,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

জেলার দ্বন্দ্বে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এলোমেলো বিএনপি

লাইক এবং শেয়ার করুন

নুর এ আলম ছিদ্দিকী # মনস্তাত্ত্বিক দ্বন্দ্বে জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতাদের মধ্যে দূরত্ব ক্রমেই বেড়ে চলেছে। অতীতে বিএনপির বিভিন্ন কর্মসূচি যৌথভাবে পালিত হলেও এখন কেন্দ্রীয় কর্মসূচিও পালন হচ্ছে নামকাউয়াস্তে। জেলা এই দূরত্বের সুযোগকে কাজে লাগিয়ে দলছুট কতিপয় নেতা সুবিধা আদায় করার চেষ্টা করছেন বলে সূত্র জানিয়েছে। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, জেলা বিএনপির  সভাপতি হাফিজুর রহমান মোল্লা কচির সঙ্গে সঙ্গে জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হক খোকনের মনস্তাত্ত্বিক দ্বন্দ্ব চলে আসছে দীর্ঘ দিন ধরেই। দুজনই এক সময় ছিলেন ছিলেন একই সাথে।

সূত্রানুযায়ী, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৩৫তম মৃত্যুবার্ষিকী একই সাথে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বিএনপি পালন করেছে । অন্যদিকে, শহীদ জিয়ার শাহাদাতবার্ষিকীতে  কর্মসূচি পালন করেছেন শহরের বিলাস বহুল কমিউনিটি সেন্টারে। দারিদ্র ভোজনের নামে নেতাকর্মীদের ভুরি ভোজন করেছে। আন্দোলনে মুল ভুমিকা পালন করা ত্যাগী নেতাকর্মীদের দাওয়াত দেয়া হয়নি সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের ধন্ধে।

নাম প্রকাশ না করে জেলার বিএনপির একাধিক নেতা বলেন, দু’টি কারণে জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতাদের মধ্যকার দূরত্বের সৃষ্টি। একজন চাচ্ছেন ত্যাগী নেতাকর্মীদের মুল্যায়ন করে জেলা বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন পূর্ণ গঠন করতে। জেলা বিএনপির সভাপতি হাফিজুর রহমান মোল্লা কচি ও যুগ্ম সম্পাদক আনিছুর রহমান মঞ্জু ,মুশফিকুর রহমান ও কাজী আনোয়ার কে তোষা মোদের মাধ্যমে আন্দোলনে নিষ্ক্রিয় নেতাকর্মীদের পদায়ন করতে।

অচিরে ই যদি এ সমস্যার সমাধান করা না যায় বা তৃনমূলের ত্যাগী নেতাদের মুল্যায়ন করা না হয় তাহলে ভবিষ্যতে চরম মুল্য দিতে হবে। ভবিশ্যতে যদি বহুধারায় ভিবক্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা বিএনপি ঐক্যবদ্ধ ভাবে পূর্ণ গঠন না করতে পারে তাহলে চরম মুল্য দিতে হবে।আমরা লোক দেখান ঐক্য নয় কার্যকর ঐক্য চাই।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ