,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

রুয়েট ছাত্রলীগ সম্পাদককে রাবি ছাত্রলীগের মারধর

লাইক এবং শেয়ার করুন

জি.এ.মিল্টন. রাবি প্রতিনিধি: ব্যক্তিগত দ্বন্দ্বে রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (রুয়েট) ছাত্রলীগের এক নেতাকে মারধরের ঘটনার জেরে রুয়েট ছাত্রলীগ নেতাকর্মী ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ছাত্রলীগ কর্মী পরিচয়ধারীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার সময় রাবির একজনকে আটক করে শিবির সন্দেহে পুলিশে দিয়েছে রুয়েট ছাত্রলীগ। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। এতে গোটা ক্যাম্পাসে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

এ ঘটনায় রুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী মাহফুজুর রহমান তপু মারধরের শিকার হয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি রুয়েটের ঘটনায় রাবি শাখার নেতাকর্মীরা ছিল না বলে দাবি করেছেন। তিনি বলেন- ‘আটককৃত রাবির ওই ছাত্রকে চিনি মনে হয়, তবে সে ছাত্রলীগ নাকি শিবির করে তা জানি না। ঘটনায় রাবি ছাত্রলীগের কোনো পদধারী বা সক্রিয় কর্মী গেছে বলে জানা নেই।’

রুয়েট সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রুয়েটের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে উপ-গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক নির্ঝর আহমেদকে মারধর করে রুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান তপুর অনুসারীরা। বিষয়টি রুয়েট ছাত্রলীগ নেতা নির্ঝর রাবি ছাত্রলীগ কর্মী পরিচয়ধারী কয়েকজনকে জানালে তারা নির্ঝরকে উদ্ধার করতে যায়। সেখানে বিষয়টি নিয়ে মীমাংসার জন্য বসে রুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তপু ও রাবি থেকে যাওয়া কথিত ছাত্রলীগ কর্মীরা। এসময় তপুর সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করে গালিগালাজ শুরু করে রাবি শাখার কথিত কর্মীরা। বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে তারা তপুকে ধাক্কা দেয় এবং মুখে কিল-ঘুষি মারে। এতে তপুর মুখে জখম হয়। পরে রুয়েট ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা ক্যাম্পাসে ফটক বন্ধ করে দিয়ে রাবি থেকে যাওয়া ছাত্রলীগ পরিচয়ধারীদের ধাওয়া করে। অন্যরা পালিয়ে গেলেও রাবির মনোবিজ্ঞান বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র ও ছাত্রলীগ কর্মী হিসেবে পরিচিত আমিরুল ইসলামকে বেধড়ক পিটিয়ে পুলিশ দেয় রুয়েট ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

জানতে চাইলে রুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তপু বলেন, ‘নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি থেকে একটু সমস্যা হয়েছিল। সেটা মীমাংসা করতে ক্যাম্পাসে আসলে বহিরাগত (রাবির) কয়েকজন আমাদের ধারালো অস্ত্র নিয়ে ধাওয়া করে। পরে আমরা পাল্টা ধাওয়া দেই। তারা মোটরসাইকেল যোগে আসায় দ্রুত পালিয়ে যায়। তবে একজনকে ধরে পুলিশে দিয়েছি।’ নগরীর মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী হাসান বলেন, ‘একজনকে আটক করে থানায় আনা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। রুয়েটের পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে।’


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ