,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

বায়ান্ন-একাত্তরে’র প্রথম কার্যনির্বাহী পর্ষদ ঘোষণা

লাইক এবং শেয়ার করুন

মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ বিষয়াবলী‘র মূল কাঠামোর উপর ভিত্তি করে গড়ে উঠেছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি অন্যতম সংগঠন ‘বায়ান্ন-একাত্তর‘। বৃহস্পতিবার শাবিপ্রবির ইউনিভার্সিটি সেন্টারের দোতলার একটি বক্তৃতা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে “বায়ান্ন-একাত্তরে’র  ১ম কার্যনির্বাহী পর্ষদ ঘোষণা দেয়া হয়। সংগঠনটির ১ম কার্যনির্বাহী পর্ষদ ঘোষণা দেন লোকপ্রশাসন বিভাগের শিক্ষক মো. মাহমুদ হাসান স্যার।  

সংগঠনের কার্যনির্বাহী সদস্যরা হলেনঃ-

সভাপতিঃ খোইরোম কামেশ্বর (CEE 4/2)
সহ-সভাপতিঃ সি. এম. মাহির জসীম (PHY 4/2)
সাধারণ সম্পাদকঃ সৈয়দ মাহি আহমদ (SOC 3/2)
সাংগঠনিক সম্পাদকঃ সজীব সাখাওয়াত (PHY 1/2)
অর্থ সম্পাদকঃ শাহনীল জুলকারনাইন (PHY 1/2)
দপ্তর ও পাঠাগার সম্পাদকঃ শ্রেয়া রয় (CEP 1/2)
গবেষণা সম্পাদকঃ ওয়াসিম কামাল রাতুল (PHY 1/2)
প্রচার সম্পাদকঃ শুভ্র কর (CEP 1/2)
প্রকাশনা সম্পাদকঃ হাবিবুল হাসান রিজভী (BNG 1/2)

বায়ান্ন-একাত্তরে’র লক্ষ ও উদ্দেশ্য সমূহঃ

(১) মুক্তিযুদ্ধের আশা-আকাঙ্খা ও প্রতিশ্রুতি পূরণের লক্ষ্যে কাজ করে যাওয়া।
(২) মুক্তিযুদ্ধের অনেক তথ্য এখনও সংগ্রহ করা হয়নি ও যায়নি। মাঠপর্যায়ে কাজ করে সেসব তথ্যের মধ্য থেকে যত বেশি সম্ভব সংগ্রহ করে দলিলীকরণ করা।
(৩) বাংলাদেশে সংঘটিত গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি প্রতিষ্ঠায় কাজ করে যাওয়া।
(৪) মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য-সংস্কৃতি বিষয়ক বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পাঠের অনুবাদ তৈরি করা।
(৫) তরুণ প্রজন্মের মধ্যে ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধসহ বাংলাদেশের ইতিহাসের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে তাদের মাঝে গবেষণা মনস্কতা তৈরি করা এবং তাদেরকে ইতিহাস ও রাজনীতি সচেতন দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে সহযোগিতা করা।
(৬) মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ বিষয়ক বিভিন্ন সংগঠনের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে তথ্য ও জ্ঞানের আদান-প্রদানের সুযোগ তৈরি করা।
(৭) মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ বিষয়ে প্রচলিত ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে প্রচারিত বিভিন্ন মিথ্যা তথ্যের বিরুদ্ধে জবাব তৈরি ও তা প্রচার করা।
(৮) বাংলাদেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য-সংস্কৃতি বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ-সংরক্ষণ ও প্রচার এবং গবেষণা ও চর্চা করা।
(৯) বাংলাদেশ সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয়ে বুদ্ধিবৃত্তিক চর্চা করা।
(১০) বিভিন্ন কর্মকাণ্ড গ্রহণের মাধ্যমে জনমানুষের মনে বাংলাদেশের প্রতি ইতিবাচক মানসিকতা, শ্রদ্ধাবোধ, ভালোবাসা ও দায়িত্ববোধ তৈরি করা করা।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

আরও অন্যান্য সংবাদ