আমি রোগী দেখবো পারলে কিছু করেন। অথচ জানা যায় এধরনের কোন ডিগ্রি মেডিকেল সাইন্সে নেই। এ বিষয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুজ্জামান বলেন, খুব শ্রিঘ্রই ভূয়া ডাক্তারদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  অভিযান অব্যাহত থাকবে।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ