,

AD
নববার্তা.কম এর সংবাদ পড়তে লাইক দিন নববার্তা এর ফেসবুক ফান পেজে

রমেল চাকমা ‘হত্যার’ প্রতিবাদে রাবিতে ফের মানববন্ধন

লাইক এবং শেয়ার করুন

জি.এ.মিল্টন, রাবি প্রতিনিধি : পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের নেতা রমেল চাকমার মৃৃত্যুকে ‘হত্যাকা-‘ আখ্যায়িত করে সুষ্ঠু তদন্ত ও পার্বত্য চট্রগ্রামের অস্থায়ী সেনা ক্যাম্প প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বেলা ১১ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের টুকিটাকি চত্বরে জুম্ম শিক্ষার্থীদের ব্যানারে এ মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য ব্যবস্থা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী অরুণ বিকাশ চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকলোর বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মো. আমিরুল ইসলাম, আদিবাসী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি বিভূতি ভূষণ মাহাতোব, ছাত্র ইউনিয়ন রাবি শাখার সভাপতি এম শাকিল হোসেন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি লিটন দাস, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সভাপতি দীপেন চাকমা প্রমুখ।

রমেল চাকমার মৃত্যুকে ‘হত্যাকা-’ উল্লেখ করে মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, মানবাধিকার লঙ্ঘনের কারণে পাহাড়ি এলাকায় ১৯৯৭ সালে শান্তি চুক্তি করা হয়। কিন্তু সেই শান্তি চুক্তির কোনো ধারা বর্তমানে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে না। যার ফলে পাহাড়ে শান্তি আসছে না। অর্থাৎ তাদের মৌলিক অধিকার গুলো থেকেও তারা বঞ্চিত হচ্ছে। তাদের সেই অধিকার গুলোর জোর দাবিও জানান বক্তারা।

বক্তারা আরও বলেন, রমেল চাকমার লাশটি পরিবারের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়ে পেট্রোল দিলে জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে যা অত্যন্ত অমানবিক। যার মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় বাহিনী মানবতাবিরোধী অপরাধ করেছে বলে দাবি করা হয়। এসময় বক্তারা বলেন, রমেল চাকমাসহ যতগুলো ‘হত্যাকা-’ ঘটছে সবগুলোর বিচার বিভাগীয় তদন্তের ও দোষীদের শাস্তির দাবি জানান তারা।
 
উল্লেখ্য, গত ৫ এপ্রিল নানিয়ারচরের ট্রাক পোড়ানো ও বাস লুটের ঘটনায় পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের নানিয়ারচর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ও এইচএসসি পরীক্ষার্থী রমেল চাকমাকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী আটক করে। আটকের পর রমেল চাকমা অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে দুই সপ্তাহ ধরে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় গত ১৯ এপ্রিল তার মৃত্যু হয়।


লাইক এবং শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

আরও অন্যান্য সংবাদ